ঢাকা ০৬:২৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
ফুলবাড়ী উপজেলা স্কাউটস ভবন কাজের ভিত্তি স্থাপন ও শীতকালী ক্রীড়া প্রতিযোগীর শুভ উদ্বোধন লক্ষ্মীপুরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন,ঘাতক ভাই আটক জমি বিরোধের জের- বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা পুলিশের অসহযোগীর অভিযোগ ওয়াজ মাহফিল ইসলাম প্রচারের চমৎকার এক মাধ্যম: মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম সাহেব বশেমুরবিপ্রবিতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা দাউদকান্দি হাইওয়েতে সড়ক দুর্ঘটনায় একজনের মৃত্যু চট্রগ্রামের আলিচিত আয়াত হত্যা দেহের দুই টুকরার খোঁজ মিলেছে সাগরপাড়ে তারাকান্দায় জেলা প্রশাসকের বদলি জনিত বিদায় সংবর্ধনা নৌবাহিনী তে চাকুরীর প্রলোভনে ৩ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন ইব্রাহিম দুলাল আশুলিয়ায় চাঁদা না পেয়ে নির্মানকাজে বাঁধা, নির্মানসামগ্রী লুট

মোস্তাফিজের দারুণ বোলিংয়ে রাজস্থানের প্রথম জয়

সময়ের কন্ঠ রিপোর্ট।।

মোস্তাফিজুর রহমান ও জয়দেব উনাদকাটের দারুণ বোলিংয়ের পরও ম্যাচে হার দেখছিল রাজস্থান রয়্যালস। তবে ডেভিড মিলার ও শেষদিকে ক্রিস মরিসের ঝড়ো ব্যাটে দিল্লী ক্যাপিটালসকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে রাজস্থান।

নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে প্রথম জয় পেয়েছে দলটি।

বৃহস্পতিবার আইপিএলের ১৪তম আসরের সপ্তম ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করা দিল্লী নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৭ রান করে। জবাবে ইনিংসের ২ বল বাকি থাকতে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫০ করে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় রাজস্থান।

১৪৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩৬ রানে টপঅর্ডারের ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে রাজস্থান। তবে ম্যাচের হাল ডেভিড মিলার ধরলেও অন্য প্রান্তে উইকেট পড়তে থাকে। দেখেশুনে খেলতে থাকা প্রোটিয়া হিটার মিলার দলের ভালো সংগ্রহ দাঁড় করিয়ে ব্যক্তিগত ৬২ রানে ফেরেন। আবেশ খানের বলে আউট হওয়ার আগে তিনি ৪৩ বলে ৭টি চার ও ২টি ছক্কা হাঁকান।

তবে শেষদিকে উনাদকাটের সঙ্গে ২৩ বলে ৪৬ রানের জুটি গড়ে দলকে জয় এনে দেন মরিস। দক্ষিণ আফ্রিকান এই অলরাউন্ডার ১৮ বলে ৪টি ছক্কায় ৩৬ রানে অপরাজি থাকেন। ৭ বলে ১১ রানের হার না মানা ইনিংস খেলেন উনাদকাট। মাঝে রাহুল তেওয়াটিয়ার ব্যাট থেকে ১৭ বরে ১৯ রান আসে।

দিল্লী বোলারদের মধ্যে আবেশ খান সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট পান। এছাড়া ক্রিস ওকস ও কাগিসো রাবাদা ২টি করে উইকেট দখল করেন।

টস হেরে এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে উনাদকাটের তোপে দিশেহারা হয়ে পড়ে দিল্লীর ব্যাটসম্যানরা। টপঅর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান পৃথ্বী শ, শিখর ধাওয়ান ও আজিঙ্কা রাহানেকে তুলে নেন এই বাঁহাতি। এরপর ঝলক দেখান মোস্তাফিজও। তিনি মার্কাস স্টোইনিস ও টম কারানকে মাঠ ছাড়া করান। দলটির ব্যাটিংয়ে সর্বোচ্চ ৩২ বলে ৫১ করে রান আউট হন অধিনায়ক ঋষভ পন্থ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২১ রান করেন কারান।

