ঢাকা ০৫:৪৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
মোংলায় দারুল আমীন নূরানী মাদ্রাসার আয়োজনে ১ম বার্ষিক ক্রীড়া সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত ময়মনসিংহ ডিবি পুলিশের অভিযানে ২৫০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ গ্রেফতার-০১ ফুলপুরে ৮ বোতল বিদেশি মদ সহ এক মাদক কারবারী আটক নওগাঁর মহাদেবপুর এ ২০০ বছরের পুরাতন মসজিদের সন্ধান মিলেছে জামালপুরের রানীগঞ্জ বাজার ঐতিহ্য হারিয়ে ফেলেছে পানি নিস্কাশনের রাস্তা বন্ধ করে পুকুর নির্মানের কারনে প্রায় শত বিঘা ফসলী জমি পানির নীচে ইবি শিক্ষার্থীকে গলাটিপে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় বেগম জাহানারা হান্নান উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩য় বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্টিত জামালপুরে ভেজাল কীটনাশকে বাজার সয়লাব, কৃষি শিল্প ধ্বংসের পাঁয়তারা মোংলায় সিবিএ নির্বাচন নিয়ে শ্রমিক-কর্মচারীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে

ধামরাইয়ে এসএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা

ধামরাই প্রতিনিধিঃ

ঢাকার ধামরাইয়ে এসএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় মো. রাশেদুল ইসলাম টিটু (১৭) নামে এক পরীক্ষার্থী নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

ধামরাই থানার এসআই মো. সাইদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ১২টার সময় বড়চন্দ্রাইল গ্রামে তার নিজ ঘরে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

রাশেদুল ইসলাম টিটু ধামরাই হার্ডিঞ্জ সরকারি স্কুল এন্ড কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ছিল। নিহত রাশেদুলের বাড়ি ধামরাই কুল্লা ইউনিয়নের বড়চন্দ্রাইল গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে।

এলাকা ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, এসএসসি পরীক্ষার পদার্থ বিজ্ঞানে ফেল করায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

এই বিষয়ে ক্লাসমেট মো. আকাশ বলেন, রাশেদুল আর আমি একসাথে পড়াশোনা করতাম, আজ সকালে পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর দেখে পদার্থ বিজ্ঞানে ফেল করেছে। এর পর সে চুপিসারে ঘরে গিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

চাচা দেলাল উদ্দিন বলেন, আমি ও রাশেদুলের আব্বা ইসলামপুর দোকান করি। বাড়িতে শুধু রাশেদুলের মা ও ছোট বোন জান্নাতুল থাকে। বেলা ১২টার সময় রাশেদুলের মা ছোট মেয়ে জান্নাতুলকে ঘরে রেখে কিস্তি দিতে যায়। এই সময়ে ঘরের ভিতরে দরজা আটকিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

রাশেদুলের ছোট বোন জান্নাতুল আক্তার বলেন, ভাই পাশের ঘর আটকিয়ে কী জানি করে। পরে আমি ভাইকে ডাকি কিন্তু ভিতর থেকে কোন সাড়া-শব্ধ না পেয়ে আমার ফুফুকে ডাক দেই। পরে ফুফু এসে ভাইয়াকে ডাকে কোন সাড়া-শদ্ধ না পেয়ে ঘরের দরজা ভেঙে ঘরের ভিতরে ঢুকে দেখি রাশেদুল গলায় ফাঁস দিয়েছে। তখন তাড়াতাড়ি করে রাশেদুলকে নামিয়ে ধামরাই সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এই বিষয়ে ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. সাইদুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে দেখি রাশেদুল মৃত অবস্থায় পড়ে আছে। লাশের সুরতহাল করা হয়েছে। আইনগত পক্রিয়া চলছে।

আরো খবর.......

জনপ্রিয় সংবাদ

মোংলায় দারুল আমীন নূরানী মাদ্রাসার আয়োজনে ১ম বার্ষিক ক্রীড়া সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

ধামরাইয়ে এসএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা

আপডেট টাইম : ০২:১৬:২১ অপরাহ্ণ, শনিবার, ১ জানুয়ারি ২০২২

ধামরাই প্রতিনিধিঃ

ঢাকার ধামরাইয়ে এসএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় মো. রাশেদুল ইসলাম টিটু (১৭) নামে এক পরীক্ষার্থী নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

ধামরাই থানার এসআই মো. সাইদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ১২টার সময় বড়চন্দ্রাইল গ্রামে তার নিজ ঘরে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

রাশেদুল ইসলাম টিটু ধামরাই হার্ডিঞ্জ সরকারি স্কুল এন্ড কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ছিল। নিহত রাশেদুলের বাড়ি ধামরাই কুল্লা ইউনিয়নের বড়চন্দ্রাইল গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে।

এলাকা ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, এসএসসি পরীক্ষার পদার্থ বিজ্ঞানে ফেল করায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

এই বিষয়ে ক্লাসমেট মো. আকাশ বলেন, রাশেদুল আর আমি একসাথে পড়াশোনা করতাম, আজ সকালে পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর দেখে পদার্থ বিজ্ঞানে ফেল করেছে। এর পর সে চুপিসারে ঘরে গিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

চাচা দেলাল উদ্দিন বলেন, আমি ও রাশেদুলের আব্বা ইসলামপুর দোকান করি। বাড়িতে শুধু রাশেদুলের মা ও ছোট বোন জান্নাতুল থাকে। বেলা ১২টার সময় রাশেদুলের মা ছোট মেয়ে জান্নাতুলকে ঘরে রেখে কিস্তি দিতে যায়। এই সময়ে ঘরের ভিতরে দরজা আটকিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

রাশেদুলের ছোট বোন জান্নাতুল আক্তার বলেন, ভাই পাশের ঘর আটকিয়ে কী জানি করে। পরে আমি ভাইকে ডাকি কিন্তু ভিতর থেকে কোন সাড়া-শব্ধ না পেয়ে আমার ফুফুকে ডাক দেই। পরে ফুফু এসে ভাইয়াকে ডাকে কোন সাড়া-শদ্ধ না পেয়ে ঘরের দরজা ভেঙে ঘরের ভিতরে ঢুকে দেখি রাশেদুল গলায় ফাঁস দিয়েছে। তখন তাড়াতাড়ি করে রাশেদুলকে নামিয়ে ধামরাই সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এই বিষয়ে ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. সাইদুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে দেখি রাশেদুল মৃত অবস্থায় পড়ে আছে। লাশের সুরতহাল করা হয়েছে। আইনগত পক্রিয়া চলছে।