ঢাকা ১১:১৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ জুন ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
নান্দাইলে প্রতিবন্ধি নজরুলকে হুইলচেয়ার উপহার পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ইপিজেড থানা জাতীয় শ্রমিকলীগের উদগ্যে মোটরসাইকেল র‌্যালী ও মিষ্টি বিতরণ অনুষ্ঠিত আমার টাকায় আমার সেতু, বাংলাদেশ পদ্মা সেতু প্রতিপাদ্য কে সমনে রেখে মেহেন্দিগঞ্জ থানা পুলিশ বাহিনীর আয়োজন নান্দাইলে পদ্মাসেতু উদ্বোধন উপলক্ষে উপজেলা আ’লীগের আনন্দ র্যালী অনুষ্ঠিত বিসিএস ডাক্তারের বিরুদ্ধে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ দ্বিতীয় স্ত্রীর এক নজরে পদ্মা সেতু নাম : পদ্মা সেতু, আছ সফল দক্ষিণ অঞ্চলের জনগণ পদ্ম সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে বিরামপুরে আনন্দ র‍্যালী পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে মোংলা উপজেলা প্রশাসনের আনন্দ মিছিল পাথরঘাটার রায়হানপুরে গভীর রাতে ডাকাতে হামলা, আহত -৪ পদ্মা সেতু পারাপারে প্রথম টোল প্রদান করলেন সেতুর স্থপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বন্যার কারনে নাসিরনগরে ২০ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষনা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলায় পানিবন্দি হয়ে পড়ায় ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়।মঙ্গলবার (২১ জুন) এসব প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

জানা গেছে, নাসিরনগর উপজেলায় গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি ও চারদিন ধরে ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানি আসা অব্যাহত রয়েছে। রোববার রাতে পাহাড়ি পানির প্রবল তোড়ে উপজেলার কুন্ডা ও গোকর্ণ ইউনিয়নের কুন্ডা-গোকর্ণ সড়কের বেড়িবাঁধ এলাকার সেতুর দুই পিলার সরে যাওয়ায় সেতু মাঝখানের অংশ দেবে গেছে। উপজেলার শ্রীঘর আশ্রয়ণ প্রকল্পে হাঁটুসমানসহ প্রকল্পের ঘরের মেঝসমান পানি চলে এসেছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, পানিতে উপজেলার ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তা,বন্ধ হয়ে বিদ্যালয়ের আঙ্গিনা তলিয়ে গেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে উপজেলার ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। তাই ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি উপজেলার গোয়ালনগর ইউনিয়নের ১২টি ও চাতলপাড় ইউনিয়নের ১০-১২টি বিদ্যালয়ে যেকোনো মুহূর্তে পানি ঢুকে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বন্যাকবলিত হয়ে পড়ায় শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা বিদ্যালয়গুলো হলো-উপজেলার আন্দ্রাবহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইটনা পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্ব বালিখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কান্দিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর ধানতলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রোস্তমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উড়িয়াইন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইছাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গঙ্গানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ভোলাউক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফকিরদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, টেকানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নাসিরপুর পশ্চিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শ্রীঘর দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফান্দাউক ঋষিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চাপরতলা পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চাপরতলা পশ্চিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পতৈর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চান্দেরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও গোকর্ণ পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

উড়িয়াইন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরিব মিয়া বলেন, বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকসহ ৪জন শিক্ষক ও ২৩০জন শিক্ষার্থী রয়েছে। বিদ্যালয় বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে। বিদ্যালয়ের মাঠে হাঁটুপানি ও চারপাশে পানি। বিদ্যালয়ের বারান্দায় পানি চলে এসেছে। কেউই বিদ্যালয়ে আসতে পারছে না।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ ইকবাল মিয়াপানিবন্দি হয়ে পড়ায় ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করার কথা স্বীকার করেছে।

জাতীয় আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

নান্দাইলে প্রতিবন্ধি নজরুলকে হুইলচেয়ার উপহার

বন্যার কারনে নাসিরনগরে ২০ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষনা

আপডেট টাইম : ১২:৪২:৩২ অপরাহ্ণ, মঙ্গলবার, ২১ জুন ২০২২

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলায় পানিবন্দি হয়ে পড়ায় ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়।মঙ্গলবার (২১ জুন) এসব প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

জানা গেছে, নাসিরনগর উপজেলায় গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি ও চারদিন ধরে ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানি আসা অব্যাহত রয়েছে। রোববার রাতে পাহাড়ি পানির প্রবল তোড়ে উপজেলার কুন্ডা ও গোকর্ণ ইউনিয়নের কুন্ডা-গোকর্ণ সড়কের বেড়িবাঁধ এলাকার সেতুর দুই পিলার সরে যাওয়ায় সেতু মাঝখানের অংশ দেবে গেছে। উপজেলার শ্রীঘর আশ্রয়ণ প্রকল্পে হাঁটুসমানসহ প্রকল্পের ঘরের মেঝসমান পানি চলে এসেছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, পানিতে উপজেলার ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তা,বন্ধ হয়ে বিদ্যালয়ের আঙ্গিনা তলিয়ে গেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে উপজেলার ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। তাই ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি উপজেলার গোয়ালনগর ইউনিয়নের ১২টি ও চাতলপাড় ইউনিয়নের ১০-১২টি বিদ্যালয়ে যেকোনো মুহূর্তে পানি ঢুকে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বন্যাকবলিত হয়ে পড়ায় শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা বিদ্যালয়গুলো হলো-উপজেলার আন্দ্রাবহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইটনা পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্ব বালিখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কান্দিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর ধানতলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রোস্তমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উড়িয়াইন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইছাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গঙ্গানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ভোলাউক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফকিরদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, টেকানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নাসিরপুর পশ্চিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শ্রীঘর দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফান্দাউক ঋষিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চাপরতলা পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চাপরতলা পশ্চিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পতৈর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চান্দেরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও গোকর্ণ পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

উড়িয়াইন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরিব মিয়া বলেন, বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকসহ ৪জন শিক্ষক ও ২৩০জন শিক্ষার্থী রয়েছে। বিদ্যালয় বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে। বিদ্যালয়ের মাঠে হাঁটুপানি ও চারপাশে পানি। বিদ্যালয়ের বারান্দায় পানি চলে এসেছে। কেউই বিদ্যালয়ে আসতে পারছে না।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ ইকবাল মিয়াপানিবন্দি হয়ে পড়ায় ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করার কথা স্বীকার করেছে।