রাজস্থান বোলার উনাদকাট ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রান দিয়ে ৩টি উইকেট দখল করেন। ম্যাচ সেরার পুরস্কারও তার হাতে ওঠে। বাংলাদেশ তারকা মোস্তাফিজ ৪ ওভারে ২৯ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট পান। এছাড়া মরিস একটি উইকেট নেন।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

ফুলবাড়ী উপজেলা স্কাউটস ভবন কাজের ভিত্তি স্থাপন ও শীতকালী ক্রীড়া প্রতিযোগীর শুভ উদ্বোধন

মোস্তাফিজের দারুণ বোলিংয়ে রাজস্থানের প্রথম জয়

আপডেট টাইম : ০৭:১০:৪৮ পূর্বাহ্ণ, শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১

সময়ের কন্ঠ রিপোর্ট।।

মোস্তাফিজুর রহমান ও জয়দেব উনাদকাটের দারুণ বোলিংয়ের পরও ম্যাচে হার দেখছিল রাজস্থান রয়্যালস। তবে ডেভিড মিলার ও শেষদিকে ক্রিস মরিসের ঝড়ো ব্যাটে দিল্লী ক্যাপিটালসকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে রাজস্থান।

নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে প্রথম জয় পেয়েছে দলটি।

বৃহস্পতিবার আইপিএলের ১৪তম আসরের সপ্তম ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করা দিল্লী নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৭ রান করে। জবাবে ইনিংসের ২ বল বাকি থাকতে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫০ করে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় রাজস্থান।

১৪৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩৬ রানে টপঅর্ডারের ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে রাজস্থান। তবে ম্যাচের হাল ডেভিড মিলার ধরলেও অন্য প্রান্তে উইকেট পড়তে থাকে। দেখেশুনে খেলতে থাকা প্রোটিয়া হিটার মিলার দলের ভালো সংগ্রহ দাঁড় করিয়ে ব্যক্তিগত ৬২ রানে ফেরেন। আবেশ খানের বলে আউট হওয়ার আগে তিনি ৪৩ বলে ৭টি চার ও ২টি ছক্কা হাঁকান।

তবে শেষদিকে উনাদকাটের সঙ্গে ২৩ বলে ৪৬ রানের জুটি গড়ে দলকে জয় এনে দেন মরিস। দক্ষিণ আফ্রিকান এই অলরাউন্ডার ১৮ বলে ৪টি ছক্কায় ৩৬ রানে অপরাজি থাকেন। ৭ বলে ১১ রানের হার না মানা ইনিংস খেলেন উনাদকাট। মাঝে রাহুল তেওয়াটিয়ার ব্যাট থেকে ১৭ বরে ১৯ রান আসে।

দিল্লী বোলারদের মধ্যে আবেশ খান সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট পান। এছাড়া ক্রিস ওকস ও কাগিসো রাবাদা ২টি করে উইকেট দখল করেন।

টস হেরে এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে উনাদকাটের তোপে দিশেহারা হয়ে পড়ে দিল্লীর ব্যাটসম্যানরা। টপঅর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান পৃথ্বী শ, শিখর ধাওয়ান ও আজিঙ্কা রাহানেকে তুলে নেন এই বাঁহাতি। এরপর ঝলক দেখান মোস্তাফিজও। তিনি মার্কাস স্টোইনিস ও টম কারানকে মাঠ ছাড়া করান। দলটির ব্যাটিংয়ে সর্বোচ্চ ৩২ বলে ৫১ করে রান আউট হন অধিনায়ক ঋষভ পন্থ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২১ রান করেন কারান।

রাজস্থান বোলার উনাদকাট ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রান দিয়ে ৩টি উইকেট দখল করেন। ম্যাচ সেরার পুরস্কারও তার হাতে ওঠে। বাংলাদেশ তারকা মোস্তাফিজ ৪ ওভারে ২৯ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট পান। এছাড়া মরিস একটি উইকেট নেন।