ঢাকা ০৫:১৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
পানি নিস্কাশনের রাস্তা বন্ধ করে পুকুর নির্মানের কারনে প্রায় শত বিঘা ফসলী জমি পানির নীচে ইবি শিক্ষার্থীকে গলাটিপে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় বেগম জাহানারা হান্নান উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩য় বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্টিত জামালপুরে ভেজাল কীটনাশকে বাজার সয়লাব, কৃষি শিল্প ধ্বংসের পাঁয়তারা মোংলায় সিবিএ নির্বাচন নিয়ে শ্রমিক-কর্মচারীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে নওগাঁ প্রাইভেট কার থেকে ৭২ কেজি গাঁজাসহ এক জন গ্রেপ্তার ভাষা সৈনিক মোস্তফা এম এ মতিন সাহিত্য পুরস্কার পেলেন হোসেনপুরের কবি শাহ আলম বিল্লাল গুজরাটের পোরবন্দরের জলসীমায় ২২০০০হাজার, কোটি টাকার মাদকদ্রব্য আটক করেছে নৌবাহিনী ও এনসিবি, গ্রেপ্তার পাঁচ পাক নাগরিক রায়পুরে অসামাজিক কার্যকলাপে আটক ৫ রাজধানীর ৪ হাসপাতালে র‍্যাবের অভিযান

বরগুনায় সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ১

বরগুনা প্রতিনিধি।।

বরগুনায় সাংবাদিক মুশফিক আরিফের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় মেহেদী হাসান তুফান এবং জিএম বাপ্পীসহ (২৭) অজ্ঞাত ১৫/২০ জনের নামে মামলা করা হয়েছে।

শনিবার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে বরগুনার কদমতলা থেকে ৩ নম্বর আসামি বাপ্পীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা যায়, গত ১১ নভেম্বর বরগুনা সদর উপজেলার ৯ নম্বর এম বালিয়াতলী ইউনিয়নের নির্বাচনের দায়িত্ব পালনকালে মাছরাঙা টেলিভিশনের বরগুনা প্রতিনিধি মুশফিক আরিফ তার প্রাইভেট কার চালিয়ে ওই ইউনিয়নের ডিএন কলেজের সামনে যাওয়া আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নাজমুল ইসলাম নাসির দলবল নিয়ে তার গাড়ির গতিরোধক করে । এরপর গাড়ি কুপিয়ে এবং পিটিয়ে ভাঙচুর করে সাংবাদিক মুশফিক আরিফকে মেরে আহত করে।

পরে ওই সাংবাদিককে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এ সময় আরিফের সঙ্গে থাকা ক্যামেরা ও ল্যাপটপ ছিনিয়ে নেয় নাসির ও তার দলের সন্ত্রাসীরা।

হামলার শিকার সাংবাদিক আরিফ সময়েরকন্ঠকে জানান, ওই দিন সকাল থেকেই নৌকার প্রার্থীর পক্ষ থেকে বিভিন্ন কেন্দ্র দখলের পায়তারার খবর পেয়ে বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করতে থাকি। পরিরখাল কেন্দ্রে যাওয়ার পথে ডিএন কলেজের সামনে গেলে নৌকার প্রার্থী নাজমুল ইসলাম নাসির নিজের দলবল নিয়ে আমার ওপর হামলা করে এবং গাড়ি ভাঙচুর করে।

এ ঘটনায় বরগুনা থানায় নাজমুল ইসলাম নাসিরকে ১ নম্বর আসামি, মেহেদী হাসান তুফান এবং জিএম বাপ্পীসহ অজ্ঞাত ১৫/২০ জনকে আসামি করে দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম তারিকুল ইসলাম সময়েরকন্ঠকে জানান, হামলা এবং গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা নেওয়া হয়েছে। একজনকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আরো খবর.......

জনপ্রিয় সংবাদ

পানি নিস্কাশনের রাস্তা বন্ধ করে পুকুর নির্মানের কারনে প্রায় শত বিঘা ফসলী জমি পানির নীচে

বরগুনায় সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ১

আপডেট টাইম : ০৪:৩৮:৫৮ পূর্বাহ্ণ, রবিবার, ১৪ নভেম্বর ২০২১

বরগুনা প্রতিনিধি।।

বরগুনায় সাংবাদিক মুশফিক আরিফের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় মেহেদী হাসান তুফান এবং জিএম বাপ্পীসহ (২৭) অজ্ঞাত ১৫/২০ জনের নামে মামলা করা হয়েছে।

শনিবার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে বরগুনার কদমতলা থেকে ৩ নম্বর আসামি বাপ্পীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা যায়, গত ১১ নভেম্বর বরগুনা সদর উপজেলার ৯ নম্বর এম বালিয়াতলী ইউনিয়নের নির্বাচনের দায়িত্ব পালনকালে মাছরাঙা টেলিভিশনের বরগুনা প্রতিনিধি মুশফিক আরিফ তার প্রাইভেট কার চালিয়ে ওই ইউনিয়নের ডিএন কলেজের সামনে যাওয়া আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নাজমুল ইসলাম নাসির দলবল নিয়ে তার গাড়ির গতিরোধক করে । এরপর গাড়ি কুপিয়ে এবং পিটিয়ে ভাঙচুর করে সাংবাদিক মুশফিক আরিফকে মেরে আহত করে।

পরে ওই সাংবাদিককে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এ সময় আরিফের সঙ্গে থাকা ক্যামেরা ও ল্যাপটপ ছিনিয়ে নেয় নাসির ও তার দলের সন্ত্রাসীরা।

হামলার শিকার সাংবাদিক আরিফ সময়েরকন্ঠকে জানান, ওই দিন সকাল থেকেই নৌকার প্রার্থীর পক্ষ থেকে বিভিন্ন কেন্দ্র দখলের পায়তারার খবর পেয়ে বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করতে থাকি। পরিরখাল কেন্দ্রে যাওয়ার পথে ডিএন কলেজের সামনে গেলে নৌকার প্রার্থী নাজমুল ইসলাম নাসির নিজের দলবল নিয়ে আমার ওপর হামলা করে এবং গাড়ি ভাঙচুর করে।

এ ঘটনায় বরগুনা থানায় নাজমুল ইসলাম নাসিরকে ১ নম্বর আসামি, মেহেদী হাসান তুফান এবং জিএম বাপ্পীসহ অজ্ঞাত ১৫/২০ জনকে আসামি করে দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম তারিকুল ইসলাম সময়েরকন্ঠকে জানান, হামলা এবং গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা নেওয়া হয়েছে। একজনকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।