ঢাকা ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩
সংবাদ শিরোনাম ::
ভারতবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে শহীদ পরিবারের পাশে থাকার আহবান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হোমনায় ইয়াবা ব্যবসায়ী,সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজিদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন লামা বনবিভাগের সাড়াশি ৯ টি ব্রীকফিল্ডের প্রায় ৯ হাজার ঘনফুট গাছ জব্দ বর্তমান সরকার উন্নয়ন বান্ধব সরকার এই সরকারের সময় গ্রামীণ অবকাঠামোয় ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে বাশিস পীরগঞ্জ শাখার নবনির্বাচিতদের শপথ পাঠ করা হয়েছে খুলনা নগরের-খাঁন এ সবুর রোড-(আপার যশোর রোড)-এ-চলছে-রাস্তা সম্পসারনের কাজ রাঙামাটিতে উপজাতীয় সন্ত্রাসীদের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে নিহত-১ সন্দ্বীপের বানীরহাটে একরাতে ১৮দোকান চুরি মেট্রোপলিটন পুলিশ (ট্রাফিক) বন্দর বিভাগের আয়োজনে সচেতনতামূলক সভা তারাকান্দায় গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী জন্মদিন উদযাপন

পুলিশের উপর হামলাকারী ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে ব্যবস্থা নিতে গিয়ে -সিএমপি পুলিশ বিপাকে

সূত্র ও তথ্য মতে সিএমপি পাচঁলাইশ মডেল থানা পুলিশের উপর হামলায় গ্রেফতারকৃত আসামী। মোঃ মোস্তাকিম (২৪), পিতা-মৃত খালেদ আজম- সাং-ধর্মপুর থানা ফটিকছড়ি পজু খলিফার বাড়ি-বর্তমান জালালাবাদ , হাশমী বাড়ী, থানা-বায়েজীদ, -চট্টগ্রাম পলাতক অজ্ঞাতনামা আসামী সহ ৫০/৬০ জন অজ্ঞাত নামা ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা নং ৭ রুজু করে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ-তথ্য সূত্রে জানা যায়-এস আই মোস্তাফিজ মোবাইল ডিউটি করার সময় গত-১০-জানুয়ারি-২৩ ইং দুপুর ১. টার সময় পাঁচলাইশ থানা পুলিশ সংবাদ পাই যে, চমেক হাসপাতালের মূল গেইটে রাস্তার উপর “চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল স্যান্ডোর ডায়ালাইসিস সেন্টারের ডায়ালাইসিস ফি বৃদ্ধিতে প্রতিবাদ ও মানবন্ধন’’ ব্যানার সহ কতিপয় রুগীর আত্মীয় স্বজন সহ লোকজন মানবন্ধন করছে। পাঁচলাইশ থানার এস আই মোস্তাফিজ সংবাদ পেয়ে ওসি সাহেব কে অবহিত করে তাহার নির্দেশে চমেক মেডিকেল কলেজের সামনে দুপুর সঙ্গীয় ফোর্স সহ উপস্থিত হয় পুলিশের উপস্থিতি দেখে মানবন্ধনে উপস্থিত লোকজন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের মূল গেইটের সামনে রাস্তায় অবস্থান নিয়ে- যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বিভিন্ন রকমের উস্কানিমূলক স্লোগান দিতে শুরু করে। বিষয়টি ওসি সাহেব কে জানাইলে ওসি সাহেব নিজেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রাস্তা অবরোধের কারণ সম্পর্কে জানতে মানবন্ধনের লোকজনের মুখোমুখি হলে মানবন্ধনে অংশগ্রহনকারীরা ক্ষিপ্ত