ঢাকা ০১:১৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগ এর সদস্য নির্বাচিত (২০২২) এর গনসংবর্ধনা চট্টগ্রামের আলোচিত শিশু আয়াত হত্যা: আসামি আবির দুই দিনের রিমান্ডে ফুলবাড়ীতে অগ্নিকাণ্ডে বিদেশি গরু সহ বাড়ি পুড়ে ভস্মীভূত। ক্ষয়ক্ষতি প্রায় ৯ লক্ষ টাকা কাশিমপুর প্রেসক্লাবে কার্ডধারী সাংবাদিক নেতা মাজহারুল ইসলাম প্রতিক সন্দ্বীপে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান  সংবর্ধনা মোংলা পৌর যুবলীগের সভাপতি/ সম্পাদকের অসাংগঠনিক কার্যকলাপের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ঠাকুরগাঁওয়ে হানিফ কোচের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেল বাবা-মা ও মেয়ের বিএমএসএফ নিজস্ব গঠনতন্ত্রে পরিচালিত ট্রাস্টিনামা দলিলের অন্তর্ভুক্ত নয় -সাধারণ সভায় নেতৃবৃন্দ শহর সমাজসেবা কার্যালয়(২)খুলনার কার্যক্রম উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি স্বাবলম্বী করতে মন্ত্রণালয় দৃষ্টি দিবেন কি?

ধর্মকে পুজি করে নতুন পদ্ধতিতে বাণিজ্য করছেন প্রারক ও ভন্ড মীরশোয়াইব আনছারী

স্টাফ রিপোর্টারঃ

ধর্মকে পুজি করে নতুন পদ্ধতিতে বাণিজ্য করছেন প্রারক ও ভন্ড মীরশোয়াইব আনছারী এই ভদ্র মুখোশের আন্তরালে ইসলাম ধর্মের নাম ভাঙ্গিয়ে মানুষের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ যিনি প্রতারনার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে সমাজে বিত্তবান সেজেছেন।তিনি হলেন ভন্ড, প্রতারক মীর শোয়াইব আনছারী। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, জামালপুর সদর উপজেলায় নান্দিনা ইউয়িনের ঘোড়াকান্দি গ্রামে হত-দরিদ্র ঘরের সন্তান এই আনছারী।নান্দিনা হেফজ মাদ্রাসায় লেখাপড়া করাকালীন তিনি জামায়াত-শিবিরের সক্রীয় সদস্য ছিলেন।এই প্রতারক মীর আনছারী ২০০২ সালে তিনি রাজধানীর খিলগাঁও এসে গড়েন পাকা মসজিদ, স্বল্প বেতনে ইমাম পদে চাকুরীতে যোগদান করেন আনছারী। ইমাম পদে ১০ বৎসর ঐ মসজিদে কর্মরত থাকা অবস্থায় গ্রামের বাড়ীতে বিয়ে করেন,সন্তানাদির বাবাও হন তিনি। কিছুদিন যেতে না যেতেই ২০১২ সালে তার ঘনিষ্ঠ বন্ধুর স্ত্রীর সঙ্গে অনৈতিক ও অসামাজিক কর্মকান্ডের জড়িয়ে পড়েন।এই নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।পরবর্তীতে মসজিদ ফান্ডের অর্থ চুরির দায়ে তাকে মসজিদ থেকে বহিষ্কার করে স্থানীরা।সেই থেকেই তিনি চাকুরী হারিয়ে বেকার হয়ে পড়েন।উপায়ন্তর না পেয়ে তিনি রাজধানীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও ট্রাভেল এজেন্সীতে নারী সাপ্লাইয়ের বাণিজ্যি শুরু করেন।অত্বপর তিনি নারীর দালাল হিসাবে চিহ্নিত হন।পরবর্তীতে নিউ ইস্কাটন জামে মসজিদে খতিব হিসাবে চাকুরীতে যোগদান করেন।ওারপর থেকে তাকে আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি।বিভিন্ন এতিম ছাত্র/ছাত্রীদের লেখাপড়া করানো ও মাদ্রাসার উন্নয়নের নামে প্রতারনা মাধ্যমে।ইসলাম ধর্মের দোহাই দিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা উত্তোলন করেন।অর্থ আত্মসাৎ করে বর্তমানে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন।ভন্ড প্রতারক মীর শোয়াইব আনছারী,গড়ে তুলেছেন বিশাল টাকার ভান্ডার।নামে বেনামে গড়ে তুলেছেন প্রচুর সম্পদ। ৩০ লক্ষ টাকা দামের গাড়ীতে চড়ে বেড়ান এই ভদ্র মুখোশধারী মীর শোয়াইব আনছারী।ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য প্রতিবেদক মীর শোয়াইব আনছারীর মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হন গণমাধ্যমকর্মীরা।ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করতে চুড়ান্ত তদন্ত পুর্বক ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসনের আশুহস্থক্ষেপ কামনা করেন এলাকাবাসী আমজনতা (বিস্তারিত চাঞ্চলকর তথ্যের জন্য চোখ রাখুন)সময়ের অনুসন্ধান বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সংগ্রহের একমাত্র নির্ভর যোগ্য পত্রিকা সময়ের কন্ঠ ও দৈনিক  ভোরের ধ্বনিতে।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগ এর সদস্য নির্বাচিত (২০২২) এর গনসংবর্ধনা

