ঢাকা ১১:১৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ জুন ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
নান্দাইলে প্রতিবন্ধি নজরুলকে হুইলচেয়ার উপহার পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ইপিজেড থানা জাতীয় শ্রমিকলীগের উদগ্যে মোটরসাইকেল র‌্যালী ও মিষ্টি বিতরণ অনুষ্ঠিত আমার টাকায় আমার সেতু, বাংলাদেশ পদ্মা সেতু প্রতিপাদ্য কে সমনে রেখে মেহেন্দিগঞ্জ থানা পুলিশ বাহিনীর আয়োজন নান্দাইলে পদ্মাসেতু উদ্বোধন উপলক্ষে উপজেলা আ’লীগের আনন্দ র্যালী অনুষ্ঠিত বিসিএস ডাক্তারের বিরুদ্ধে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ দ্বিতীয় স্ত্রীর এক নজরে পদ্মা সেতু নাম : পদ্মা সেতু, আছ সফল দক্ষিণ অঞ্চলের জনগণ পদ্ম সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে বিরামপুরে আনন্দ র‍্যালী পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে মোংলা উপজেলা প্রশাসনের আনন্দ মিছিল পাথরঘাটার রায়হানপুরে গভীর রাতে ডাকাতে হামলা, আহত -৪ পদ্মা সেতু পারাপারে প্রথম টোল প্রদান করলেন সেতুর স্থপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বৈঠকে আমন্ত্রণ না পেয়ে ইলিয়াস কাঞ্চনের দুঃখপ্রকাশ

নিজস্ব প্রতিনিধি  আশিক।।

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি হিসেবে প্রথমবারের মতো দায়িত্ব নিয়েছেন খ্যাতিমান অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। তবে এবারের নির্বাচন ঘিরে আলোচনা-সমালোচনা কম হয়নি। বিশেষ করে সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে জায়েদ-নিপুণের দ্বন্দ্ব ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’তে পরিণত হয়েছিলো। এবার ‘জায়েদ খান’ ইস্যুতে চলচ্চিত্র পরিবারের বৈঠকে আমন্ত্রণ পায়নি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। ব্যক্তিকে ইস্যু করে শিল্পী সমিতিকে দূরে ঠেলে দেওয়াটা দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছেন ইলিয়াস কাঞ্চন।
তিনি বলেন, ‘জায়েদ বা নিপুণ কেউ আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ নয়। গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে সংগঠনের ভাবমূর্তি সমুন্নত রাখা। আদালত যে রায় দিয়েছেন সেটা জায়েদ খানের পক্ষে গেছে। কোর্টের সার্টিফাইড কপি দেখেই জায়েদ খানকে আমি শপথ গ্রহণ করিয়েছি। এখন কে বা কোন সংগঠন ওকে (জায়েদ খান) পছন্দ করলো না, সেটা আমার বিষয় না। আদালতের রায় মানতে আমি বাধ্য।’
ইলিয়াস কাঞ্চন আরও বলেন, ‘আরেকটা কথা হচ্ছে, প্রত্যেকটা সমিতি তার নিজস্ব গঠনতন্ত্র দিয়ে চলে। এখানে কারো ওপর কারও খবরদারি সম্পর্কের অবনতি ঘটাবে। তারা (১৮ সংগঠন) শিল্পী সমিতিকে ডাকলে আমি অবশ্যই যেতাম। আমি চাইবো, বিভেদ ভুলে একসঙ্গে কাজ করার। তা না হলে ইন্ডাস্ট্রি আরও তলানিতে যাবে। মানুষের হাসির পাত্র হবো আমরা।’

১৮ সমিতির একটি শিল্পী সমিতি, বৈঠকে তাদের কাউকে ডাকা হয়নি কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে ১৮ সংগঠনের আহ্বায়ক ও পরিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান বলেন, ‘আমরা জায়েদ খানকে বয়কট করেছি। ইলিয়াস কাঞ্চন ভাইকে বলেছিলাম আদালতের সার্টিফাইড কপি না পাওয়া পর্যন্ত শপথ না পড়াতে। কিন্তু উনি (ইলিয়াস কাঞ্চন) শোনেননি। তাই চলচ্চিত্র পরিবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যতক্ষণ পর্যন্ত জায়েদ খান থাকবে শিল্পী সমিতিকে বাদ দিয়ে সকল কিছু হবে।’

