ঢাকা ১১:৩০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩
সংবাদ শিরোনাম ::
শেরপুরে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ছাত্রদের মাঝে পুনাকের খাদ্যসামগ্রী ও শীতবস্ত্র বিতরণ বিট পুলিশিং বাড়ি-বাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি”- এই স্লোগানকে সামনে রেখে ময়মনসিংহ জেলার পাগলা থানা পুলিশের আয়োজনে গোবিন্দগঞ্জে দেড় হাজার পিস নেশাজাতীয় ইনজেকশনসহ স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার চট্রগ্রামের শ্রমিক ইউনিয়নের নাম ভাঙ্গিয়ে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে কিছু অসাধু শ্রমিক নেতা খুলনা সরকারী মহিলা কলেজের পিঠা উৎসবে কেএমপি’র কমিশনার নওগাঁর বদলগাছীতে বিষাক্ত গ‍্যাস ট‍্যাবলেট খেয়ে পৃথক পৃথক স্থানে সোমা আক্তার (১৮) ও পান্না হোসেন (৬০) নামের দুই জন ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছে এবার কলকাতায় বাংলাদেশিদের জন্য নিয়ে এল নতুন রসনার রেস্টুরেন্ট ও খাবারের হোটেল মসিকের ৩০ কিলোমিটার রাস্তায় সড়কবাতি উদ্বোধন করেছেন মেয়র মোংলার যৌনপল্লীর কর্মীরা এখন মানবেতর জীবনযাপন করছে পীরগঞ্জের কৃতি সন্তান নাজমুলের সপ্ন পুরন

উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্থদের পুনর্বাসনের দাবি মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসনের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

আজ ২৫ জানুয়ারী সোমবার বিকাল ৩টায় শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের ও সাধারণ মানুষদের পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবিতে ভুক্তভোগী পরিবারদের সাথে নিয়ে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ, কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: আল মামুনের সঞ্চালনায় উক্ত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। আরোও বক্তব্য রাখেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সদস্য নাসিম মিয়া, ওয়ালীউল্লাহ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ এর দুই দফা হলোঃ করোনা সংকটকালীন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষদেরকে পুর্নবাসন এবং ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। করোনা সংকটে মানবিক দিক বিবেচনা করে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের সকল উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা বন্ধ করতে হবে।

আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, “সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন জায়গায় স্থাপিত অবৈধ দোকান ও বাড়ি উচ্ছেদ করা সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের নৈতিক দায়িত্ব। আমরাও চাই ঢাকা শহরসহ সমগ্র দেশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হোক। কিন্তু সেই উচ্ছেদ অভিযানগুলো করোনা সংকট বিবেচনা করে যৌক্তিক সময়ে পরিচালনা করা উচিত ছিল।

করোনা ভাইরাস সংকট বিবেচনা না করে, কোন যৌক্তিক সময় না দিয়ে এবং মানবিক দিক বিবেচনা না করেই ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন অবৈধ উচ্ছেদের মাধ্যমে বুলডোজার দিয়ে হাজার হাজার দোকান গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে যার ফলশ্রুতিতে গুড়িয়ে দেয়া দোকানগুলোর মালিক ও কর্মচারীরা স্বপরিবারে পথে বসে গেছেন।”

মো: আল মামুন বলেন, “ঢাকার দুই মেয়রকে মনে রাখতে হবে যে, জনগণই কিন্তু সকল ক্ষমতার উৎস। জনগণই কিন্তু আপনাদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। জনগণের ট্যাক্সের টাকায় এই রাষ্ট্র পরিচালিত হয়।

সুতরাং জনগণের স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়েই আপনাদেরকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। করোনা দুর্যোগকালীন দুই সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষকে জনগণের সুবিধা-অসুবিধার কথা বিবেচনা করেই উচ্ছেদ অভিযানের সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত ছিল। কারণ দুই সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের অমানবিক ও অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত অনেক পরিবারের স্বপ্ন ভেঙ্গে দিয়েছে, পরিবারগুলোর দুঃখ-কষ্ট বাড়িয়ে দিয়েছে।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শেরপুরে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ছাত্রদের মাঝে পুনাকের খাদ্যসামগ্রী ও শীতবস্ত্র বিতরণ

উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্থদের পুনর্বাসনের দাবি মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের

আপডেট টাইম : ০২:১১:১২ অপরাহ্ণ, সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসনের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

আজ ২৫ জানুয়ারী সোমবার বিকাল ৩টায় শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের ও সাধারণ মানুষদের পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবিতে ভুক্তভোগী পরিবারদের সাথে নিয়ে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ, কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: আল মামুনের সঞ্চালনায় উক্ত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। আরোও বক্তব্য রাখেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সদস্য নাসিম মিয়া, ওয়ালীউল্লাহ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ এর দুই দফা হলোঃ করোনা সংকটকালীন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষদেরকে পুর্নবাসন এবং ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। করোনা সংকটে মানবিক দিক বিবেচনা করে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের সকল উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা বন্ধ করতে হবে।

আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, “সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন জায়গায় স্থাপিত অবৈধ দোকান ও বাড়ি উচ্ছেদ করা সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের নৈতিক দায়িত্ব। আমরাও চাই ঢাকা শহরসহ সমগ্র দেশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হোক। কিন্তু সেই উচ্ছেদ অভিযানগুলো করোনা সংকট বিবেচনা করে যৌক্তিক সময়ে পরিচালনা করা উচিত ছিল।

করোনা ভাইরাস সংকট বিবেচনা না করে, কোন যৌক্তিক সময় না দিয়ে এবং মানবিক দিক বিবেচনা না করেই ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন অবৈধ উচ্ছেদের মাধ্যমে বুলডোজার দিয়ে হাজার হাজার দোকান গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে যার ফলশ্রুতিতে গুড়িয়ে দেয়া দোকানগুলোর মালিক ও কর্মচারীরা স্বপরিবারে পথে বসে গেছেন।”

মো: আল মামুন বলেন, “ঢাকার দুই মেয়রকে মনে রাখতে হবে যে, জনগণই কিন্তু সকল ক্ষমতার উৎস। জনগণই কিন্তু আপনাদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। জনগণের ট্যাক্সের টাকায় এই রাষ্ট্র পরিচালিত হয়।

সুতরাং জনগণের স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়েই আপনাদেরকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। করোনা দুর্যোগকালীন দুই সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষকে জনগণের সুবিধা-অসুবিধার কথা বিবেচনা করেই উচ্ছেদ অভিযানের সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত ছিল। কারণ দুই সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের অমানবিক ও অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত অনেক পরিবারের স্বপ্ন ভেঙ্গে দিয়েছে, পরিবারগুলোর দুঃখ-কষ্ট বাড়িয়ে দিয়েছে।