ঢাকা ০৫:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ জুন ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
মোংলায় ভূমিদস্যু মোখলেছ ও মাসুদ বাহিনীর হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের সাহায্য চেয়েছে এক ভুক্তভোগি পরিবার রেলওয়ের নিয়োগ পরীক্ষায়-বানিজ্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, পদ্মা সেতু বাস্তবায়ন বিশ্ব দরবারে দেশ ও জনগণকে আত্মবিশ্বাসের সাথে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর সাহস এনে দিয়েছে বিরামপুরে ছুটির দিনে বেড়াতে গিয়ে সড়কে গেল প্রাণ শিক্ষার্থী পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে নতুন স্মারক নোট।বাংলাদেশ সরকার ইসরাইলের সেই অভিযোগের পর ইরানের গোয়েন্দা প্রধান বরখাস্ত খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা কেমন, জানালেন চিকিৎসকরা টসে হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ পদ্মা সেতু নিয়ে ভিডিও বার্তা চীনা রাষ্ট্রদূতের, যা বললেন সাংবা‌দিকতায় পচন ধ‌রে‌ছে! সং‌শোধন জরুরী ! কোন পত্রিকায় কাজ ক‌রেনা অথচ সাংবা‌দিক ?

ইরানে পৌঁছালো রুশ ভ্যাকসিনের প্রথম চালান

অনলাইন ডেস্ক ॥ রাশিয়ার উদ্ভাবিত করোনা ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি- এর প্রথম চালান পৌঁছেছে ইরানে। মস্কোর কাছ থেকে এই ভ্যাকসিন কিনেছে তেহরান। বৃহস্পতিবার বিকালে তা তেহরানে পৌঁছায়। ইরানের সংবাদমাধ্যম পার্স টুডে এখবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, ইরানের মাহান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট স্পুটনিক-ভি ভ্যাকসিন নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে তেহরানের ইমাম খোমেনি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। চালানটি এখন ইরানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এর আগে বৃহস্পতিবার করোনার রুশ টিকা স্পুটনিক-ভি’র প্রথম চালান রাশিয়া থেকে ইরানে পাঠানো হয়।

রাশিয়ায় নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত কাজেম জালালি বলেন, বিশ্বের ১৬টি দেশে রাশিয়ার তৈরি টিকা স্পুটনিক-ভি অনুমোদন পেয়েছে। ইরান ১৬তম দেশ হিসেবে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগের অনুমতি দিয়েছে। এসব দেশের মধ্যে রয়েছে আর্জেন্টিনা, ফিলিস্তিনি অঞ্চল, ভেনেজুয়েলা, হাঙ্গেরি, সংযুক্ত আরব আমিরাত।

গত সপ্তাহে করোনার ভ্যাকসিন কেনার পাশাপাশি যৌথভাবে উৎপাদনের বিষয়ে রাশিয়ার সঙ্গে ইরানের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

ইরানি রাষ্ট্রদূত বলেন, ভ্যাকসিন তৈরির ক্ষেত্রে ইরান ভালো অবস্থানে রয়েছে। এ কারণে দুই দেশের মধ্যে এই সমঝোতা হয়েছে যে, পরবর্তীতে রুশ ভ্যাকসিন ইরানেই উৎপাদন করা হবে।

বিশ্বে রাশিয়াই প্রথম করোনার ভ্যাকসিন নিবন্ধনের ঘোষণা দেয়। পরে তা দেশটির ওষুধ নিয়ন্ত্রণ বিভাগ ব্যবহারের অনুমোদন দেয়। সম্প্রতি ভ্যাকসিনটির ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের চূড়ান্ত পর্বের ফলাফল আন্তর্জাতিক গবেষণা জার্নাল দ্য ল্যানসেটে প্রকাশিত হয়েছে। এতে দেখা গেছে, ভ্যাকসিনটি নিরাপদ এবং হাসপাতালে ভর্তি কিংবা মৃত্যু থেকে সম্পূর্ণ সুরক্ষা দেয়। চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের আগে প্রয়োগ শুরু হওয়ায় প্রাথমিকভাবে ভ্যাকসিনটি নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছিল। তবে বিজ্ঞানীরা বলছেন, ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতা এখন প্রমাণিত।

জাতীয় আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

মোংলায় ভূমিদস্যু মোখলেছ ও মাসুদ বাহিনীর হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের সাহায্য চেয়েছে এক ভুক্তভোগি পরিবার

ইরানে পৌঁছালো রুশ ভ্যাকসিনের প্রথম চালান

আপডেট টাইম : ০৬:৪০:০৫ পূর্বাহ্ণ, শুক্রবার, ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১

অনলাইন ডেস্ক ॥ রাশিয়ার উদ্ভাবিত করোনা ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি- এর প্রথম চালান পৌঁছেছে ইরানে। মস্কোর কাছ থেকে এই ভ্যাকসিন কিনেছে তেহরান। বৃহস্পতিবার বিকালে তা তেহরানে পৌঁছায়। ইরানের সংবাদমাধ্যম পার্স টুডে এখবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, ইরানের মাহান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট স্পুটনিক-ভি ভ্যাকসিন নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে তেহরানের ইমাম খোমেনি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। চালানটি এখন ইরানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এর আগে বৃহস্পতিবার করোনার রুশ টিকা স্পুটনিক-ভি’র প্রথম চালান রাশিয়া থেকে ইরানে পাঠানো হয়।

রাশিয়ায় নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত কাজেম জালালি বলেন, বিশ্বের ১৬টি দেশে রাশিয়ার তৈরি টিকা স্পুটনিক-ভি অনুমোদন পেয়েছে। ইরান ১৬তম দেশ হিসেবে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগের অনুমতি দিয়েছে। এসব দেশের মধ্যে রয়েছে আর্জেন্টিনা, ফিলিস্তিনি অঞ্চল, ভেনেজুয়েলা, হাঙ্গেরি, সংযুক্ত আরব আমিরাত।

গত সপ্তাহে করোনার ভ্যাকসিন কেনার পাশাপাশি যৌথভাবে উৎপাদনের বিষয়ে রাশিয়ার সঙ্গে ইরানের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

ইরানি রাষ্ট্রদূত বলেন, ভ্যাকসিন তৈরির ক্ষেত্রে ইরান ভালো অবস্থানে রয়েছে। এ কারণে দুই দেশের মধ্যে এই সমঝোতা হয়েছে যে, পরবর্তীতে রুশ ভ্যাকসিন ইরানেই উৎপাদন করা হবে।

বিশ্বে রাশিয়াই প্রথম করোনার ভ্যাকসিন নিবন্ধনের ঘোষণা দেয়। পরে তা দেশটির ওষুধ নিয়ন্ত্রণ বিভাগ ব্যবহারের অনুমোদন দেয়। সম্প্রতি ভ্যাকসিনটির ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের চূড়ান্ত পর্বের ফলাফল আন্তর্জাতিক গবেষণা জার্নাল দ্য ল্যানসেটে প্রকাশিত হয়েছে। এতে দেখা গেছে, ভ্যাকসিনটি নিরাপদ এবং হাসপাতালে ভর্তি কিংবা মৃত্যু থেকে সম্পূর্ণ সুরক্ষা দেয়। চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের আগে প্রয়োগ শুরু হওয়ায় প্রাথমিকভাবে ভ্যাকসিনটি নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছিল। তবে বিজ্ঞানীরা বলছেন, ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতা এখন প্রমাণিত।