ধর্মকে পুজি করে নতুন পদ্ধতিতে বাণিজ্য করছেন প্রারক ও ভন্ড মীরশোয়াইব আনছারী

আপডেট টাইম : ১০:৫৫:৪৯ পূর্বাহ্ণ, মঙ্গলবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২০

স্টাফ রিপোর্টারঃ

ধর্মকে পুজি করে নতুন পদ্ধতিতে বাণিজ্য করছেন প্রারক ও ভন্ড মীরশোয়াইব আনছারী এই ভদ্র মুখোশের আন্তরালে ইসলাম ধর্মের নাম ভাঙ্গিয়ে মানুষের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ যিনি প্রতারনার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে সমাজে বিত্তবান সেজেছেন।তিনি হলেন ভন্ড, প্রতারক মীর শোয়াইব আনছারী। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, জামালপুর সদর উপজেলায় নান্দিনা ইউয়িনের ঘোড়াকান্দি গ্রামে হত-দরিদ্র ঘরের সন্তান এই আনছারী।নান্দিনা হেফজ মাদ্রাসায় লেখাপড়া করাকালীন তিনি জামায়াত-শিবিরের সক্রীয় সদস্য ছিলেন।এই প্রতারক মীর আনছারী ২০০২ সালে তিনি রাজধানীর খিলগাঁও এসে গড়েন পাকা মসজিদ, স্বল্প বেতনে ইমাম পদে চাকুরীতে যোগদান করেন আনছারী। ইমাম পদে ১০ বৎসর ঐ মসজিদে কর্মরত থাকা অবস্থায় গ্রামের বাড়ীতে বিয়ে করেন,সন্তানাদির বাবাও হন তিনি। কিছুদিন যেতে না যেতেই ২০১২ সালে তার ঘনিষ্ঠ বন্ধুর স্ত্রীর সঙ্গে অনৈতিক ও অসামাজিক কর্মকান্ডের জড়িয়ে পড়েন।এই নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।পরবর্তীতে মসজিদ ফান্ডের অর্থ চুরির দায়ে তাকে মসজিদ থেকে বহিষ্কার করে স্থানীরা।সেই থেকেই তিনি চাকুরী হারিয়ে বেকার হয়ে পড়েন।উপায়ন্তর না পেয়ে তিনি রাজধানীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও ট্রাভেল এজেন্সীতে নারী সাপ্লাইয়ের বাণিজ্যি শুরু করেন।অত্বপর তিনি নারীর দালাল হিসাবে চিহ্নিত হন।পরবর্তীতে নিউ ইস্কাটন জামে মসজিদে খতিব হিসাবে চাকুরীতে যোগদান করেন।ওারপর থেকে তাকে আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি।বিভিন্ন এতিম ছাত্র/ছাত্রীদের লেখাপড়া করানো ও মাদ্রাসার উন্নয়নের নামে প্রতারনা মাধ্যমে।ইসলাম ধর্মের দোহাই দিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা উত্তোলন করেন।অর্থ আত্মসাৎ করে বর্তমানে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন।ভন্ড প্রতারক মীর শোয়াইব আনছারী,গড়ে তুলেছেন বিশাল টাকার ভান্ডার।নামে বেনামে গড়ে তুলেছেন প্রচুর সম্পদ। ৩০ লক্ষ টাকা দামের গাড়ীতে চড়ে বেড়ান এই ভদ্র মুখোশধারী মীর শোয়াইব আনছারী।ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য প্রতিবেদক মীর শোয়াইব আনছারীর মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হন গণমাধ্যমকর্মীরা।ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করতে চুড়ান্ত তদন্ত পুর্বক ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসনের আশুহস্থক্ষেপ কামনা করেন এলাকাবাসী আমজনতা (বিস্তারিত চাঞ্চলকর তথ্যের জন্য চোখ রাখুন)সময়ের অনুসন্ধান বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সংগ্রহের একমাত্র নির্ভর যোগ্য পত্রিকা সময়ের কন্ঠ ও দৈনিক  ভোরের ধ্বনিতে।