হইয়া পুলিশ সদস্যদের উপর মার মুখী হইয়া চড়াও হতে থাকে। ওসি সাহে্ব তাদেরকে শান্ত হওয়ার জন্য বলেন এবং রাস্তা ছেড়ে তাদেরকে চমেক মেডিলকেল কলেজ হাসপাতালে ভিতরে অবস্থান করে তাদের দাবি দাওয়ার বিষয়ে স্যান্ডোর ডায়ালাইসিস সেন্টারের কর্তৃপক্ষের নিকট পেশ করার জন্য অনুরোধ করেন। এসময় গ্রেফতারকৃত আসামী সহ অজ্ঞাতনামা ৫০/৬০ জন পলাতক উশৃংখল ব্যক্তি বে-আইনী জনতা বন্ধে ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে গ্রেফতারকৃত আসামি মোস্তাকিম প্রথমে পুলিশে উপর আক্রমণ করে ঘটনাস্থলে ডিউটিরত পুলিশ সদস্যদেরকে মেরে আহত করে পুলিশের পরিহিত ইউনির্ফম টেনে ছিঁড়ে ফেলে। উক্ত ঘটনায় ওসি পাঁচলাইশ নাজিম উদ্দিন , এএসআই শহীদুল আজম, কং মোঃ রাকিব হাসান,শাকিল এস আই মোস্তাফিজ সহ আহত হয়। পুলিশের উপর হামলা করার পর তখন পরবর্তীতে এস আই মোস্তাফিজ সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সের সহায়তায় ঘটনাস্থল হতে পুলিশের উপর হামলাকারী ব্যক্তি ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত আসামী মোঃ মোস্তাকিম কে আটক করে। আটকের সময়ে আসামী পুলিশের নিকট থেকে পলানোর চেষ্টা কালে একজন মহিলার গায়ের সাথে ধাক্কা লেগে রাস্তার উপর পড়ে যায়-পরবর্তীতে – কর্তব্যরত অফিসার এস আই শংকর কর্তৃক তাকে চমেক হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়-এমতাবস্থায় উপরোক্ত এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা বেআইনী জনতাবদ্ধে পরস্পর যোগসাজসে রাস্তায় উপর প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করিয়া রাস্তা অবরোধ করে জনগণের স্বাভাবিক চলাচল ও যানবাহন চলাচলে বাধা সৃষ্টি করা সহ ডিউটিরত পুলিশকে সরকারি দায়িত্ব পালনে বাধা সৃষ্টি করে- পুলিশের উপর হামলাকারী ব্যক্তিকে গ্রেফতার করায় পর C+ এর আলমগীর অপু গ্রেফতারকৃত মুস্তাকিম-কে থানা থেকে ছাড়ানোর জন্য তদবির করে-পুলিশ মুস্তাকিমকে- থানা থেকে না ছাড়াতেই -ক্ষিপ্ত হয়ে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে পাঁচলাইশ থানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মাধ্যমে পুরো ঘটনা না জেনে পুলিশের উপর হামলার ভিডিওর দৃশ্যটি কেটে দিয়ে মুস্তাকিম-কে গ্রেফতারের দৃশ্যটি দেখিয়ে মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে জনমনে বিভ্রান্তি ও ক্ষোভের সৃষ্টি করছেন বলে জানান পাঁচলাইশ থানা কর্তৃপক্ষ – উক্ত ঘটনার মামলায়- বর্তমানে মুস্তাকিম আদালত কর্তৃক জামিনে বের হয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে-এক-এক স্থানে ভিন্ন ভিন্ন কথা বলে বেড়াচ্ছে পাচঁলাইশ থানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে যাহা মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন-এবং সেই সাথে বিভিন্ন মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য ছড়াচ্ছে বলেও জানান পাঁচলাইশ থানা কর্তৃপক্ষ-রিপোর্ট-

