ঢাকা ০৮:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
বানরীপাড়ার চৌমোহনা বাজারের স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আল-আমিন এর দোকান থেকে দোকান ম্যানেজার বজলুর বিরুদ্ধে অর্ধ কুটি টাকা আত্মসাধের অভিযোগ করেছে থানায় তথ্য সূত্রে জানা যায় কাশিমপুরে পাঁচশ টাকা না দেওয়ায় ধর্ষন মামলা কাশিমপুর থানা আওয়ামীলীগের ১ নং ঘোষণায় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইজ উদ্দিন মোল্লা রংপুরের পীরগঞ্জে যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে দেয়ায় ৮ পরিবার অবরুদ্ধ নাজিরপুরে জমি নিয়ে বিরোধ; বড় ভাইয়ের হামলার শিকার আহত ছোট ভাই হোমনায় ছাত্রলীগ সভাপতির উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত কাশিমপুর এর সম্মেলন পাতানো নাটক মাত্র কুমিল্লার মুরাদনগরের লতা আক্তার-নির্যাতিত স্বামীর হাতে।নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩-এ-মামলা চলমান কুমিল্লার মুরাদনগরের লতা আক্তার-নির্যাতিত স্বামীর হাতে।নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩-এ-মামলা চলমান ধানমন্ডির এক নামধারী গোল্ডেন খোকন এবং বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন নামে পরিচিত এই ব্যক্তি এখন আইনের আওতায়

মোটা চালের দাম কমলেও বেড়েছে ভোজ্যতেলের

অর্থনৈতিক রিপোর্ট।।

মোটা চালের দাম কিছুটা কমলেও বেড়েছে ভোজ্যতেলের । সরবরাহ বাড়ায় কমেছে শাক-সবিজর দাম। আটা, ডাল, চিনি, পেঁয়াজের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। এছাড়া ডিম ও ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে। স্থিতিশীল রয়েছে মাছ-মাংসের দাম।

শুক্রবার রাজধানীর কাওরান বাজার, কাপ্তান বাজার, ফকিরাপুল বাজার, মুগদা বড় বাজার ও যাত্রাবাড়ী বাজার ঘুওে নিত্যপণ্যের দরদামের এসব তথ্য পাওয়া গেছে। গত কয়েক মাস ধরে উর্ধমুখী চালের বাজার। স্বর্ণা ও চায়না ইরিখ্যাত মোটা চাল এখন বছরের অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে রাজধানীর খুচরা বাজারে। তবে টানা বেড়ে যাওয়া চালের দাম কিছুটা কমেছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। বর্তমান প্রতিকেজি মোটা চাল ৪৪-৪৮, সরু নাজির ও মিনিকেট ৫৮-৬২ এবং মাঝারি মানের পাইজাম ও লতা চাল ৫০-৫৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কাপ্তান বাজারের নুরু রাইচ এজেন্সীর সত্বাধিকারী মো. নুরুল ইসলাম জনকণ্ঠকে বলেন, সব ধরনের চালের দাম একটু কমেছে। তবে এইদামও অনেক বেশি। সরবরাহ বাড়লে দাম আগের অবস্থায় ফিরে আসবে। তিনি বলেন, দাম কমাতে সরকার বিভিন্ন দেশ থেকে চাল আমদানি শুরু করেছে। এসব চাল বাজারে আসলে দাম কমে আসবে।

খুচরা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের ভোজ্যতেলের দাম। গত কয়েকমাস ধরে দাম বাড়লেও আর কমছে না। প্রতিলিটার খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১১৬-১২০ পাঁচ লিটারের ক্যান ৬০০-৬৫০, সয়াবিন তেল বোতল একলিটার ১৩০-১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে খুচরা বাজারে। বাজারে আটা খোলা প্রতিকেজি ৩০-৩২, আটা প্যাকেট ৩৩-৩৫, ময়দা প্যাকেট ৪০-৪৫, ডাল মসুর প্রতিকেজি ৬৫-১৪০, চিনি ৬৫-৭০, প্রতিডজন ডিম ৯০-১০০ এবং প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি ১৪০-১৫০, এবং দেশী পেঁয়াজ ৩৫-৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে খুচরা বাজারে। আমদানিকৃত মোটা পেঁয়াজ ১৫-২৫ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

তবে সরবরাহ বেড়ে যাওয়ায় শীতের সবজির দাম আরও কমেছে। পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকা। শসার কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকার মধ্যে। শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৪০ টাকা। এছাড়া মুলার কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ টাকা, বেগুনের কেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা, পেঁপের কেজি ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, গাজরের কেজি ১৫ থেকে ২৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহের মতো ফুলকপি ও বাঁধাকপির পিস বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। লাউ বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা পিস।

