ঢাকা ০২:৩৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
ইসরাইলের বাধা, কুরবানি দিতে পারেননি গাজাবাসীর অনেকেই দলীয় নেতাদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করলেন প্রধানমন্ত্রী কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে মালগাড়ির ধাক্কা, নিহত ৫ জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাতে অংশ নেন হাজারো তাসলিমা স্ত্রীর বিরুদ্ধে লিঙ্গ কাটার অভিযোগে সাংবাদিক সম্মেলন ঈদ উপলক্ষ্যে ঘরমুখী মানুষ ঝুঁকি নিয়ে পিকআপ ট্রাক ও বাসের ছাদে ঢাকা মহানগর পুলিশের দুই কর্মকর্তা বদলি গতকাল শুক্রবার বিকেল চারটায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন আহমেদের গাড়ি্ বহরে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে বিএমপি কাউনিয়া থানার অভিযানে ০৫ কেজি গাঁজাসহ আটক ০১ জন লাব্বাঈক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক’এই ধনীতে প্রকম্পিত আরাফাতের ময়দান

সারাদেশে চরম বিপর্যয়ের মধ্যে ইট ভাটা মালিকেরা 

  • সময়ের কন্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : ১১:৫২:১৪ পূর্বাহ্ণ, শনিবার, ২ জানুয়ারি ২০২১
  • ২৭৪ ০.০০০ বার পাঠক

বিশেষ প্রতিনিধি  মোঃ নজরুল  ইসলাম ।

হটাৎ করে কয়লার দাম সিন্ডিকেটে বৃদ্ধি হওয়া এবং শ্রমিকদের খরচা ও নানা বিবিধি খরচ দিগুন হওয়ায়,হতাশায় ভেঙে পড়েছেন ইট ভাটা মালিকেরা।ইট তৈরি মুল্য দ্বিগুন হওয়ায় পাচ্ছেন না সঠিক মুল্য।এমনি করে লোকসানের দাবানলে জ্বলে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে ইট ভাটা মালিকেরা,অপরদিকে ঘুর্নিপাকের মধ্যে পড়ে হতাশ হয়ে গেছেন তারা,ক্ষতিপূরণ ও সংকট কাটিয়ে উঠতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।বিগত কয়েক বছরের লোকসানের ঘানি টানতে টানতে হিমসিম খেয়ে যাচ্ছেন।অনেকেই মহা আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে,একএক সময় একএক নিয়ম এসে ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিচ্ছেন মনের আশা-আকাঙ্ক্ষা গুলো,তবুও শেষ সম্বল নিয়ে,এবং চড়া সুদে লোন নিয়ে রিক্স নিয়ে শুরু করেছেন কার্যক্রম।বাংলা মাসের আশ্বিনের শেষ কার্তিকের প্রথমে শুরু হয়ে যায় ইট তৈরির কার্যক্রম।ইট তৈরি করতে শ্রমিক আনতে হয় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে। আর শ্রমিক আনতে তাদের সরদারের মাধ্যমে দাদন নামক দিতে লক্ষ লক্ষ টাকা। টাকা নিয়ে অনেক সরদার ভাটায় ওঠে আবার কেউ একেবারেই ওঠেনা।অনেকেই উঠে অন্নত্র পলায়ন করে।এতে করে ভাটা মালিকেরা পড়ে জায় ভিষন বিপাকে।অপর দিকে কুয়াশার থাবায় ও গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি বৈরি আবহাওয়ায়।কাঁচা ইট ধসে পড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়।ইট তৈরির ঐ স্পট গুলো ইট তৈরীর জন্য উপযোগী করে গড়ে তুলতে দ্বিগুণ খরচ করতে হয়।সব কিছু মিলিয়ে সরকারের জাতীয় প্রগ্রাম, কন্যাদায় গ্রস্থ, অসুস্থ রুগি, প্রতিবন্ধী,মসজিদ,মাদরাসা, মন্দির সকল বিষয়ে, ইট ভাটা মালিকদের অবদান দেখাজায়।

সিন্ডিকেটে কয়লার দাম বৃদ্ধি হওয়ায় পড়তে হয় বিপাকে।অনেক ইটভাটা প্রাথমিক ভাবে চালু হলেও বাঁধা দেওয়া হয়না তাদের।প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাঝ পথে,নানা অনিয়ম দেখিয়ে জরিমানা করেন মোটা অংকের টাকা।সকল বিষয়ে সংকট কাটিয়ে উঠেও উঠতে পারছেননা তারা।সরকারের সহযোগীতা না পেয়েও বিপাকে তারা,ব্যাংক লোন অনুমোদন দিলে তারা চিরকৃতজ্ঞ থাকবেন বলে মন্তব্য করেন।বিগত বছরগুলোতে আশানুরূপ ইট বিক্রয় না হওয়ায় ইটখোলা গুলোতে ইটের পাহাড়ে পরিনত হয়েছেন।ইট ভাটা মালীক মোশারফ হোসেন মির্জাপুর R R B ভাটা দরবারিয়া সোহেল মানিকগন্জ কাদির শিকদার চিতেশ্বরী মির্জাপুর ও AMNE মানিকগন্জ BRC নাগরা MOHID কোটালি ইউনিয়ন একতা মির কাশেম GBC মানিকগন্জ ZAB সোনাডাঙা MVM বাঘুলি BBL আটিপাড়া FAHAD বাঘুলি সোনাতলা GBC  পশ্চিম গোবিন্দল Mi B বলধারা MRC মানিক দহ MIR ব্রিক্স HSB  গুলাই ডাঙ্গা AAB গাড়াদিয়া AMCO জামির্তা RONI সানাইল KBC আবুল কাশেম দ্বিমুখা KANG আটিপাড়া মুজিবর ধামরাই+ নাগরপুর হেলাল দেওয়ান বাশতৈল MBC ধামরাই MBB বিক্স ধামরাই  আতাহার আলী SBC রবিউল করিম আটিগ্রাম মানিকগন্জ  বলেন

