ঢাকা ০৯:৫২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
সরাইলে ১০ম বারের মতো আশুতোষ চক্রবর্তী স্মারক শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অবশেষে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠ অবশেষে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা মৃত্যুপুরী গাজা নগরী, ‘কুকুরে খাচ্ছে লাশ’ আন্দোলনকারীদের তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য সুশান্ত পালের ‘তোমরা এমনিতেই চাকরি পাবে না, কোটা থাক না থাক’ গাজীপুরে উচ্চ আদালতের রায় উপেক্ষা:ভূমিদস্যুদের সহযোগিতায় স্থানীয় পুলিশ পর্ব ১ মঠবাড়ীয়া আমড়াগাছিয়ায় মাদক সহ ১জন আটক ৬ মাসের কারাদন্ড কোটা আন্দোলন নিয়ে সর্বোচ্চ আদালতের আদেশ নিয়ে শিক্ষার্থীরা ঘরে ফিরে যাবে নিজের আরো সম্পদের পাহাড় এদিকে স্ত্রীকে পাঁচটি জাহাজ কিনে দিয়েছেন এডিসি কামরুল রোববার কোটা আন্দোলনকারীরা সড়কে নামলেই ‘কঠোর ব্যবস্থা’ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুতে ইতিবাচক মিয়ানমার। ভারত

শরণখোলায় যুবকের পা ভেঙ্গে দুই চোখ নষ্ট করে দিয়েছে ক্ষিপ্তরা

সময়ের কন্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : ০৩:৩১:৫৭ অপরাহ্ণ, রবিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১
  • / ২৫২ .000 বার পাঠক

সময়ের কন্ঠ রিপোর্টার বাগেরহাট ॥

বাগেরহাটের শরণখোলায় সাইফুল ইসলাম মোল্লা (৩৪) নামের এক যুবকের পাঁ ভেঙ্গে দুই চোখ নষ্ট করে দিয়েছে ক্ষিপ্ত স্থানীয়রা। রবিবার ভোরে উপজেলার মঠেরপাড় গ্রামের ফসলের মাঠ থেকে তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

আহত সাইফুল শরণখোলার খোন্তাকাটা ইউনিয়নের রাজৈর গ্রামের নুরু মোল্লার ছেলে। তার বিরুদ্ধে শরণখোলা থানায় চুরি, ছিনতাই, ডাকাতি ও মাদকসহ অসংখ্য মামলা রয়েছে।

শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক বিশ্বজিৎ কুমার জানান, স্থানীয় খোন্তাকাটা ইউপির সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন তালুকদার গুরুতর আহত সাইফুলকে হাসপাতালে এনে ভর্তি করান। তাকে দুই চোখ খুঁচিয়ে প্রায় বের করা এবং বাঁ পা ভাঙা অবস্থায় পাওয়া যায়। তাকে খুমেক হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

জাহাঙ্গীর মেম্বার বলেন, ‘রবিবার ভোরে মঠেরপাড় গ্রামের মাঠে চিৎকার শুনে লোকজন নিয়ে সাইফুলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাই। তবে সাইফুলের বিরুদ্ধে এলাকায় চুরি, ছিনতাই, মাদক, ডাকাতিচেষ্টার অভিযোগে থানায় ১৫-১৬টা মামলা রয়েছে।’খোন্তাকাটা ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন খান মহিউদ্দিন জানান, সাইফুল দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় চাঁদাবাজী, চুরি, ছিনতাই, ডাকাতি, মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে।

