ঢাকা ০৫:৪৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::

গর্ভপাত ॥ বিষন্ন যুগলকে সবেতন ছুটি দেবে নিউজিল্যান্ড

আন্তর্জাতিক রিপোর্ট।।

কোনও কারণে গর্ভপাতের ঘটনা ঘটে গেলে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত দম্পতির জন্য তিন দিনের সবেতন ছুটির আইন করছে নিউজিল্যান্ড।

বুধবার দেশটির পার্লামেন্টে এ বিষয়ে একটি বিল অনুমোদন করেছে বলে নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে।

নিউজিল্যান্ডে এতদিন মৃতশিশুর জন্ম হলে সবেতন ছুটি দেওয়ার নিয়ম ছিল। ভ্রুণের বয়স ২০ সপ্তাহ বা তার বেশি সময় পার হলেই ওই নিয়ম প্রযোজ্য হত।

নতুন আইনে গর্ভকালের যে কোনো সময় যে কোনো দুর্ঘটনাজনিত কারণে কোনো দম্পতি তাদের অনাগত সন্তানকে হারালে এই সুবিধা দেওয়া হবে।

প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে আগামী সপ্তাহ থেকে এ আইন কার্যকর হবে।

ওই বিলের খসড়া করেছিলেন নিউ জিল্যান্ডের পার্লামেন্ট সদস্য গিনি অ্যান্ডারসন।

তিনি বলেন, “আমার মনে হয়, এটা একজন নারীকে সাহস যোগাবে, বিশেষ করে যখন তারা জানে যে শারীরিক ও মানসিকভাবে এই বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে তাদের সময় প্রয়োজন।”

অ্যান্ডারসন বলেন, নিউজিল্যান্ডই প্রথম দেশ, যারা এ আইন করল।

নিউ ইয়র্ক টাইমস লিখেছে, স্বেচ্ছায় ভ্রুণ বিসর্জন বা অ্যাবরশনের ক্ষেত্রে এ আইন কার্যকর হবে না। এর আগের বছর ‘অ্যাবরশন অপরাধ নয়’ জানিয়ে আইনি অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল নিউ জিল্যান্ডে।

দেশটির কলেজ অফ মিডওয়াইভসের তথ্য অনুযায়ী, প্রতিবছর নিউজিল্যান্ডে ৫ হাজার ৯০০ থেকে ১১ হাজার ৮০০ গর্ভপাত ও মৃতশিশু প্রসবের ঘটনা ঘটে। এর ৯৫ শতাংশের বেশি গর্ভপাতের ঘটনা ঘটে গর্ভকালের ১২ থেকে ১৪ সপ্তাহের মধ্যে।

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

পাকুন্দিয়ায় পুলিশের অভিজানে চোরাই মোটরসাইকেল সহ ১ জন আটক

গর্ভপাত ॥ বিষন্ন যুগলকে সবেতন ছুটি দেবে নিউজিল্যান্ড

আপডেট টাইম : ১০:৪৭:৪৩ পূর্বাহ্ণ, শুক্রবার, ২৬ মার্চ ২০২১

আন্তর্জাতিক রিপোর্ট।।

কোনও কারণে গর্ভপাতের ঘটনা ঘটে গেলে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত দম্পতির জন্য তিন দিনের সবেতন ছুটির আইন করছে নিউজিল্যান্ড।

বুধবার দেশটির পার্লামেন্টে এ বিষয়ে একটি বিল অনুমোদন করেছে বলে নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে।

নিউজিল্যান্ডে এতদিন মৃতশিশুর জন্ম হলে সবেতন ছুটি দেওয়ার নিয়ম ছিল। ভ্রুণের বয়স ২০ সপ্তাহ বা তার বেশি সময় পার হলেই ওই নিয়ম প্রযোজ্য হত।

নতুন আইনে গর্ভকালের যে কোনো সময় যে কোনো দুর্ঘটনাজনিত কারণে কোনো দম্পতি তাদের অনাগত সন্তানকে হারালে এই সুবিধা দেওয়া হবে।

প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে আগামী সপ্তাহ থেকে এ আইন কার্যকর হবে।

ওই বিলের খসড়া করেছিলেন নিউ জিল্যান্ডের পার্লামেন্ট সদস্য গিনি অ্যান্ডারসন।

তিনি বলেন, “আমার মনে হয়, এটা একজন নারীকে সাহস যোগাবে, বিশেষ করে যখন তারা জানে যে শারীরিক ও মানসিকভাবে এই বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে তাদের সময় প্রয়োজন।”

অ্যান্ডারসন বলেন, নিউজিল্যান্ডই প্রথম দেশ, যারা এ আইন করল।

নিউ ইয়র্ক টাইমস লিখেছে, স্বেচ্ছায় ভ্রুণ বিসর্জন বা অ্যাবরশনের ক্ষেত্রে এ আইন কার্যকর হবে না। এর আগের বছর ‘অ্যাবরশন অপরাধ নয়’ জানিয়ে আইনি অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল নিউ জিল্যান্ডে।

দেশটির কলেজ অফ মিডওয়াইভসের তথ্য অনুযায়ী, প্রতিবছর নিউজিল্যান্ডে ৫ হাজার ৯০০ থেকে ১১ হাজার ৮০০ গর্ভপাত ও মৃতশিশু প্রসবের ঘটনা ঘটে। এর ৯৫ শতাংশের বেশি গর্ভপাতের ঘটনা ঘটে গর্ভকালের ১২ থেকে ১৪ সপ্তাহের মধ্যে।