ইট ভাটা মালিকেরা সংকট কাটিয়ে উঠে মানবেতর জীবনযাপনের হাত থেকে রক্ষা পেতে সরকারের সহযোগিতা কামনা করি

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ইসরাইলের বাধা, কুরবানি দিতে পারেননি গাজাবাসীর অনেকেই

সারাদেশে চরম বিপর্যয়ের মধ্যে ইট ভাটা মালিকেরা 

আপডেট টাইম : ১১:৫২:১৪ পূর্বাহ্ণ, শনিবার, ২ জানুয়ারি ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধি  মোঃ নজরুল  ইসলাম ।

হটাৎ করে কয়লার দাম সিন্ডিকেটে বৃদ্ধি হওয়া এবং শ্রমিকদের খরচা ও নানা বিবিধি খরচ দিগুন হওয়ায়,হতাশায় ভেঙে পড়েছেন ইট ভাটা মালিকেরা।ইট তৈরি মুল্য দ্বিগুন হওয়ায় পাচ্ছেন না সঠিক মুল্য।এমনি করে লোকসানের দাবানলে জ্বলে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে ইট ভাটা মালিকেরা,অপরদিকে ঘুর্নিপাকের মধ্যে পড়ে হতাশ হয়ে গেছেন তারা,ক্ষতিপূরণ ও সংকট কাটিয়ে উঠতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।বিগত কয়েক বছরের লোকসানের ঘানি টানতে টানতে হিমসিম খেয়ে যাচ্ছেন।অনেকেই মহা আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে,একএক সময় একএক নিয়ম এসে ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিচ্ছেন মনের আশা-আকাঙ্ক্ষা গুলো,তবুও শেষ সম্বল নিয়ে,এবং চড়া সুদে লোন নিয়ে রিক্স নিয়ে শুরু করেছেন কার্যক্রম।বাংলা মাসের আশ্বিনের শেষ কার্তিকের প্রথমে শুরু হয়ে যায় ইট তৈরির কার্যক্রম।ইট তৈরি করতে শ্রমিক আনতে হয় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে। আর শ্রমিক আনতে তাদের সরদারের মাধ্যমে দাদন নামক দিতে লক্ষ লক্ষ টাকা। টাকা নিয়ে অনেক সরদার ভাটায় ওঠে আবার কেউ একেবারেই ওঠেনা।অনেকেই উঠে অন্নত্র পলায়ন করে।এতে করে ভাটা মালিকেরা পড়ে জায় ভিষন বিপাকে।অপর দিকে কুয়াশার থাবায় ও গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি বৈরি আবহাওয়ায়।কাঁচা ইট ধসে পড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়।ইট তৈরির ঐ স্পট গুলো ইট তৈরীর জন্য উপযোগী করে গড়ে তুলতে দ্বিগুণ খরচ করতে হয়।সব কিছু মিলিয়ে সরকারের জাতীয় প্রগ্রাম, কন্যাদায় গ্রস্থ, অসুস্থ রুগি, প্রতিবন্ধী,মসজিদ,মাদরাসা, মন্দির সকল বিষয়ে, ইট ভাটা মালিকদের অবদান দেখাজায়।

সিন্ডিকেটে কয়লার দাম বৃদ্ধি হওয়ায় পড়তে হয় বিপাকে।অনেক ইটভাটা প্রাথমিক ভাবে চালু হলেও বাঁধা দেওয়া হয়না তাদের।প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাঝ পথে,নানা অনিয়ম দেখিয়ে জরিমানা করেন মোটা অংকের টাকা।সকল বিষয়ে সংকট কাটিয়ে উঠেও উঠতে পারছেননা তারা।সরকারের সহযোগীতা না পেয়েও বিপাকে তারা,ব্যাংক লোন অনুমোদন দিলে তারা চিরকৃতজ্ঞ থাকবেন বলে মন্তব্য করেন।বিগত বছরগুলোতে আশানুরূপ ইট বিক্রয় না হওয়ায় ইটখোলা গুলোতে ইটের পাহাড়ে পরিনত হয়েছেন।ইট ভাটা মালীক মোশারফ হোসেন মির্জাপুর R R B ভাটা দরবারিয়া সোহেল মানিকগন্জ কাদির শিকদার চিতেশ্বরী মির্জাপুর ও AMNE মানিকগন্জ BRC নাগরা MOHID কোটালি ইউনিয়ন একতা মির কাশেম GBC মানিকগন্জ ZAB সোনাডাঙা MVM বাঘুলি BBL আটিপাড়া FAHAD বাঘুলি সোনাতলা GBC  পশ্চিম গোবিন্দল Mi B বলধারা MRC মানিক দহ MIR ব্রিক্স HSB  গুলাই ডাঙ্গা AAB গাড়াদিয়া AMCO জামির্তা RONI সানাইল KBC আবুল কাশেম দ্বিমুখা KANG আটিপাড়া মুজিবর ধামরাই+ নাগরপুর হেলাল দেওয়ান বাশতৈল MBC ধামরাই MBB বিক্স ধামরাই  আতাহার আলী SBC রবিউল করিম আটিগ্রাম মানিকগন্জ  বলেন

ইট ভাটা মালিকেরা সংকট কাটিয়ে উঠে মানবেতর জীবনযাপনের হাত থেকে রক্ষা পেতে সরকারের সহযোগিতা কামনা করি