ঢাকা ১১:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩
সংবাদ শিরোনাম ::
শেরপুরে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ছাত্রদের মাঝে পুনাকের খাদ্যসামগ্রী ও শীতবস্ত্র বিতরণ বিট পুলিশিং বাড়ি-বাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি”- এই স্লোগানকে সামনে রেখে ময়মনসিংহ জেলার পাগলা থানা পুলিশের আয়োজনে গোবিন্দগঞ্জে দেড় হাজার পিস নেশাজাতীয় ইনজেকশনসহ স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার চট্রগ্রামের শ্রমিক ইউনিয়নের নাম ভাঙ্গিয়ে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে কিছু অসাধু শ্রমিক নেতা খুলনা সরকারী মহিলা কলেজের পিঠা উৎসবে কেএমপি’র কমিশনার নওগাঁর বদলগাছীতে বিষাক্ত গ‍্যাস ট‍্যাবলেট খেয়ে পৃথক পৃথক স্থানে সোমা আক্তার (১৮) ও পান্না হোসেন (৬০) নামের দুই জন ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছে এবার কলকাতায় বাংলাদেশিদের জন্য নিয়ে এল নতুন রসনার রেস্টুরেন্ট ও খাবারের হোটেল মসিকের ৩০ কিলোমিটার রাস্তায় সড়কবাতি উদ্বোধন করেছেন মেয়র মোংলার যৌনপল্লীর কর্মীরা এখন মানবেতর জীবনযাপন করছে পীরগঞ্জের কৃতি সন্তান নাজমুলের সপ্ন পুরন

সকাল হবে মোংলা পৌরসভার নির্বাচন

ভোরের ধ্বনি জেলা রিপোর্টার।।

রাত পোহালেই বাগেরহাটের মোংলা পোর্ট পৌরসভা নির্বাচন। প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে এই পৌরসভায় ভোট গ্রহণ করা হবে। উপজেলা নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) কেন্দ্রগুলোতে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠায় নির্বাচন কমিশন। আগামীকাল শনিবার সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ চলবে।

মোংলা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শেখ আব্দুর রহমান, বিএনপি-সমর্থিত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মো. জুলফিকার আলী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী বড়শী প্রতীকে মো. মোকছেদুল আলম এই তিন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১২ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রটি আরও জানায়, মোংলা পোর্ট পৌরসভা নির্বাচনে নয়টি ওয়ার্ডের জন্য ১২টি ভোটকেন্দ্র থাকবে। প্রথম শ্রেণির এ পৌরসভায় মোট ভোটার আছে ৩১ হাজার ৫২৮জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৬ হাজার ৬৮১ জন ও ১৪ হাজার ৮৪৭ জন নারী ভোটার রয়েছে। ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকছেন। এর মধ্যে পুলিশ, র‌্যাব, কোস্টগার্ড, আনসার ও বিজিবি সদস্যরা থাকবেন। এছাড়া নির্বাচনের আচরণবিধি প্রতিপালনসহ সার্বিক বিষয়ে ১২টি ভোটকেন্দ্রে ৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।

সর্বশেষ মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচন হয়েছিল ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারি। আন্দোলন-সংগ্রামের এক পর্যায়ে আইনী জটিলতা নিরসনপূর্বক ১০ বছর পর ইভিএম পদ্ধতিতে এবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে একজন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও একজন সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এর মধ্যে একজন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবং একজন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শেরপুরে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ছাত্রদের মাঝে পুনাকের খাদ্যসামগ্রী ও শীতবস্ত্র বিতরণ

সকাল হবে মোংলা পৌরসভার নির্বাচন

আপডেট টাইম : ০৬:৪০:৩৮ অপরাহ্ণ, শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারি ২০২১

ভোরের ধ্বনি জেলা রিপোর্টার।।

রাত পোহালেই বাগেরহাটের মোংলা পোর্ট পৌরসভা নির্বাচন। প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে এই পৌরসভায় ভোট গ্রহণ করা হবে। উপজেলা নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) কেন্দ্রগুলোতে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠায় নির্বাচন কমিশন। আগামীকাল শনিবার সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ চলবে।

মোংলা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শেখ আব্দুর রহমান, বিএনপি-সমর্থিত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মো. জুলফিকার আলী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী বড়শী প্রতীকে মো. মোকছেদুল আলম এই তিন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১২ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রটি আরও জানায়, মোংলা পোর্ট পৌরসভা নির্বাচনে নয়টি ওয়ার্ডের জন্য ১২টি ভোটকেন্দ্র থাকবে। প্রথম শ্রেণির এ পৌরসভায় মোট ভোটার আছে ৩১ হাজার ৫২৮জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৬ হাজার ৬৮১ জন ও ১৪ হাজার ৮৪৭ জন নারী ভোটার রয়েছে। ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকছেন। এর মধ্যে পুলিশ, র‌্যাব, কোস্টগার্ড, আনসার ও বিজিবি সদস্যরা থাকবেন। এছাড়া নির্বাচনের আচরণবিধি প্রতিপালনসহ সার্বিক বিষয়ে ১২টি ভোটকেন্দ্রে ৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।

সর্বশেষ মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচন হয়েছিল ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারি। আন্দোলন-সংগ্রামের এক পর্যায়ে আইনী জটিলতা নিরসনপূর্বক ১০ বছর পর ইভিএম পদ্ধতিতে এবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে একজন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও একজন সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এর মধ্যে একজন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবং একজন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা।