ঢাকা ১১:৩২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ জুন ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
নান্দাইলে প্রতিবন্ধি নজরুলকে হুইলচেয়ার উপহার পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ইপিজেড থানা জাতীয় শ্রমিকলীগের উদগ্যে মোটরসাইকেল র‌্যালী ও মিষ্টি বিতরণ অনুষ্ঠিত আমার টাকায় আমার সেতু, বাংলাদেশ পদ্মা সেতু প্রতিপাদ্য কে সমনে রেখে মেহেন্দিগঞ্জ থানা পুলিশ বাহিনীর আয়োজন নান্দাইলে পদ্মাসেতু উদ্বোধন উপলক্ষে উপজেলা আ’লীগের আনন্দ র্যালী অনুষ্ঠিত বিসিএস ডাক্তারের বিরুদ্ধে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ দ্বিতীয় স্ত্রীর এক নজরে পদ্মা সেতু নাম : পদ্মা সেতু, আছ সফল দক্ষিণ অঞ্চলের জনগণ পদ্ম সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে বিরামপুরে আনন্দ র‍্যালী পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে মোংলা উপজেলা প্রশাসনের আনন্দ মিছিল পাথরঘাটার রায়হানপুরে গভীর রাতে ডাকাতে হামলা, আহত -৪ পদ্মা সেতু পারাপারে প্রথম টোল প্রদান করলেন সেতুর স্থপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না ক্যান্সারে আক্রান্ত দিনমজুর আবুল কাসেম

সময়ের অনুসন্ধানের রিপোর্টে।।

দিনমজুরি করে মোটামুটি ভালোই চলছিলো পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের মিরপুর গ্রামের বাসিন্দা ৬ সন্তানের জনক আবুল কাসেম (৫৫)-এর সংসার। এরমধ্যে হঠাৎ করেই কালো মেঘের ছায়া নেমে আসে তার সংসারে, জীবনে। প্রস্রাবের রাস্তায় সমস্যা হয়ে অসুস্থ হয়ে পরেন তিনি। পরে আত্মীয় স্বজনের সাহায্য-সহযোগিতায় বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়ে কিছুদিন চিকিৎসা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ডাক্তাররা জানান তার মুত্রথলিতে ক্যান্সার হয়েছে। তারা পরামর্শ দেন ঢাকা মহাখালী ক্যান্সার হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিতে। তার চিকিৎসার জন্য প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকার প্রয়োজন। কিন্তু অসহায় এ পরিবারের পক্ষে এত টাকা জোগাড় করা কোনো ভাবেই সম্ভব নয়।

এদিকে চিকিৎসাসেবা নিতে না পারায় দিন দিন তার স্বাস্থ্যের অবস্থা খারাপ হয়ে যাচ্ছে। চিকিৎসকরা বলেছেন, যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসা নিতে। যদি শীঘ্রই চিকিৎসার ব্যবস্থা করা না হয়, তাহলে তাকে বাঁচানো সম্ভব হবে না। কিন্তু অর্থের অভাবে চিকিৎসা নিতে পারছেন না তিনি। টাকা-পয়সা জোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছে তার পরিবার।

আবুল কাসেম বলেন, ‘আমি একজন দিনমজুর। দিনমজুরি করে ৬ ছেলে-মেয়ে নিয়ে কোনো রকম দিনাতিপাত করতাম। একমাত্র মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি এবং বড় ও মেজো ছেলেকে বিয়ে করালে তারা আলাদা সংসার পেতেছে। তারাও যখন যে কাজ পায় তা করে। নিজেদের সংসারের খরচ বহন করে আমাকে তেমন সহযোগিতা করতে পারে না। এদিকে আমার অন্য ৩ ছেলে আমার সাথে থাকলেও তাদের বয়স কম হওয়ায় তারাও তেমন কাজ করতে পারে না। এরমধ্যে সেজো ছেলেকে কষ্ট হওয়া সত্ত্বেও এসএসসি পাস করিয়েছি। বর্তমানে আমি অসুস্থ হওয়ায় তার লেখাপড়াও বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এখন আমার সংসার কাটছে অর্ধাহারে-অনাহারে। চিকিৎসার খরচ জোগাড় করবো কীভাবে?’

তিনি কান্নাভেজা চোখে বলেন, ‘এভাবে হঠাৎ করে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুপথযাত্রী হবো তা ভাবতেও পারিনি। আমার খুব বাঁচতে ইচ্ছে করছে। হয়তো ভালোভাবে চিকিৎসা নিলে আল্লাহ আমাকে বাঁচাতে পারেন। বর্তমানে প্রস্রাবের রাস্তায় ক্যাথেটার লাগিয়ে প্রস্রাব করতে হচ্ছে। কয়েকদিন পর পর আবার পাল্টানো লাগে। যা খুবই কষ্টদায়ক। তাই আমার ও আমার পরিবারের কথা ভেবে যদি বিত্তবানরা এগিয়ে আসেন তাহলে হয়তো চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হতে পারবো। তাই যে যেভাবে পারেন আমাকে সহযোগিতা করুন। আপনাদের আর্থিক সাহায্যে আল্লাহ তায়ালা আমাকে সুস্থ করে তুললে আপনাদের কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকবো।’

