1. [email protected] : admi2017 :
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৪৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

ফার্মাসিউটিক্যাল মার্কেটিং প্র্যাকটিস ও কিছু প্রস্তাবনা

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১, ৬.৫১ পূর্বাহ্ণ
  • ৭৭ বার পঠিত
  • অধ্যাপক ডাঃ মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ

নৈতিকতা, বিবেক ও আইনের মাধ্যমে ওষুধ সামগ্রীর প্রচার করা উচিত। ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানির পণ্য বিপণন অনুশীলনের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। বাংলাদেশের আর্থসামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং স্বাস্থ্য সেবার প্রেক্ষাপট ও আইনী ব্যবস্থা বিবেচনা করে নিচের নিয়মগুলো বিবেচনা করা উচিত।

ক) চিকিৎসা সংক্রান্ত ওষুধের প্রচারের নৈতিক মানদণ্ড।

খ) চিকিৎসা সংক্রান্ত ওষুধের বিজ্ঞাপন/বাজারজাতকরণ ও সরবরাহ নীতিমালা।

ফার্মাসিউটিক্যাল পণ্য বলতে বুঝায় কোন কোম্পানির জৈবিক পণ্য যা ব্যবহার করা হয় মানুষের রোগ মুক্তি, রোগ প্রশাসন ও চিকিৎসা, রোগ প্রতিরোধ অথবা রোগ নির্ণয়ের লক্ষ্যে ব্যবহৃত পণ্যকে। আর এর প্রচার বলতে বুঝায় এসব পণ্যের তথ্যবহুল বিপণন কার্যক্রমকে। কোম্পানিগুলোকে মেডিক্যাল পেশা, মেডিসিনের অনুশীলনকারী এবং চিকিৎসকদের কাছে প্রচারের জন্য বিধিমতো কিছু শর্ত মেনে চলতে হবে। বিএমডিসির মাধ্যমে প্রবিধি তৈরি করে ফার্মাসিউটিক্যাল কোড/আইন প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করা যেতে পারে।

উদ্দেশ্য সমূহ :

* কোড অব ফার্মাসিউটিক্যাল মার্কেটিং প্র্যাকটিসের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে ওষুধ জাতীয় পদার্থের যৌক্তিক ব্যবহারের মাধ্যমে স্বাস্থ্য সেবার মান উন্নয়নে সমর্থন এবং উৎসাহ প্রদান।

*কোডটি তাই স্ব-অনুশাসন এবং আপীলের জন্য যারা ব্যবহার করতে পারবে- ক) ওষুধ প্রস্তুতকারী ও বিতরণকারী প্রতিষ্ঠান খ) প্রচারশিল্প গ) প্রেসক্রিপশন প্রদানকারী ঘ) ওষুধ সরবরাহ ও বিতরণের সঙ্গে যুক্ত স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্টকর্মী এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঙ) পেশাদার সমিতিগুলো, চ) রোগী এবং ভোক্তা গ্রুপ, ছ) পেশাদার এবং সাধারণ প্রচার মিডিয়া, জ) মেডিক্যাল জার্নালের প্রকাশক এবং সম্পাদকবৃন্দ, ঝ) অন্যান্য সম্পর্কিত প্রকাশনাগুলো এবং জনসাধারণ। * কোন ওষুধপণ্য সরবরাহের অনুমোদনের মঞ্জুরি পাওয়ার আগে প্রচার করা যাবে না। * যুক্তিসঙ্গত সীমার মধ্যে লাইসেন্সিং অনুমোদন কর্তৃপক্ষ অনুমোদন দেয়ার পূর্বেই প্রাক-নিবন্ধনকরণের সম্ভাব্যতা যাচাই বা সচেতনতামূলক প্রচার বা অন্য কোন প্রচার না কার্যক্রম সম্পন্ন করে নিতে পারে। * একটি চিকিৎসা পণ্যের গুণগতমানের ব্যাপারে দাবি করতে গেলে তা অবশ্যই হতে হবে সহজলভ্য প্রমাণের ভিত্তিতে এবং অতিরঞ্জিত বা বিব্রতকর কোন দাবি অবশ্যই করা যাবে না। * কোন পণ্যের ক্ষেত্রে ‘নিরাপদ’ শব্দ যুক্তিযুক্ত প্রমাণ ছাড়া ব্যবহার করা উচিত নয়। * সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ দ্বারা তাদের ব্যাপারে ব্যাখ্যা প্রদান করা হবে। (যেমন বিএমডিসি কর্তৃপক্ষ) * যে পণ্যগুলো ১২ মাসের বেশি সময় ধরে নির্দিষ্ট চিকিৎসায় ব্যবহৃত হচ্ছে এবং সহজলভ্য সে পণ্যগুলোকে ‘নতুন’ বলে প্রচার করা যাবে না।

