ঢাকা ০৭:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
আশুলিয়ায় চাঁদা না পেয়ে নির্মানকাজে বাঁধা, নির্মানসামগ্রী লুট বিজিবি এ্যাথলেটিকস্ প্রতিযোগীতায় ২০২২ ইং আত্রাইয়ে ধর্ষণের শিকার ৬ বছরের শিশু , মামলা হয়েছে থানায় জনগনের চলাচলের ব্যবস্থা সুগম করতে নিরালস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন মেম্বার শফি উদ্দিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জনসভার নিরাপত্তায় থাকবে সাড়ে সাত হাজার পুলিশ বাহিনী প্রভাবশালীদের মেঘনার চর দখলের মহোৎসব ৩৭ বছর ভাত খান না ১৫ সন্তানের জননী জোহরা বিবি কিশোরগঞ্জের ভৈরব থেকে ৮৪ কেজি গাঁজা পাচারকালে ০২ মাদক কারবারীকে আটক  তালতলীতে নিলাম ব্যতীত সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ অপসংবাদিকতা, চাঁদাবাজি ও অর্থ আত্মসাৎ এর অভিযোগে ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিকে বহিষ্কার

কংগ্রেসের সভাপতি হচ্ছেন রাহুল গান্ধী?

ভারতের গুজরাট প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনের আগেই রাহুল গান্ধী ভারতীয় কংগ্রেসের নেতৃত্ব পাচ্ছেন বলে দেশটিতে আলোচনা চলছে। কংগ্রেসের সভাপতি পদে রাহুল গান্ধীর পথ প্রশস্ত করতে দলের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডেকেছেন সোনিয়া গান্ধী। গুজরাটের ভোটের আগেই দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে মোকাবিলায় রাহুলের রাজনৈতিক ক্ষমতা আরো বাড়াতেই কংগ্রেস এই কৌশল নিয়েছে বলে দেশটির পর্যবেক্ষকরা মন্তব্য করেছেন।

রোববার কংগ্রেস বলছে, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডাকা হয়েছে। সেখানে সভাপতি পদে নির্বাচনের সময় চূড়ান্ত হবে। কংগ্রেস নেতাদের বক্তব্য, সাধারণভাবে ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকের পরে পুরো নির্বাচন প্রক্রিয়া শেষ করতে দশ দিনের মতো সময় লাগতে পারে।

কংগ্রেস নেতা জনার্দন দ্বিবেদী বলেন, ‘যদি আর কোনো প্রার্থী সভাপতি পদে না প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তাহলে নাম প্রত্যাহারের শেষ দিনেই নতুন সভাপতির নাম ঘোষণা করা হবে।’ সভাপতি পদের জন্য রাহুল ছাড়া এখন পর্যন্ত অন্য কারও নাম দেয়ার সম্ভাবনা নেই বলে কংগ্রেসের বেশ কিছু সূত্র নিশ্চিত করেছে।

তবে রাহুলকে এখনই কংগ্রেসের সভাপতির দায়িত্ব দেয়া নিয়ে দলের মধ্যে নানা মত রয়েছে। দলের এক অংশ মনে করে, যদি রাহুলের প্রচারের পরও গুজরাট বা হিমাচলের বিধানসভা ভোটের ফল ভাল না হয়, তাহলে এই পদোন্নতি নিয়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়া হতে পারে। এর প্রভাব পড়তে পারে আগামী বছর বিধানসভার একাধিক ভোটে। এমনকি লোকসভার ভোটেও।

৯ ডিসেম্বর গুজরাটে বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম দফা ভোট অনুষ্ঠিত হবে। এই ভোটের আগেই রাহুল গান্ধী কংগ্রেসের সভাপতি নির্বাচিত হতে পারেন। অক্টোবরে এনডিটিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে কংগ্রেসের বর্তমান সভাপতি সোনিয়া গান্ধীও রাহুলের কাঁধে দলের দায়িত্ব তুলে দেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

১৯৯৮ সাল থেকে দলের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন সোনিয়া। টানা ১৭ বছর ধরে সোনিয়া গান্ধী দলটির সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে কংগ্রেসের সহ-সভাপতি হওয়ার পর থেকেই রাহুল দলটির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নেতা।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

আশুলিয়ায় চাঁদা না পেয়ে নির্মানকাজে বাঁধা, নির্মানসামগ্রী লুট

কংগ্রেসের সভাপতি হচ্ছেন রাহুল গান্ধী?

আপডেট টাইম : ১২:৪৪:৫১ অপরাহ্ণ, সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০১৭

ভারতের গুজরাট প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনের আগেই রাহুল গান্ধী ভারতীয় কংগ্রেসের নেতৃত্ব পাচ্ছেন বলে দেশটিতে আলোচনা চলছে। কংগ্রেসের সভাপতি পদে রাহুল গান্ধীর পথ প্রশস্ত করতে দলের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডেকেছেন সোনিয়া গান্ধী। গুজরাটের ভোটের আগেই দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে মোকাবিলায় রাহুলের রাজনৈতিক ক্ষমতা আরো বাড়াতেই কংগ্রেস এই কৌশল নিয়েছে বলে দেশটির পর্যবেক্ষকরা মন্তব্য করেছেন।

রোববার কংগ্রেস বলছে, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডাকা হয়েছে। সেখানে সভাপতি পদে নির্বাচনের সময় চূড়ান্ত হবে। কংগ্রেস নেতাদের বক্তব্য, সাধারণভাবে ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকের পরে পুরো নির্বাচন প্রক্রিয়া শেষ করতে দশ দিনের মতো সময় লাগতে পারে।

কংগ্রেস নেতা জনার্দন দ্বিবেদী বলেন, ‘যদি আর কোনো প্রার্থী সভাপতি পদে না প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তাহলে নাম প্রত্যাহারের শেষ দিনেই নতুন সভাপতির নাম ঘোষণা করা হবে।’ সভাপতি পদের জন্য রাহুল ছাড়া এখন পর্যন্ত অন্য কারও নাম দেয়ার সম্ভাবনা নেই বলে কংগ্রেসের বেশ কিছু সূত্র নিশ্চিত করেছে।

তবে রাহুলকে এখনই কংগ্রেসের সভাপতির দায়িত্ব দেয়া নিয়ে দলের মধ্যে নানা মত রয়েছে। দলের এক অংশ মনে করে, যদি রাহুলের প্রচারের পরও গুজরাট বা হিমাচলের বিধানসভা ভোটের ফল ভাল না হয়, তাহলে এই পদোন্নতি নিয়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়া হতে পারে। এর প্রভাব পড়তে পারে আগামী বছর বিধানসভার একাধিক ভোটে। এমনকি লোকসভার ভোটেও।

৯ ডিসেম্বর গুজরাটে বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম দফা ভোট অনুষ্ঠিত হবে। এই ভোটের আগেই রাহুল গান্ধী কংগ্রেসের সভাপতি নির্বাচিত হতে পারেন। অক্টোবরে এনডিটিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে কংগ্রেসের বর্তমান সভাপতি সোনিয়া গান্ধীও রাহুলের কাঁধে দলের দায়িত্ব তুলে দেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

১৯৯৮ সাল থেকে দলের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন সোনিয়া। টানা ১৭ বছর ধরে সোনিয়া গান্ধী দলটির সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে কংগ্রেসের সহ-সভাপতি হওয়ার পর থেকেই রাহুল দলটির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নেতা।