সম্প্রতি রাজৈর এলাকায় চুরি করতে গেলে বাঁধা দেওয়ায় ইব্রাহিম নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করে। এছাড়া একই এলাকার আসলাম হাওলাদারের একটি অন্তসত্তা গরুর পায়ের চারটি রগ কেঁটে দেয়। এর আগে সে আসলামের ঘরে ডুকে তার মেয়েকে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে বিয়ে করে। তার বিরুদ্ধে শরণখোলা থানায় এক ডজন মামলা রয়েছে। এছাড়া সাইফুল পুলিশের হ্যান্ডকাপসহ পালিয়েছিল এবং বাগেরহাট জেলখানার দেয়াল ডিঙ্গিয়ে পালানোর সময় ধরা পড়ে। সাইফুলের একরপর এক অপরাধ কর্মকান্ডে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ ছিল। তার ভয়ে এলাকার অনেক লোক পালিয়ে থাকতো।

শরণখোলা থানার ওসি সাইদুর রহমান জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এব্যাপারে আইনী পদক্ষেপ গ্রহন করা হচ্ছে।

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

শরণখোলায় যুবকের পা ভেঙ্গে দুই চোখ নষ্ট করে দিয়েছে ক্ষিপ্তরা

আপডেট টাইম : ০৩:৩১:৫৭ অপরাহ্ণ, রবিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১

সময়ের কন্ঠ রিপোর্টার বাগেরহাট ॥

বাগেরহাটের শরণখোলায় সাইফুল ইসলাম মোল্লা (৩৪) নামের এক যুবকের পাঁ ভেঙ্গে দুই চোখ নষ্ট করে দিয়েছে ক্ষিপ্ত স্থানীয়রা। রবিবার ভোরে উপজেলার মঠেরপাড় গ্রামের ফসলের মাঠ থেকে তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

আহত সাইফুল শরণখোলার খোন্তাকাটা ইউনিয়নের রাজৈর গ্রামের নুরু মোল্লার ছেলে। তার বিরুদ্ধে শরণখোলা থানায় চুরি, ছিনতাই, ডাকাতি ও মাদকসহ অসংখ্য মামলা রয়েছে।

শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক বিশ্বজিৎ কুমার জানান, স্থানীয় খোন্তাকাটা ইউপির সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন তালুকদার গুরুতর আহত সাইফুলকে হাসপাতালে এনে ভর্তি করান। তাকে দুই চোখ খুঁচিয়ে প্রায় বের করা এবং বাঁ পা ভাঙা অবস্থায় পাওয়া যায়। তাকে খুমেক হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

জাহাঙ্গীর মেম্বার বলেন, ‘রবিবার ভোরে মঠেরপাড় গ্রামের মাঠে চিৎকার শুনে লোকজন নিয়ে সাইফুলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাই। তবে সাইফুলের বিরুদ্ধে এলাকায় চুরি, ছিনতাই, মাদক, ডাকাতিচেষ্টার অভিযোগে থানায় ১৫-১৬টা মামলা রয়েছে।’খোন্তাকাটা ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন খান মহিউদ্দিন জানান, সাইফুল দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় চাঁদাবাজী, চুরি, ছিনতাই, ডাকাতি, মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে।

সম্প্রতি রাজৈর এলাকায় চুরি করতে গেলে বাঁধা দেওয়ায় ইব্রাহিম নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করে। এছাড়া একই এলাকার আসলাম হাওলাদারের একটি অন্তসত্তা গরুর পায়ের চারটি রগ কেঁটে দেয়। এর আগে সে আসলামের ঘরে ডুকে তার মেয়েকে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে বিয়ে করে। তার বিরুদ্ধে শরণখোলা থানায় এক ডজন মামলা রয়েছে। এছাড়া সাইফুল পুলিশের হ্যান্ডকাপসহ পালিয়েছিল এবং বাগেরহাট জেলখানার দেয়াল ডিঙ্গিয়ে পালানোর সময় ধরা পড়ে। সাইফুলের একরপর এক অপরাধ কর্মকান্ডে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ ছিল। তার ভয়ে এলাকার অনেক লোক পালিয়ে থাকতো।

শরণখোলা থানার ওসি সাইদুর রহমান জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এব্যাপারে আইনী পদক্ষেপ গ্রহন করা হচ্ছে।