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ভারতবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে শহীদ পরিবারের পাশে থাকার আহবান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

পুলিশের উপর হামলাকারী ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে ব্যবস্থা নিতে গিয়ে -সিএমপি পুলিশ বিপাকে

আপডেট টাইম : ০৫:৫৭:১০ অপরাহ্ণ, বুধবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২৩

সূত্র ও তথ্য মতে সিএমপি পাচঁলাইশ মডেল থানা পুলিশের উপর হামলায় গ্রেফতারকৃত আসামী। মোঃ মোস্তাকিম (২৪), পিতা-মৃত খালেদ আজম- সাং-ধর্মপুর থানা ফটিকছড়ি পজু খলিফার বাড়ি-বর্তমান জালালাবাদ , হাশমী বাড়ী, থানা-বায়েজীদ, -চট্টগ্রাম পলাতক অজ্ঞাতনামা আসামী সহ ৫০/৬০ জন অজ্ঞাত নামা ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা নং ৭ রুজু করে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ-তথ্য সূত্রে জানা যায়-এস আই মোস্তাফিজ মোবাইল ডিউটি করার সময় গত-১০-জানুয়ারি-২৩ ইং দুপুর ১. টার সময় পাঁচলাইশ থানা পুলিশ সংবাদ পাই যে, চমেক হাসপাতালের মূল গেইটে রাস্তার উপর “চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল স্যান্ডোর ডায়ালাইসিস সেন্টারের ডায়ালাইসিস ফি বৃদ্ধিতে প্রতিবাদ ও মানবন্ধন’’ ব্যানার সহ কতিপয় রুগীর আত্মীয় স্বজন সহ লোকজন মানবন্ধন করছে। পাঁচলাইশ থানার এস আই মোস্তাফিজ সংবাদ পেয়ে ওসি সাহেব কে অবহিত করে তাহার নির্দেশে চমেক মেডিকেল কলেজের সামনে দুপুর সঙ্গীয় ফোর্স সহ উপস্থিত হয় পুলিশের উপস্থিতি দেখে মানবন্ধনে উপস্থিত লোকজন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের মূল গেইটের সামনে রাস্তায় অবস্থান নিয়ে- যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বিভিন্ন রকমের উস্কানিমূলক স্লোগান দিতে শুরু করে। বিষয়টি ওসি সাহেব কে জানাইলে ওসি সাহেব নিজেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রাস্তা অবরোধের কারণ সম্পর্কে জানতে মানবন্ধনের লোকজনের মুখোমুখি হলে মানবন্ধনে অংশগ্রহনকারীরা ক্ষিপ্ত হইয়া পুলিশ সদস্যদের উপর মার মুখী হইয়া চড়াও হতে থাকে। ওসি সাহে্ব তাদেরকে শান্ত হওয়ার জন্য বলেন এবং রাস্তা ছেড়ে তাদেরকে চমেক মেডিলকেল কলেজ হাসপাতালে ভিতরে অবস্থান করে তাদের দাবি দাওয়ার বিষয়ে স্যান্ডোর ডায়ালাইসিস সেন্টারের কর্তৃপক্ষের নিকট পেশ করার জন্য অনুরোধ করেন। এসময় গ্রেফতারকৃত আসামী সহ অজ্ঞাতনামা ৫০/৬০ জন পলাতক উশৃংখল ব্যক্তি বে-আইনী জনতা বন্ধে ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে গ্রেফতারকৃত আসামি মোস্তাকিম প্রথমে পুলিশে উপর আক্রমণ করে ঘটনাস্থলে ডিউটিরত পুলিশ সদস্যদেরকে মেরে আহত করে পুলিশের পরিহিত ইউনির্ফম টেনে ছিঁড়ে ফেলে। উক্ত ঘটনায় ওসি পাঁচলাইশ নাজিম উদ্দিন , এএসআই শহীদুল আজম, কং মোঃ রাকিব হাসান,শাকিল এস আই মোস্তাফিজ সহ আহত হয়। পুলিশের উপর হামলা করার পর তখন পরবর্তীতে এস আই মোস্তাফিজ সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সের সহায়তায় ঘটনাস্থল হতে পুলিশের উপর হামলাকারী ব্যক্তি ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত আসামী মোঃ মোস্তাকিম কে আটক করে। আটকের সময়ে আসামী পুলিশের নিকট থেকে পলানোর চেষ্টা কালে একজন মহিলার গায়ের সাথে ধাক্কা লেগে রাস্তার উপর পড়ে যায়-পরবর্তীতে – কর্তব্যরত অফিসার এস আই শংকর কর্তৃক তাকে চমেক হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়-এমতাবস্থায় উপরোক্ত এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা বেআইনী জনতাবদ্ধে পরস্পর যোগসাজসে রাস্তায় উপর প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করিয়া রাস্তা অবরোধ করে জনগণের স্বাভাবিক চলাচল ও যানবাহন চলাচলে বাধা সৃষ্টি করা সহ ডিউটিরত পুলিশকে সরকারি দায়িত্ব পালনে বাধা সৃষ্টি করে- পুলিশের উপর হামলাকারী ব্যক্তিকে গ্রেফতার করায় পর C+ এর আলমগীর অপু গ্রেফতারকৃত মুস্তাকিম-কে থানা থেকে ছাড়ানোর জন্য তদবির করে-পুলিশ মুস্তাকিমকে- থানা থেকে না ছাড়াতেই -ক্ষিপ্ত হয়ে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে পাঁচলাইশ থানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মাধ্যমে পুরো ঘটনা না জেনে পুলিশের উপর হামলার ভিডিওর দৃশ্যটি কেটে দিয়ে মুস্তাকিম-কে গ্রেফতারের দৃশ্যটি দেখিয়ে মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে জনমনে বিভ্রান্তি ও ক্ষোভের সৃষ্টি করছেন বলে জানান পাঁচলাইশ থানা কর্তৃপক্ষ – উক্ত ঘটনার মামলায়- বর্তমানে মুস্তাকিম আদালত কর্তৃক জামিনে বের হয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে-এক-এক স্থানে ভিন্ন ভিন্ন কথা বলে বেড়াচ্ছে পাচঁলাইশ থানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে যাহা মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন-এবং সেই সাথে বিভিন্ন মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য ছড়াচ্ছে বলেও জানান পাঁচলাইশ থানা কর্তৃপক্ষ-রিপোর্ট-