ঢাকা ০৪:৫৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
কোটা সংস্কারের পক্ষে সরকার নীতিগতভাবে একমত: আইনমন্ত্রী ঘোষণার পর মানছেন না কোটা আন্দোলনকারীরা আমার ভাইদের ফেরত দেওয়া হোক আগে রায়পুরে বালু উত্তোলনে ভাঙন আতঙ্ক সরকারের কাছ থেকে দৃশ্যমান পদক্ষেপ ও সমাধানের পথ তৈরির প্রত্যাশা করে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন শনির আখড়া-যাত্রাবাড়ী সড়কে চলছে সংঘর্ষ, যান চলালাচল অচল করে দিচ্ছেন ফেসবুক লাইভে এসে পদত্যাগের ঘোষণা ছাত্রলীগ নেতার উত্তরায় গুলিতে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ শিক্ষার্থী নিহত কমপ্লিট শাটডাউন ঢাকার সঙ্গে সব জেলার যোগাযোগ বন্ধ, টার্মিনাল থেকে ছাড়ছে না কোনো বাস ফুলবাড়ীর দৌলতপুর ইউনিয়নে গরু চুরির হিড়িক দেশবাসীর প্রতি মির্জা ফখরুলের আহ্বান, শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঢাবি, ৬টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ

বাঘায় বাবার সামনে থেকে ছেলেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধরের অভিযোগ, উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি

সময়ের কন্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : ০৪:৩৩:৪৯ অপরাহ্ণ, সোমবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২২
  • / ২৪৪ ৫০০.০০০ বার পাঠক

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি।।

রাজশাহীর বাঘায় চলতি ভ্যানে ধাক্কা লেগে পড়ে যাওয়ার তুচ্ছ ঘটনায় বাবার সামনে থেকে ছেলেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত পার্থ সরকার(২৪)কে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তির পর ৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন পার্থ সরকারের বাবা চিত্তরঞ্জন সরকার। সোমবার (২৪-০১-২০২২) দুপুরে উপজেলার হাবাসপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।
অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, হাবাসপুর গ্রামের বাসিন্দা চিত্তরঞ্জন সরকার ও তার ছেলে পার্থ সরকার বাড়ি থেকে বের হয়ে খালি ভ্যান ঠেলে নিয়ে ডিপটিউবওয়েলের মালামাল পরিবহনের জন্য হাবাসপুর এলাকার রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে বিপরিত থেকে আসা দ্রুতগামি যাত্রীবাহি অপর একটি ভ্যানের সাথে ধাক্কা লাগে। এ সময় ভ্যানে থাকা এক নারি পড়ে যায়। পার্থ তাকে সেই ভ্যানে তুলে দিয়ে নিজের গন্তব্যস্থলের দিকে চলে যায়।
পরে ধাক্কা ধাক্কির খবর পেয়ে বাঘার পার্শ্ববর্তী চারঘাট উপজেলার বড়বড়িয়া গ্রামের রহিম সার ছেলে মাসুদ রানা,আক্কাছের ছেলে বেলাল হোসেন ও বেল্লালের ছেলে আল আমিন সহ অজ্ঞাত আরো ৫/৬ জন হাবাসপুর এলাকা থেকে পার্থকে তার বাবার সামনে থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি মারধর করে। এসময় বড়বড়িয়া এলাকার স্থানীয় কতিপয় লোকজন তাদের হাত থেকে আহত পার্থ সরকারকে উদ্ধার করে ওই গ্রামের মালেক সরকারের বাড়িতে রাখেন।
পরে সেখান থেকে বাঘা উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের সহায়তায় বড়বড়িয়া এলাকা থেকে পার্থকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ বিষয়ে চারঘাট উপজেলার বড়বড়িয়া গ্রামের মাসুদ রানা,বেলাল হোসেন ও আল আমিন সহ অজ্ঞাত আরো ৫/৬ জনের বিরুদ্ধে বাঘা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন আহত পার্থর বাবা চিত্তরঞ্জন সরকার ।
অভিযুক্তদের সাথে কথা বলার জন্য যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। তবে বাঘা থানার ডিউটি অফিসার উপ পরিদর্শক তরিকুল ইসলাম অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য একজন উপপরিদর্শকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।##

আরো খবর.......

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বাঘায় বাবার সামনে থেকে ছেলেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধরের অভিযোগ, উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি

আপডেট টাইম : ০৪:৩৩:৪৯ অপরাহ্ণ, সোমবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২২

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি।।

রাজশাহীর বাঘায় চলতি ভ্যানে ধাক্কা লেগে পড়ে যাওয়ার তুচ্ছ ঘটনায় বাবার সামনে থেকে ছেলেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত পার্থ সরকার(২৪)কে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তির পর ৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন পার্থ সরকারের বাবা চিত্তরঞ্জন সরকার। সোমবার (২৪-০১-২০২২) দুপুরে উপজেলার হাবাসপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।
অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, হাবাসপুর গ্রামের বাসিন্দা চিত্তরঞ্জন সরকার ও তার ছেলে পার্থ সরকার বাড়ি থেকে বের হয়ে খালি ভ্যান ঠেলে নিয়ে ডিপটিউবওয়েলের মালামাল পরিবহনের জন্য হাবাসপুর এলাকার রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে বিপরিত থেকে আসা দ্রুতগামি যাত্রীবাহি অপর একটি ভ্যানের সাথে ধাক্কা লাগে। এ সময় ভ্যানে থাকা এক নারি পড়ে যায়। পার্থ তাকে সেই ভ্যানে তুলে দিয়ে নিজের গন্তব্যস্থলের দিকে চলে যায়।
পরে ধাক্কা ধাক্কির খবর পেয়ে বাঘার পার্শ্ববর্তী চারঘাট উপজেলার বড়বড়িয়া গ্রামের রহিম সার ছেলে মাসুদ রানা,আক্কাছের ছেলে বেলাল হোসেন ও বেল্লালের ছেলে আল আমিন সহ অজ্ঞাত আরো ৫/৬ জন হাবাসপুর এলাকা থেকে পার্থকে তার বাবার সামনে থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি মারধর করে। এসময় বড়বড়িয়া এলাকার স্থানীয় কতিপয় লোকজন তাদের হাত থেকে আহত পার্থ সরকারকে উদ্ধার করে ওই গ্রামের মালেক সরকারের বাড়িতে রাখেন।
পরে সেখান থেকে বাঘা উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের সহায়তায় বড়বড়িয়া এলাকা থেকে পার্থকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ বিষয়ে চারঘাট উপজেলার বড়বড়িয়া গ্রামের মাসুদ রানা,বেলাল হোসেন ও আল আমিন সহ অজ্ঞাত আরো ৫/৬ জনের বিরুদ্ধে বাঘা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন আহত পার্থর বাবা চিত্তরঞ্জন সরকার ।
অভিযুক্তদের সাথে কথা বলার জন্য যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। তবে বাঘা থানার ডিউটি অফিসার উপ পরিদর্শক তরিকুল ইসলাম অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য একজন উপপরিদর্শকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।##