ফকিরাপুল বাজারের ব্যবসায়ী মো. হারুন জনকণ্ঠকে বলেন, শীতের সবজি এখনো ভরপুর পাওয় যাচ্ছে। এ কারণে ক্রেতারা কম দামে সবজি কিনতে পারছেন। আরও মাসখানেক হয়তো সবজির এমন দাম থাকবে। তারপর দাম বেড়ে যেতে পারে।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

বানরীপাড়ার চৌমোহনা বাজারের স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আল-আমিন এর দোকান থেকে দোকান ম্যানেজার বজলুর বিরুদ্ধে অর্ধ কুটি টাকা আত্মসাধের অভিযোগ করেছে থানায়

মোটা চালের দাম কমলেও বেড়েছে ভোজ্যতেলের

আপডেট টাইম : ১১:২৮:১১ পূর্বাহ্ণ, শনিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

অর্থনৈতিক রিপোর্ট।।

মোটা চালের দাম কিছুটা কমলেও বেড়েছে ভোজ্যতেলের । সরবরাহ বাড়ায় কমেছে শাক-সবিজর দাম। আটা, ডাল, চিনি, পেঁয়াজের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। এছাড়া ডিম ও ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে। স্থিতিশীল রয়েছে মাছ-মাংসের দাম।

শুক্রবার রাজধানীর কাওরান বাজার, কাপ্তান বাজার, ফকিরাপুল বাজার, মুগদা বড় বাজার ও যাত্রাবাড়ী বাজার ঘুওে নিত্যপণ্যের দরদামের এসব তথ্য পাওয়া গেছে। গত কয়েক মাস ধরে উর্ধমুখী চালের বাজার। স্বর্ণা ও চায়না ইরিখ্যাত মোটা চাল এখন বছরের অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে রাজধানীর খুচরা বাজারে। তবে টানা বেড়ে যাওয়া চালের দাম কিছুটা কমেছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। বর্তমান প্রতিকেজি মোটা চাল ৪৪-৪৮, সরু নাজির ও মিনিকেট ৫৮-৬২ এবং মাঝারি মানের পাইজাম ও লতা চাল ৫০-৫৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কাপ্তান বাজারের নুরু রাইচ এজেন্সীর সত্বাধিকারী মো. নুরুল ইসলাম জনকণ্ঠকে বলেন, সব ধরনের চালের দাম একটু কমেছে। তবে এইদামও অনেক বেশি। সরবরাহ বাড়লে দাম আগের অবস্থায় ফিরে আসবে। তিনি বলেন, দাম কমাতে সরকার বিভিন্ন দেশ থেকে চাল আমদানি শুরু করেছে। এসব চাল বাজারে আসলে দাম কমে আসবে।

খুচরা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের ভোজ্যতেলের দাম। গত কয়েকমাস ধরে দাম বাড়লেও আর কমছে না। প্রতিলিটার খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১১৬-১২০ পাঁচ লিটারের ক্যান ৬০০-৬৫০, সয়াবিন তেল বোতল একলিটার ১৩০-১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে খুচরা বাজারে। বাজারে আটা খোলা প্রতিকেজি ৩০-৩২, আটা প্যাকেট ৩৩-৩৫, ময়দা প্যাকেট ৪০-৪৫, ডাল মসুর প্রতিকেজি ৬৫-১৪০, চিনি ৬৫-৭০, প্রতিডজন ডিম ৯০-১০০ এবং প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি ১৪০-১৫০, এবং দেশী পেঁয়াজ ৩৫-৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে খুচরা বাজারে। আমদানিকৃত মোটা পেঁয়াজ ১৫-২৫ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

তবে সরবরাহ বেড়ে যাওয়ায় শীতের সবজির দাম আরও কমেছে। পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকা। শসার কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকার মধ্যে। শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৪০ টাকা। এছাড়া মুলার কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ টাকা, বেগুনের কেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা, পেঁপের কেজি ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, গাজরের কেজি ১৫ থেকে ২৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহের মতো ফুলকপি ও বাঁধাকপির পিস বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। লাউ বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা পিস।

ফকিরাপুল বাজারের ব্যবসায়ী মো. হারুন জনকণ্ঠকে বলেন, শীতের সবজি এখনো ভরপুর পাওয় যাচ্ছে। এ কারণে ক্রেতারা কম দামে সবজি কিনতে পারছেন। আরও মাসখানেক হয়তো সবজির এমন দাম থাকবে। তারপর দাম বেড়ে যেতে পারে।