ঢাকা ০১:১২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩
সংবাদ শিরোনাম ::
ভারতবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে শহীদ পরিবারের পাশে থাকার আহবান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হোমনায় ইয়াবা ব্যবসায়ী,সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজিদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন লামা বনবিভাগের সাড়াশি ৯ টি ব্রীকফিল্ডের প্রায় ৯ হাজার ঘনফুট গাছ জব্দ বর্তমান সরকার উন্নয়ন বান্ধব সরকার এই সরকারের সময় গ্রামীণ অবকাঠামোয় ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে বাশিস পীরগঞ্জ শাখার নবনির্বাচিতদের শপথ পাঠ করা হয়েছে খুলনা নগরের-খাঁন এ সবুর রোড-(আপার যশোর রোড)-এ-চলছে-রাস্তা সম্পসারনের কাজ রাঙামাটিতে উপজাতীয় সন্ত্রাসীদের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে নিহত-১ সন্দ্বীপের বানীরহাটে একরাতে ১৮দোকান চুরি মেট্রোপলিটন পুলিশ (ট্রাফিক) বন্দর বিভাগের আয়োজনে সচেতনতামূলক সভা তারাকান্দায় গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী জন্মদিন উদযাপন

আমতলী-কুয়াকাটা মহাসড়কে ঘাতক ট্রাক চালকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল চালক আহত

গতকাল বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে আমতলী কুয়াকাটা মহাসড়কে এক ঘাতক ট্রাকচালকের ধাক্কায় এক মোটরসাইকেল চালক আহত হন।

আহত মো. খালিদ হাওয়ালাদার বরগুনা ইসলামিয়া চক্ষু হাসপাতালে চাকরিরত অবস্থায় ছিলো। অসহায় পরিবারের গরিব বাবা মায়ের একমাত্র ছেলে খালিদ।

বরগুনা সদর ১ নং বদরখালী ইউনিয়নের বাওলকার গ্রামের মো. জয়নাল হাওলাদারের একমাত্র ছেলে খালিদ হাওলাদার (২৫)।

তিনি তার চাকরির ডিউটি পালনাকলে বরগুনা থেকে ডাক্তারকে সাথে নিয়ে কলাপাড়া চেম্বারে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পথে আমতলী ফিলিং স্টেশনের সামনে দূর্ঘটনার স্বীকার হন।

স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করে বলেন, মটর সাইকেলটি কলাপাড়ার দিক থেকে আসতেছিলো তখন ছুরিকাঁটা ফিলিং স্টেশন থেকে একটি ট্রাক কোন সিগনাল না দিয়ে দ্রুত বের হতে গেলে মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। মটর সাইকেলে থাকা ২ জন পরে গেলে ট্রাকটি পরে যাওয়া বাইক ড্রাইভারের শরীরের উপর দিয়ে চালিয়ে যায়।

তারা আরো বলেন, এরপরে আমরা ধাওয়া দিলে ট্রাক ড্রাইভার গাড়ি ফেলে রেখে দৌড়ে পালিয়ে যায়। এরপরে আমরা এবং পুলিশের সহোযোগিতায় আহত ব্যাক্তিকে আমতলী হাসপাতালে নিয়ে যাই।

প্রথমে আমতলী হাসপাতালে নিয়ে গেলে অবস্থা খারাপ দেখে তারা দ্রুত বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেলে নিয়ে যেতে বলেন।

দ্রুত বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পরে অবস্থা গুরুতর মনে হলে তারা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরে রক্ত সংগ্রহ না হওয়ায় এখনও তার চিকিৎসার কার্যক্রম শুরু হয়নি।

খালিদের বাবা একজন দিনমজুর তাই দীর্ঘ মেয়াদী ব্যায়বহুল চিকিৎসা কিভাবে চালাবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পরেছেন।

এ বিষয়ে আমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ এ কে এম মিজানুর রহমান বলেন, আমরা ট্রাকটি উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রেখেছি কিন্তু ট্রাক ড্রাইভার তাৎক্ষণিক পালিয়ে যাওয়ায় আমরা আটক করতে পারিনি।

তিনি আরও বলেন, এ বিষয়ে এখনো থানায় কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ভারতবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে শহীদ পরিবারের পাশে থাকার আহবান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

আমতলী-কুয়াকাটা মহাসড়কে ঘাতক ট্রাক চালকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল চালক আহত

আপডেট টাইম : ১২:২৩:২৮ অপরাহ্ণ, বুধবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২৩

গতকাল বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে আমতলী কুয়াকাটা মহাসড়কে এক ঘাতক ট্রাকচালকের ধাক্কায় এক মোটরসাইকেল চালক আহত হন।

আহত মো. খালিদ হাওয়ালাদার বরগুনা ইসলামিয়া চক্ষু হাসপাতালে চাকরিরত অবস্থায় ছিলো। অসহায় পরিবারের গরিব বাবা মায়ের একমাত্র ছেলে খালিদ।

বরগুনা সদর ১ নং বদরখালী ইউনিয়নের বাওলকার গ্রামের মো. জয়নাল হাওলাদারের একমাত্র ছেলে খালিদ হাওলাদার (২৫)।

তিনি তার চাকরির ডিউটি পালনাকলে বরগুনা থেকে ডাক্তারকে সাথে নিয়ে কলাপাড়া চেম্বারে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পথে আমতলী ফিলিং স্টেশনের সামনে দূর্ঘটনার স্বীকার হন।

স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করে বলেন, মটর সাইকেলটি কলাপাড়ার দিক থেকে আসতেছিলো তখন ছুরিকাঁটা ফিলিং স্টেশন থেকে একটি ট্রাক কোন সিগনাল না দিয়ে দ্রুত বের হতে গেলে মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। মটর সাইকেলে থাকা ২ জন পরে গেলে ট্রাকটি পরে যাওয়া বাইক ড্রাইভারের শরীরের উপর দিয়ে চালিয়ে যায়।

তারা আরো বলেন, এরপরে আমরা ধাওয়া দিলে ট্রাক ড্রাইভার গাড়ি ফেলে রেখে দৌড়ে পালিয়ে যায়। এরপরে আমরা এবং পুলিশের সহোযোগিতায় আহত ব্যাক্তিকে আমতলী হাসপাতালে নিয়ে যাই।

প্রথমে আমতলী হাসপাতালে নিয়ে গেলে অবস্থা খারাপ দেখে তারা দ্রুত বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেলে নিয়ে যেতে বলেন।

দ্রুত বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পরে অবস্থা গুরুতর মনে হলে তারা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরে রক্ত সংগ্রহ না হওয়ায় এখনও তার চিকিৎসার কার্যক্রম শুরু হয়নি।

খালিদের বাবা একজন দিনমজুর তাই দীর্ঘ মেয়াদী ব্যায়বহুল চিকিৎসা কিভাবে চালাবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পরেছেন।

এ বিষয়ে আমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ এ কে এম মিজানুর রহমান বলেন, আমরা ট্রাকটি উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রেখেছি কিন্তু ট্রাক ড্রাইভার তাৎক্ষণিক পালিয়ে যাওয়ায় আমরা আটক করতে পারিনি।

তিনি আরও বলেন, এ বিষয়ে এখনো থানায় কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।