তবে এমন সিদ্ধান্তে অবাক হয়েছেন পরিচালক সমিতির মহাসচিব শাহীন সুমন। তিনি বলেন, ‘বৈঠক হবে সেটা জানি, কিন্তু জায়েদ খানকে ইস্যু করে শিল্পী সমিতিকে ডাকা হবে না, এটা দুর্ভাগ্যজনক। তাদের এমন সিদ্ধান্তের সঙ্গে আমি একমত নই।’

জাতীয় আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

নান্দাইলে প্রতিবন্ধি নজরুলকে হুইলচেয়ার উপহার

বৈঠকে আমন্ত্রণ না পেয়ে ইলিয়াস কাঞ্চনের দুঃখপ্রকাশ

আপডেট টাইম : ০৪:১৩:১০ অপরাহ্ণ, শনিবার, ৫ মার্চ ২০২২

নিজস্ব প্রতিনিধি  আশিক।।

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি হিসেবে প্রথমবারের মতো দায়িত্ব নিয়েছেন খ্যাতিমান অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। তবে এবারের নির্বাচন ঘিরে আলোচনা-সমালোচনা কম হয়নি। বিশেষ করে সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে জায়েদ-নিপুণের দ্বন্দ্ব ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’তে পরিণত হয়েছিলো। এবার ‘জায়েদ খান’ ইস্যুতে চলচ্চিত্র পরিবারের বৈঠকে আমন্ত্রণ পায়নি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। ব্যক্তিকে ইস্যু করে শিল্পী সমিতিকে দূরে ঠেলে দেওয়াটা দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছেন ইলিয়াস কাঞ্চন।
তিনি বলেন, ‘জায়েদ বা নিপুণ কেউ আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ নয়। গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে সংগঠনের ভাবমূর্তি সমুন্নত রাখা। আদালত যে রায় দিয়েছেন সেটা জায়েদ খানের পক্ষে গেছে। কোর্টের সার্টিফাইড কপি দেখেই জায়েদ খানকে আমি শপথ গ্রহণ করিয়েছি। এখন কে বা কোন সংগঠন ওকে (জায়েদ খান) পছন্দ করলো না, সেটা আমার বিষয় না। আদালতের রায় মানতে আমি বাধ্য।’
ইলিয়াস কাঞ্চন আরও বলেন, ‘আরেকটা কথা হচ্ছে, প্রত্যেকটা সমিতি তার নিজস্ব গঠনতন্ত্র দিয়ে চলে। এখানে কারো ওপর কারও খবরদারি সম্পর্কের অবনতি ঘটাবে। তারা (১৮ সংগঠন) শিল্পী সমিতিকে ডাকলে আমি অবশ্যই যেতাম। আমি চাইবো, বিভেদ ভুলে একসঙ্গে কাজ করার। তা না হলে ইন্ডাস্ট্রি আরও তলানিতে যাবে। মানুষের হাসির পাত্র হবো আমরা।’

১৮ সমিতির একটি শিল্পী সমিতি, বৈঠকে তাদের কাউকে ডাকা হয়নি কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে ১৮ সংগঠনের আহ্বায়ক ও পরিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান বলেন, ‘আমরা জায়েদ খানকে বয়কট করেছি। ইলিয়াস কাঞ্চন ভাইকে বলেছিলাম আদালতের সার্টিফাইড কপি না পাওয়া পর্যন্ত শপথ না পড়াতে। কিন্তু উনি (ইলিয়াস কাঞ্চন) শোনেননি। তাই চলচ্চিত্র পরিবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যতক্ষণ পর্যন্ত জায়েদ খান থাকবে শিল্পী সমিতিকে বাদ দিয়ে সকল কিছু হবে।’

তবে এমন সিদ্ধান্তে অবাক হয়েছেন পরিচালক সমিতির মহাসচিব শাহীন সুমন। তিনি বলেন, ‘বৈঠক হবে সেটা জানি, কিন্তু জায়েদ খানকে ইস্যু করে শিল্পী সমিতিকে ডাকা হবে না, এটা দুর্ভাগ্যজনক। তাদের এমন সিদ্ধান্তের সঙ্গে আমি একমত নই।’