ঢাকা ০৯:৪৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
কোটা সংস্কারের পক্ষে সরকার নীতিগতভাবে একমত: আইনমন্ত্রী ঘোষণার পর মানছেন না কোটা আন্দোলনকারীরা আমার ভাইদের ফেরত দেওয়া হোক আগে রায়পুরে বালু উত্তোলনে ভাঙন আতঙ্ক সরকারের কাছ থেকে দৃশ্যমান পদক্ষেপ ও সমাধানের পথ তৈরির প্রত্যাশা করে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন শনির আখড়া-যাত্রাবাড়ী সড়কে চলছে সংঘর্ষ, যান চলালাচল অচল করে দিচ্ছেন ফেসবুক লাইভে এসে পদত্যাগের ঘোষণা ছাত্রলীগ নেতার উত্তরায় গুলিতে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ শিক্ষার্থী নিহত কমপ্লিট শাটডাউন ঢাকার সঙ্গে সব জেলার যোগাযোগ বন্ধ, টার্মিনাল থেকে ছাড়ছে না কোনো বাস ফুলবাড়ীর দৌলতপুর ইউনিয়নে গরু চুরির হিড়িক দেশবাসীর প্রতি মির্জা ফখরুলের আহ্বান, শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঢাবি, ৬টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ

ধর্মকে পুজি করে নতুন ভাবে বাণিজ্য করছেন প্রতারক ও ভন্ড মীর শোয়াইব আনছারী

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : ১০:৫৫:৪৯ পূর্বাহ্ণ, মঙ্গলবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২০
  • / ৫৪৫ ৫০০.০০০ বার পাঠক

ধর্মকে পুজি করে নতুন ভাবে  বাণিজ্য করছেন প্রতারক  ও ভন্ড  মীর শোয়াইব আনছারী এই ভদ্র মুখোশের আন্তরালে ইসলাম ধর্মের নাম ভাঙ্গিয়ে মানুষের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ যিনি প্রতারনার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে সমাজে বিত্তবান সেজেছেন।তিনি হলেন ভন্ড, প্রতারক মীর শোয়াইব আনছারী। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, জামালপুর সদর উপজেলায় নান্দিনা ইউয়িনের ঘোড়াকান্দি গ্রামে হত-দরিদ্র ঘরের সন্তান এই আনছারী।নান্দিনা হেফজ মাদ্রাসায় লেখাপড়া করাকালীন তিনি জামায়াত-শিবিরের সক্রীয় সদস্য ছিলেন।এই প্রতারক মীর আনছারী ২০০২ সালে তিনি রাজধানীর খিলগাঁও এসে গড়েন পাকা মসজিদ, স্বল্প বেতনে ইমাম পদে চাকুরীতে যোগদান করেন আনছারী। ইমাম পদে ১০ বৎসর ঐ মসজিদে কর্মরত থাকা অবস্থায় গ্রামের বাড়ীতে বিয়ে করেন,সন্তানাদির বাবাও হন তিনি। কিছুদিন যেতে না যেতেই ২০১২ সালে তার ঘনিষ্ঠ বন্ধুর স্ত্রীর সঙ্গে অনৈতিক ও অসামাজিক কর্মকান্ডের জড়িয়ে পড়েন।এই নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।পরবর্তীতে মসজিদ ফান্ডের অর্থ চুরির দায়ে তাকে মসজিদ থেকে বহিষ্কার করে স্থানীরা।সেই থেকেই তিনি চাকুরী হারিয়ে বেকার হয়ে পড়েন।উপায়ন্তর না পেয়ে তিনি রাজধানীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও ট্রাভেল এজেন্সীতে নারী সাপ্লাইয়ের বাণিজ্যি শুরু করেন।অত্বপর তিনি নারীর দালাল হিসাবে চিহ্নিত হন।পরবর্তীতে নিউ ইস্কাটন জামে মসজিদে খতিব হিসাবে চাকুরীতে যোগদান করেন।ওারপর থেকে তাকে আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি।বিভিন্ন এতিম ছাত্র/ছাত্রীদের লেখাপড়া করানো ও মাদ্রাসার উন্নয়নের নামে প্রতারনা মাধ্যমে।ইসলাম ধর্মের দোহাই দিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা উত্তোলন করেন।অর্থ আত্মসাৎ করে বর্তমানে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন।ভন্ড প্রতারক মীর শোয়াইব আনছারী,গড়ে তুলেছেন বিশাল টাকার ভান্ডার।নামে বেনামে গড়ে তুলেছেন প্রচুর সম্পদ। ৩০ লক্ষ টাকা দামের গাড়ীতে চড়ে বেড়ান এই ভদ্র মুখোশধারী মীর শোয়াইব আনছারী।ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য দৈনিক সময়ের কন্ঠ পএিকা  নিজস্ব প্রতিবেদক মীর শোয়াইব আনছারীর মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ  হন গণমাধ্যমকর্মীরা।ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করতে চুড়ান্ত তদন্ত পুর্বক ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসনের হস্তক্ষেপের    কামনা করেন এলাকাবাসী আমজনতা (বিস্তারিত চাঞ্চলকর তথ্যের  জন্য চোখ রাখুন)

সময়ের অনুসন্ধান বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সংগ্রহের একমাত্র নির্ভর যোগ্য দৈনিক সময়ের কন্ঠ পত্রিকায়

আরো খবর.......

