ঢাকা ০৭:৩৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
মেট্রোরেল স্টেশনের ধ্বংসলীলা দেখে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী রুশ এমআই-২৮ সামরিক হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত মস্কোর দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত কালুগা অঞ্চলে আজ বৃহস্পতিবার হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয় কে হামলা চালাবে—বিএনপির নীল নকশা আগেই প্রস্তুত ছিল: কাদের ৪ দিন কোথায় কী অবস্থায় ছিলেন সমন্বয়ক আসিফ সারা দেশে হাজারো প্রাণ কেড়ে নেওয়ার ব্যাপারে সরকার কোনো কথা বলছে না: মির্জা ফখরুল সব ধরনের সহিংসতার হুমকি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র ডিএমপির তিন যুগ্ম-কমিশনারকে স্থান বদলি বাসে আগুন দিতে ৪ লাখ টাকায় চুক্তি, শ্রমিক লীগ নেতা গ্রেপ্তার রোকেয়া হলে ছাত্রলীগ নেত্রীদের হলছাড়া করল আন্দোলনকারীরা আন্দোলনকারীদের মৃত্যুর জন্য সরকারের পক্ষ থেকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে, ৩৩ নাগরিকের বিবৃতি বিবৃতিতে বলা হয়, দাবি আদায় করতে হয় জীবনের বিনিময়ে বা দমন করতে হয় হত্যা করে

এরদোগানের সঙ্গে কী আলোচনা হলো পাকিস্তান ও আজারবাইজান সরকার প্রধানের

  • আপডেট টাইম : ০৫:৩৫:৩৮ পূর্বাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪
  • / ১৭ ৫০০.০০০ বার পাঠক

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায় তাদের মধ্যে এই বৈঠক হয়েছে। যেখানে তিনি সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার রাষ্ট্রীয় নেতাদের ২৪তম শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিতে এসেছিলেন।

বুধবার প্রেসিডেন্ট এরদোগান যে হোটেলে অবস্থান করছিলেন, সেখানে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। রুদ্ধদ্বার ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে তিনি আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক সমস্যার পাশাপাশি নিজের দেশের মধ্যে সহযোগিতার ক্ষেত্র নিয়ে আলোচনা করেছেন।

বৈঠকে এরদোগান বলেন, তুরস্ক, আজারবাইজান এবং পাকিস্তান বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনেক যৌথ পদক্ষেপ নিতে পারে। যেটি তিন দেশের জন্যই বড় উপকার হবে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, যুদ্ধ, সংঘাত এবং উত্তেজনা বেষ্টিত এই অঞ্চলে একে অপরের সহযোগিতা উন্নয়নের ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারে।

তুরস্ক, আজারবাইজান এবং পাকিস্তান সামরিকসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়ে একমত হয়েছে। এর আগে তিন দেশ একসঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়া করে। কয়েক দশকের আর্মেনিয়ান দখলদারিত্ব থেকে কারাবাখকে মুক্ত করার অভিযানের সময় তুর্কি ও পাকিস্তান আজারবাইজানের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে।

ত্রিদেশীয় বৈঠকে সাংস্কৃতিক ও ঐতিহাসিক বন্ধন, পারস্পরিক শ্রদ্ধা ও আস্থার ভিত্তিতে তিন দেশের মধ্যে সহযোগিতা জোরদার করার ওপর জোর দেওয়া হয়। এ ছাড়া শান্তি, স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের জন্য তুরস্ক, আজারবাইজান এবং পাকিস্তানের ভূমিকার ওপর জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাকান ফিদান, জ্বালানি ও প্রাকৃতিক সম্পদমন্ত্রী আলপারসলান বায়রাকতার, ট্রেজারি ও অর্থমন্ত্রী মেহমেত সিমসেক, বাণিজ্যমন্ত্রী ওমের বোলাত, রাষ্ট্রপতির পররাষ্ট্র নীতি ও নিরাপত্তাবিষয়ক প্রধান উপদেষ্টা রাষ্ট্রদূত আকিফ চাগাতায়ে কিলিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া এরদোগান রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গেও বৈঠক করেছেন। দুই দেশের কৌশলগত সহযোগিতা জোরদার করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

আরো খবর.......

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

এরদোগানের সঙ্গে কী আলোচনা হলো পাকিস্তান ও আজারবাইজান সরকার প্রধানের

আপডেট টাইম : ০৫:৩৫:৩৮ পূর্বাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায় তাদের মধ্যে এই বৈঠক হয়েছে। যেখানে তিনি সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার রাষ্ট্রীয় নেতাদের ২৪তম শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিতে এসেছিলেন।

বুধবার প্রেসিডেন্ট এরদোগান যে হোটেলে অবস্থান করছিলেন, সেখানে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। রুদ্ধদ্বার ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে তিনি আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক সমস্যার পাশাপাশি নিজের দেশের মধ্যে সহযোগিতার ক্ষেত্র নিয়ে আলোচনা করেছেন।

বৈঠকে এরদোগান বলেন, তুরস্ক, আজারবাইজান এবং পাকিস্তান বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনেক যৌথ পদক্ষেপ নিতে পারে। যেটি তিন দেশের জন্যই বড় উপকার হবে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, যুদ্ধ, সংঘাত এবং উত্তেজনা বেষ্টিত এই অঞ্চলে একে অপরের সহযোগিতা উন্নয়নের ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারে।

তুরস্ক, আজারবাইজান এবং পাকিস্তান সামরিকসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়ে একমত হয়েছে। এর আগে তিন দেশ একসঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়া করে। কয়েক দশকের আর্মেনিয়ান দখলদারিত্ব থেকে কারাবাখকে মুক্ত করার অভিযানের সময় তুর্কি ও পাকিস্তান আজারবাইজানের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে।

ত্রিদেশীয় বৈঠকে সাংস্কৃতিক ও ঐতিহাসিক বন্ধন, পারস্পরিক শ্রদ্ধা ও আস্থার ভিত্তিতে তিন দেশের মধ্যে সহযোগিতা জোরদার করার ওপর জোর দেওয়া হয়। এ ছাড়া শান্তি, স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের জন্য তুরস্ক, আজারবাইজান এবং পাকিস্তানের ভূমিকার ওপর জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাকান ফিদান, জ্বালানি ও প্রাকৃতিক সম্পদমন্ত্রী আলপারসলান বায়রাকতার, ট্রেজারি ও অর্থমন্ত্রী মেহমেত সিমসেক, বাণিজ্যমন্ত্রী ওমের বোলাত, রাষ্ট্রপতির পররাষ্ট্র নীতি ও নিরাপত্তাবিষয়ক প্রধান উপদেষ্টা রাষ্ট্রদূত আকিফ চাগাতায়ে কিলিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া এরদোগান রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গেও বৈঠক করেছেন। দুই দেশের কৌশলগত সহযোগিতা জোরদার করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।