ঢাকা ০৫:৪২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিলের আদেশ বহাল ট্রাম্পকে গুলি করা ব্যক্তির সম্পর্কে যা জানাল রয়টার্স সালমানের হাত ধরলেন ঐশ্বরিয়া, সম্ভব হলো যেভাবে গণপদযাত্রায় অংশ নিতে জড়ো হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা বঙ্গভবন অবস্থান হবে সরাইলে ১০ম বারের মতো আশুতোষ চক্রবর্তী স্মারক শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অবশেষে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠ অবশেষে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা মৃত্যুপুরী গাজা নগরী, ‘কুকুরে খাচ্ছে লাশ’ আন্দোলনকারীদের তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য সুশান্ত পালের ‘তোমরা এমনিতেই চাকরি পাবে না, কোটা থাক না থাক’ গাজীপুরে উচ্চ আদালতের রায় উপেক্ষা:ভূমিদস্যুদের সহযোগিতায় স্থানীয় পুলিশ পর্ব ১ মঠবাড়ীয়া আমড়াগাছিয়ায় মাদক সহ ১জন আটক ৬ মাসের কারাদন্ড

থালা বাটি নিয়ে রাস্তায় মোটরসাইকেল চালকরা

সময়ের কন্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : ১১:৫৬:১৬ পূর্বাহ্ণ, রবিবার, ৪ এপ্রিল ২০২১
  • / ২৪৮ .000 বার পাঠক

সময়ের কন্ঠ রিপোর্টার।।

অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সেবা চালুর দাবিতে খালি থালা নিয়ে মোটরসাইকেল চালকরা মানববন্ধন করছেন। তাদের নানা দুর্ভোগ ও কষ্টের কথা তুলে বক্তব্য রাখছেন। ‘হয় অন্নের ব্যবস্থা নয় রাইড শেয়ারিং চালু করতে হবে’- বলে দাবি জানান দেশের তরুণ রাইডারেরা।

আজ রবিবার (৪ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে রাস্তায় সকাল থেকে এ মানববন্ধন করছেন তারা। রাইডারদের দাবি বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। করোনা সংক্রমণরোধে গত বুধবার (৩১ মার্চ) রাইড শেয়ারিং সেবায় মোটরসাইকেলের মাধ্যমে যাত্রী পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

মানববন্ধনে খালি থালা নিয়ে বসে এ কর্মসূচি পালন করেন মোটরসাইকেল চালকেরা। তারা বলেন, দেশে যখন কর্মসংস্থানের চরম সমস্যার সময়ে দেশের তরুণেরা রাইড শেয়ারিং করে একটা আশার আলো দেখতে পেয়েছিলেন। কোনোরকম খেয়ে পরে বেঁচে ছিলেন। কিন্তু সরকারের হঠকারি সিদ্ধান্ত আবার তাদের পথে বসিয়েছে।

বক্তারা বলেন, বাড়িতে গেলে বাচ্চা কান্না করে জিজ্ঞাসা করে- বাবা চকলেট এনেছো। মা জিজ্ঞাসা করেন ওষুধ এনেছি কি না। কোথায় পাবো ওষুধ, চকলেট আর খাবার কেনার অর্থ।

আমরা তো অন্যায় কিছু করছি না। আমাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে তারপর আমাদের কর্ম কেড়ে নেন। নইলে এমন সিদ্ধান্তে আমাদের নিঃস্ব করে দেবেন না।

সরকারের উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, করোনার ভয় আমাদেরও আছে। আমরাও নিরাপদে থাকতে চাই। কিন্তু না খেয়ে কি নিরাপদে থাকা যায়? উপার্জন করে জীবিকা নির্বাহ করতে চাই সেটা যদি না করতে দেন তাহলে আমাদের জীবিকা নির্বাহের ব্যবস্থা করে দেন। বন্ধ করার দায়িত্ব নেবেন আর বেঁচে থাকার দায়িত্ব নেবেন না তা হয় না।

বক্তারা বলেন, আমাদের এখন কাজে ব্যস্ত থাকার কথা। কিন্তু পথে বসে নিজেদের দাবি বাস্তবায়নের জন্যে চিৎকার করতে হচ্ছে। পরিবার কীভাবে চালাব, সেই চিন্তায় সময় পার করতে হচ্ছে।

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

থালা বাটি নিয়ে রাস্তায় মোটরসাইকেল চালকরা

আপডেট টাইম : ১১:৫৬:১৬ পূর্বাহ্ণ, রবিবার, ৪ এপ্রিল ২০২১

সময়ের কন্ঠ রিপোর্টার।।

অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সেবা চালুর দাবিতে খালি থালা নিয়ে মোটরসাইকেল চালকরা মানববন্ধন করছেন। তাদের নানা দুর্ভোগ ও কষ্টের কথা তুলে বক্তব্য রাখছেন। ‘হয় অন্নের ব্যবস্থা নয় রাইড শেয়ারিং চালু করতে হবে’- বলে দাবি জানান দেশের তরুণ রাইডারেরা।

আজ রবিবার (৪ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে রাস্তায় সকাল থেকে এ মানববন্ধন করছেন তারা। রাইডারদের দাবি বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। করোনা সংক্রমণরোধে গত বুধবার (৩১ মার্চ) রাইড শেয়ারিং সেবায় মোটরসাইকেলের মাধ্যমে যাত্রী পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

মানববন্ধনে খালি থালা নিয়ে বসে এ কর্মসূচি পালন করেন মোটরসাইকেল চালকেরা। তারা বলেন, দেশে যখন কর্মসংস্থানের চরম সমস্যার সময়ে দেশের তরুণেরা রাইড শেয়ারিং করে একটা আশার আলো দেখতে পেয়েছিলেন। কোনোরকম খেয়ে পরে বেঁচে ছিলেন। কিন্তু সরকারের হঠকারি সিদ্ধান্ত আবার তাদের পথে বসিয়েছে।

বক্তারা বলেন, বাড়িতে গেলে বাচ্চা কান্না করে জিজ্ঞাসা করে- বাবা চকলেট এনেছো। মা জিজ্ঞাসা করেন ওষুধ এনেছি কি না। কোথায় পাবো ওষুধ, চকলেট আর খাবার কেনার অর্থ।

আমরা তো অন্যায় কিছু করছি না। আমাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে তারপর আমাদের কর্ম কেড়ে নেন। নইলে এমন সিদ্ধান্তে আমাদের নিঃস্ব করে দেবেন না।

সরকারের উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, করোনার ভয় আমাদেরও আছে। আমরাও নিরাপদে থাকতে চাই। কিন্তু না খেয়ে কি নিরাপদে থাকা যায়? উপার্জন করে জীবিকা নির্বাহ করতে চাই সেটা যদি না করতে দেন তাহলে আমাদের জীবিকা নির্বাহের ব্যবস্থা করে দেন। বন্ধ করার দায়িত্ব নেবেন আর বেঁচে থাকার দায়িত্ব নেবেন না তা হয় না।

বক্তারা বলেন, আমাদের এখন কাজে ব্যস্ত থাকার কথা। কিন্তু পথে বসে নিজেদের দাবি বাস্তবায়নের জন্যে চিৎকার করতে হচ্ছে। পরিবার কীভাবে চালাব, সেই চিন্তায় সময় পার করতে হচ্ছে।