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ধর্মকে পুজি করে নতুন ভাবে বাণিজ্য করছেন প্রতারক ও ভন্ড মীর শোয়াইব আনছারী

আপডেট টাইম : ১০:৫৫:৪৯ পূর্বাহ্ণ, মঙ্গলবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২০

ধর্মকে পুজি করে নতুন ভাবে  বাণিজ্য করছেন প্রতারক  ও ভন্ড  মীর শোয়াইব আনছারী এই ভদ্র মুখোশের আন্তরালে ইসলাম ধর্মের নাম ভাঙ্গিয়ে মানুষের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ যিনি প্রতারনার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে সমাজে বিত্তবান সেজেছেন।তিনি হলেন ভন্ড, প্রতারক মীর শোয়াইব আনছারী। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, জামালপুর সদর উপজেলায় নান্দিনা ইউয়িনের ঘোড়াকান্দি গ্রামে হত-দরিদ্র ঘরের সন্তান এই আনছারী।নান্দিনা হেফজ মাদ্রাসায় লেখাপড়া করাকালীন তিনি জামায়াত-শিবিরের সক্রীয় সদস্য ছিলেন।এই প্রতারক মীর আনছারী ২০০২ সালে তিনি রাজধানীর খিলগাঁও এসে গড়েন পাকা মসজিদ, স্বল্প বেতনে ইমাম পদে চাকুরীতে যোগদান করেন আনছারী। ইমাম পদে ১০ বৎসর ঐ মসজিদে কর্মরত থাকা অবস্থায় গ্রামের বাড়ীতে বিয়ে করেন,সন্তানাদির বাবাও হন তিনি। কিছুদিন যেতে না যেতেই ২০১২ সালে তার ঘনিষ্ঠ বন্ধুর স্ত্রীর সঙ্গে অনৈতিক ও অসামাজিক কর্মকান্ডের জড়িয়ে পড়েন।এই নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।পরবর্তীতে মসজিদ ফান্ডের অর্থ চুরির দায়ে তাকে মসজিদ থেকে বহিষ্কার করে স্থানীরা।সেই থেকেই তিনি চাকুরী হারিয়ে বেকার হয়ে পড়েন।উপায়ন্তর না পেয়ে তিনি রাজধানীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও ট্রাভেল এজেন্সীতে নারী সাপ্লাইয়ের বাণিজ্যি শুরু করেন।অত্বপর তিনি নারীর দালাল হিসাবে চিহ্নিত হন।পরবর্তীতে নিউ ইস্কাটন জামে মসজিদে খতিব হিসাবে চাকুরীতে যোগদান করেন।ওারপর থেকে তাকে আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি।বিভিন্ন এতিম ছাত্র/ছাত্রীদের লেখাপড়া করানো ও মাদ্রাসার উন্নয়নের নামে প্রতারনা মাধ্যমে।ইসলাম ধর্মের দোহাই দিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা উত্তোলন করেন।অর্থ আত্মসাৎ করে বর্তমানে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন।ভন্ড প্রতারক মীর শোয়াইব আনছারী,গড়ে তুলেছেন বিশাল টাকার ভান্ডার।নামে বেনামে গড়ে তুলেছেন প্রচুর সম্পদ। ৩০ লক্ষ টাকা দামের গাড়ীতে চড়ে বেড়ান এই ভদ্র মুখোশধারী মীর শোয়াইব আনছারী।ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য দৈনিক সময়ের কন্ঠ পএিকা  নিজস্ব প্রতিবেদক মীর শোয়াইব আনছারীর মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ  হন গণমাধ্যমকর্মীরা।ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করতে চুড়ান্ত তদন্ত পুর্বক ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসনের হস্তক্ষেপের    কামনা করেন এলাকাবাসী আমজনতা (বিস্তারিত চাঞ্চলকর তথ্যের  জন্য চোখ রাখুন)

সময়ের অনুসন্ধান বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সংগ্রহের একমাত্র নির্ভর যোগ্য দৈনিক সময়ের কন্ঠ পত্রিকায়