ক্যান্সারে আক্রান্ত দিনমজুর আবুল কাসেম জীবনের এই অন্তিমলগ্নেও বাঁচার স্বপ্ন দেখেন, বাঁচতে চান। তিনি তার চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে করজোড়ে আর্থিক সাহায্য কামনা করেছেন।

সাহায্য পাঠানোর জন্য যোগাযোগ করুন-
সাইফুল ইসলাম মির (রোগীর সেজো ছেলে)
মোবাঃ 01645548399 (বিকাশ পার্সোনাল), 01797230913 (নগদ পার্সোনাল)
মিরপুর, ডালবুগঞ্জ, কলাপাড়া, পটুয়াখালী।

জাতীয় আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

নান্দাইলে প্রতিবন্ধি নজরুলকে হুইলচেয়ার উপহার

অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না ক্যান্সারে আক্রান্ত দিনমজুর আবুল কাসেম

আপডেট টাইম : ০৬:৩৩:৫৭ পূর্বাহ্ণ, মঙ্গলবার, ২৬ এপ্রিল ২০২২

সময়ের অনুসন্ধানের রিপোর্টে।।

দিনমজুরি করে মোটামুটি ভালোই চলছিলো পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের মিরপুর গ্রামের বাসিন্দা ৬ সন্তানের জনক আবুল কাসেম (৫৫)-এর সংসার। এরমধ্যে হঠাৎ করেই কালো মেঘের ছায়া নেমে আসে তার সংসারে, জীবনে। প্রস্রাবের রাস্তায় সমস্যা হয়ে অসুস্থ হয়ে পরেন তিনি। পরে আত্মীয় স্বজনের সাহায্য-সহযোগিতায় বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়ে কিছুদিন চিকিৎসা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ডাক্তাররা জানান তার মুত্রথলিতে ক্যান্সার হয়েছে। তারা পরামর্শ দেন ঢাকা মহাখালী ক্যান্সার হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিতে। তার চিকিৎসার জন্য প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকার প্রয়োজন। কিন্তু অসহায় এ পরিবারের পক্ষে এত টাকা জোগাড় করা কোনো ভাবেই সম্ভব নয়।

এদিকে চিকিৎসাসেবা নিতে না পারায় দিন দিন তার স্বাস্থ্যের অবস্থা খারাপ হয়ে যাচ্ছে। চিকিৎসকরা বলেছেন, যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসা নিতে। যদি শীঘ্রই চিকিৎসার ব্যবস্থা করা না হয়, তাহলে তাকে বাঁচানো সম্ভব হবে না। কিন্তু অর্থের অভাবে চিকিৎসা নিতে পারছেন না তিনি। টাকা-পয়সা জোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছে তার পরিবার।

আবুল কাসেম বলেন, ‘আমি একজন দিনমজুর। দিনমজুরি করে ৬ ছেলে-মেয়ে নিয়ে কোনো রকম দিনাতিপাত করতাম। একমাত্র মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি এবং বড় ও মেজো ছেলেকে বিয়ে করালে তারা আলাদা সংসার পেতেছে। তারাও যখন যে কাজ পায় তা করে। নিজেদের সংসারের খরচ বহন করে আমাকে তেমন সহযোগিতা করতে পারে না। এদিকে আমার অন্য ৩ ছেলে আমার সাথে থাকলেও তাদের বয়স কম হওয়ায় তারাও তেমন কাজ করতে পারে না। এরমধ্যে সেজো ছেলেকে কষ্ট হওয়া সত্ত্বেও এসএসসি পাস করিয়েছি। বর্তমানে আমি অসুস্থ হওয়ায় তার লেখাপড়াও বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এখন আমার সংসার কাটছে অর্ধাহারে-অনাহারে। চিকিৎসার খরচ জোগাড় করবো কীভাবে?’

তিনি কান্নাভেজা চোখে বলেন, ‘এভাবে হঠাৎ করে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুপথযাত্রী হবো তা ভাবতেও পারিনি। আমার খুব বাঁচতে ইচ্ছে করছে। হয়তো ভালোভাবে চিকিৎসা নিলে আল্লাহ আমাকে বাঁচাতে পারেন। বর্তমানে প্রস্রাবের রাস্তায় ক্যাথেটার লাগিয়ে প্রস্রাব করতে হচ্ছে। কয়েকদিন পর পর আবার পাল্টানো লাগে। যা খুবই কষ্টদায়ক। তাই আমার ও আমার পরিবারের কথা ভেবে যদি বিত্তবানরা এগিয়ে আসেন তাহলে হয়তো চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হতে পারবো। তাই যে যেভাবে পারেন আমাকে সহযোগিতা করুন। আপনাদের আর্থিক সাহায্যে আল্লাহ তায়ালা আমাকে সুস্থ করে তুললে আপনাদের কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকবো।’

ক্যান্সারে আক্রান্ত দিনমজুর আবুল কাসেম জীবনের এই অন্তিমলগ্নেও বাঁচার স্বপ্ন দেখেন, বাঁচতে চান। তিনি তার চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে করজোড়ে আর্থিক সাহায্য কামনা করেছেন।

সাহায্য পাঠানোর জন্য যোগাযোগ করুন-
সাইফুল ইসলাম মির (রোগীর সেজো ছেলে)
মোবাঃ 01645548399 (বিকাশ পার্সোনাল), 01797230913 (নগদ পার্সোনাল)
মিরপুর, ডালবুগঞ্জ, কলাপাড়া, পটুয়াখালী।