অবশ্যই সত্য ও ন্যায়ের ভিত্তিতে পণ্যের তুলনা করতে হবে। ঝুলন্ত বা এখনও প্রমাণিত হয়নি সেই সকল পণ্যকে অন্যান্য পণ্যের চেয়ে খুবই ভাল বা বেশি শক্তিশালী এই শব্দগুলো অবশ্যই ব্যবহার করা যাবে না।

প্রিন্টেড প্রোমোশনাল ম্যাটারিয়ালস: * একটি ওষুধ কোম্পানি যখন স্বাস্থ্য সেবাপ্রদানকারী সদস্যদের নিকট যাবে তখন তাদেরকে তথ্যভিত্তিক শীট সরবরাহ করা উচিত। * লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষ যদি বিশেষ প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন না করে তবে প্রচার উপাদানগুলোতে সরকার বা লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষ দ্বারা গঠিত অফিসিয়াল বডিকে রেফারেন্স হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা যাবে না।

পুনরায় মুদ্রণ, বিমূর্তি এবং উদ্ধৃতিসমূহ : কেবলমাত্র যুক্তিসঙ্গতভাবে বিভিন্ন প্রচার সামগ্রীতে কোন চিকিৎসকের নাম বা স্বাস্থ্য সেবা প্রদানকারী সদস্যদের উদ্ধৃতি বা আর্টিকেল বা রেফারেন্স অন্তর্ভুক্ত করা যাবে।

প্রিন্টেড প্রচারমূলক উপাদান বিতরণ : * স্বাস্থ্যসেবা পেশাদারদের মধ্যে প্রচারমূলক উপাদানগুলো কেবল তাদের মধ্যেই বিতরণ করা উচিত যাদের প্রয়োজন বা আগ্রহ আছে। এক্ষেত্রে নির্দিষ্ট তথ্য যুক্তিসঙ্গত হিসেবে ধরে নেয়া যায়। * ক্লিনিকসমূহ, শিল্পায়ন সম্পর্কিত, ক্লাব বা বিদ্যালয়ে চিকিৎসাপণ্যসমূহ ব্যবহারে উৎসাহিত করার জন্য কোন তথ্য সজ্জিত করা হলে তা অবশ্যই শুধু চিকিৎসাকর্মীদের অবগত করতে হবে। * এই কোডটিতে যে সকল স্বাস্থ্যসেবা পেশাদারদের সঙ্গায়িত করা হয়েছে তাদের অনুমতি সাপেক্ষে তারা শুধু মেইলিং লিস্টের অন্তর্ভুক্ত হবে।অডিও ভিজ্যুয়াল উপাদান: প্রচারমূলক উপাদান হিসেবে যে সকল অডিও ভিজ্যুয়াল উপাদান মানসম্মত সেগুলো কোডটির সকল প্রাসঙ্গিক প্রয়োজনীয়তা মেনে চলবে।

মেডিক্যাল প্রতিনিধি ও তাদের শর্তাদি: * কোম্পানির পণ্য দায়িত্বশীল এবং সঠিক উপায়ে উপস্থাপনের জন্য মেডিক্যাল প্রতিনিধিদের পর্যাপ্ত প্রশিক্ষিত হতে হবে এবং তাদের পর্যাপ্ত চিকিৎসা এবং প্রযুক্তিগত জ্ঞান থাকতে হবে। * তাদের দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে মেডিক্যাল প্রতিনিধিদের সর্বদা উচ্চমান এবং নৈতিক আচরণ বজায় রাখতে হবে * মেডিক্যাল প্রতিনিধিদের অন্যায় এবং বিভ্রান্তিকর তুলনা অবশ্যই এড়ানো উচিত। * মেডিক্যাল প্রতিনিধিদের কোম্পানির পণ্য উপস্থাপনের জন্য টেলিফোন ব্যবহার করা যাবে না।

নমুনা: * মেডিক্যাল প্রতিনিধিগণ ওষুধ সম্পর্কে জানানোর জন্য এবং চিকিৎসকের প্রয়োজনে তাদেরকে কোম্পানির ওষুধের নমুনা দিতে পারবেন। * চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্রের ওষুধ ছাড়া অন্য কোন নতুন ওষুধ বিনামূল্যে নমুনা হিসেবে দেয়া যাবে না। * চিকিৎসককে কোন নমুনা ওষুধ বিনা অনুমতিতে ডাক বরাবর এবং অন্য উপায়ে পাঠানো যাবে না। যদি পাঠাতে হয় তাহলে ভালভাবে নিরাপত্তার সঙ্গে পাঠাতে হবে। * নমুনা ওষুধ হাসপাতালে দিতে হলে ঐ হাসপাতালের নিয়ম অনুযায়ী দিতে হবে।

উপহার সামগ্রী : * বিক্রি বৃদ্ধির জন্য কোন উপহার এবং আর্থিক প্রণোদনা চিকিৎসককে দেয়া যাবে না। * প্রচারমূলক বিজ্ঞাপন হিসেবে দৈনন্দিন ব্যবহার উপযোগী অথবা চিকিৎসা সম্পর্কিত জিনিস উপহার হিসেবে দেয়া যাবে।

বিনোদন ও আতিথিয়তা : মেডিক্যাল সদস্যদের বিনোদন বা অন্যান্য আতিথিয়তা করা যাবে না।

জনসাধারণের সঙ্গে যোগাযোগ : * জনসাধারণের কাছে চিকিৎসা এবং চিকিৎসকের ব্যক্তিগত সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা করা যাবে না। ফার্মাসিউটিক্যাল পণ্যগুলোর শ্রেণীবদ্ধ করা যেতে পারে। * যে কোন ওষুধ এবং চিকিৎসা পদ্ধতি যা নতুনভাবে আবিস্কার করা হচ্ছে বা হয়েছে এই সব তথ্য সাধারণ জনগণের কাছে জানানো যাবে না।

উপরোক্ত আলোচিত বিষয়সমূহ প্রতিপালনের জন্য ওহফরধহ গবফরপধষ ঈড়ঁহপরষ-এর ন্যায় চিকিৎসক হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ওষুধ কোম্পানির (পণ্য উৎপাদন, বিপণন সরবরাহ, বাজারজাতকরণ ও বিজ্ঞাপন প্রচার) মেডিক্যাল যন্ত্রপাতি সরবরাহকারীগণ আইনের উর্ধে নন বিধায় বাংলাদেশ মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কাউন্সিল নতুন আইন প্রণয়নের মাধ্যমে সুষ্ঠুভাবে পেশাগত এটিকেট ও এথিকস নীতিমালা বাস্তবায়ন করার উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারে।

মেডিক্যাল পেশায় নিয়োজিত পেশাজীবীগণ বিশেষত চিকিৎসকগণের সঙ্গে হাসপাতাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি অথবা মেডিক্যাল যন্ত্রপাতি সরবরাহকারীগণের সঙ্গে কমিশন অথবা আর্থিক কোন অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে না ওঠে সেজন্য শাস্তির বিধান রেখে বাংলাদেশ মেডিক্যাল এ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল প্রবিধানের মাধ্যমে ফার্মাসিউটিক্যাল কোড প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করতে পারে।

লেখক : চেয়ারম্যান কমিউনিটি অফথালমোলজি বিভাগ, সাবেক মহাসচিব বাংলাদেশ মেডিক্যাল এ্যাসোসিয়েশনের সাবেক-প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazarsomoyer14
© All rights reserved  2019-2021

Dailysomoyerkontha.com