ঢাকা ০৭:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
জামালপুরে কৃষিতে বেড়েছে আধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহার কালিয়াকৈর বাইপাসে সড়ক দুর্ঘটনায় স্বামী স্ত্রীর মৃত্যু রায়পুরে সেপটি ট্যাংকিতে নেমে ২জনে মৃত্যু মনোহরদীতে নানা আয়োজনে বর্ষবরণ উৎসব পালিত হয়েছে ঠাকুরগাঁও। রুহিয়া ঐতিহ্যবাহী বৈশাখী মেলা করোনাভাইরাস এর কারণে বন্ধ থাকায় আবারও পাঁচ বছর পর ১০ দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়েছে রানীশংকৈলে নানা আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত রায়পুরে পহেলা বৈশাখে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা নবাবগঞ্জে বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ পালিত ঘাটাইলে ব্যবসায়ীর হাত-পায়ের রগ কেটে সর্বস্ব লুট টঙ্গীতে চাঁদা না পেয়ে ব্যবসায়ীর উপর হামলা: তদন্তে গিয়ে সিসিটিভি আবদার করলো পুলিশ!

ব্যাটারি চালিত রিক্সা বন্ধের সমালচনা করলেন মাটি মানুষের নেতা এমপি শিবলী সাদিক দিনাজপুর ৬।

মোঃ মাহফুজুর রহমান উপজেলা প্রতিনিধি বিরামপুর দিনাজপুর।।

সারাদেশে ব্যাটারিচালিত রিক্সা বন্ধে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর ঘোষণার পর সমগ্র দেশব্যাপী নানা আলোচনা সমালোচনা শুরু হয়। বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন রিক্সা শ্রমিকরা।  এরই মধ্যে নিজস্ব মতামত তুলে ধরেছেন সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক। 

বুধবার (০৭ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টায় নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে তিনি এ বিষয়ে মন্তব্য করেন। দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক মন্তব্য করেন, বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে যদি ব্যাটারিচালিত রিকশা বাদ দিতে হয়, তাহলে এসির মাধ্যমে যে বিদ্যুৎ ব্যবহার হয় তা বন্ধ করতে হবে। তাঁর ফেসবুক ওয়ালে লেখাটি হুবহু তুলে ধরা হলোঃ

“এটা বাংলাদেশ, লাখো শহীদের রক্তে কেনা দেশ। এটা কৃষক, দিনমজুর, রিকশাচালকের দেশ। বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের জন্য যদি ব্যাটারিচালিত রিকশা বাদ দিতে হয় তাহলে বলব, রাত নেমে এলে অথবা সারাদিন বড় বড় শহর কাঁপিয়ে এসি নামক যন্ত্রে যে বিদ্যুৎ ব্যবহার হয় তা বন্ধ করতে হবে।

“বন্ধ করতে হবে রাস্তার দুই পাশে শোভাবর্ধনকারী সব লাইট। বন্ধ করে দিতে হবে সব পেট্রোল ও সিএনজি পাম্পের আলো ঝলমলে অপ্রয়োজনীয় বাতি। বন্ধ করে দিতে হবে কমিউনিটি সেন্টারের অপ্রয়োজনীয় সব আলো। রাষ্ট্রকেই দায়িত্ব নিয়ে বাঁচাতে হবে এই অসহায় মানুষদেরকে। বাঁচতে দিতে হবে ৩০ থেকে ৫০ লাখ পরিবারকে, যাদের ঘামের টাকায় তাদের সন্তানেরা দুই বেলা খেতে পায়, শিক্ষা ও চিকিৎসা পায়।”

“মনে রাখতে হবে, এই দেশে জন্ম নেওয়া সব শিশুর অধিকার এই দেশের প্রত্যেকটা ধূলিকণায়। রাষ্ট্রের টাকায় যদি ওই ৫০ লাখ রিকশাওয়ালার পরিবারের দায়িত্ব না নেওয়া যায়, তাহলে প্রয়োজনে আরও ১/২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের পাওয়ার প্লান্ট স্থাপন করা হোক। যানজটের কারণে হাজার হাজার কোটি টাকা প্রতিদিন নষ্ট হয় এই লোকসানের কথা না বলে বিদ্যুতের অপচয় বলে এই সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষদের সঙ্গে কোনও অসদাচারণ করা যাবে না। অবস্থানকে বিবেচনা করে কখনওই কারও অবমূল্যায়ন করা যাবে না।” 

আরো খবর.......

জনপ্রিয় সংবাদ

জামালপুরে কৃষিতে বেড়েছে আধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহার

ব্যাটারি চালিত রিক্সা বন্ধের সমালচনা করলেন মাটি মানুষের নেতা এমপি শিবলী সাদিক দিনাজপুর ৬।

আপডেট টাইম : ০৮:০১:৫৭ পূর্বাহ্ণ, শুক্রবার, ৯ জুলাই ২০২১

মোঃ মাহফুজুর রহমান উপজেলা প্রতিনিধি বিরামপুর দিনাজপুর।।

সারাদেশে ব্যাটারিচালিত রিক্সা বন্ধে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর ঘোষণার পর সমগ্র দেশব্যাপী নানা আলোচনা সমালোচনা শুরু হয়। বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন রিক্সা শ্রমিকরা।  এরই মধ্যে নিজস্ব মতামত তুলে ধরেছেন সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক। 

বুধবার (০৭ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টায় নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে তিনি এ বিষয়ে মন্তব্য করেন। দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক মন্তব্য করেন, বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে যদি ব্যাটারিচালিত রিকশা বাদ দিতে হয়, তাহলে এসির মাধ্যমে যে বিদ্যুৎ ব্যবহার হয় তা বন্ধ করতে হবে। তাঁর ফেসবুক ওয়ালে লেখাটি হুবহু তুলে ধরা হলোঃ

“এটা বাংলাদেশ, লাখো শহীদের রক্তে কেনা দেশ। এটা কৃষক, দিনমজুর, রিকশাচালকের দেশ। বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের জন্য যদি ব্যাটারিচালিত রিকশা বাদ দিতে হয় তাহলে বলব, রাত নেমে এলে অথবা সারাদিন বড় বড় শহর কাঁপিয়ে এসি নামক যন্ত্রে যে বিদ্যুৎ ব্যবহার হয় তা বন্ধ করতে হবে।

“বন্ধ করতে হবে রাস্তার দুই পাশে শোভাবর্ধনকারী সব লাইট। বন্ধ করে দিতে হবে সব পেট্রোল ও সিএনজি পাম্পের আলো ঝলমলে অপ্রয়োজনীয় বাতি। বন্ধ করে দিতে হবে কমিউনিটি সেন্টারের অপ্রয়োজনীয় সব আলো। রাষ্ট্রকেই দায়িত্ব নিয়ে বাঁচাতে হবে এই অসহায় মানুষদেরকে। বাঁচতে দিতে হবে ৩০ থেকে ৫০ লাখ পরিবারকে, যাদের ঘামের টাকায় তাদের সন্তানেরা দুই বেলা খেতে পায়, শিক্ষা ও চিকিৎসা পায়।”

“মনে রাখতে হবে, এই দেশে জন্ম নেওয়া সব শিশুর অধিকার এই দেশের প্রত্যেকটা ধূলিকণায়। রাষ্ট্রের টাকায় যদি ওই ৫০ লাখ রিকশাওয়ালার পরিবারের দায়িত্ব না নেওয়া যায়, তাহলে প্রয়োজনে আরও ১/২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের পাওয়ার প্লান্ট স্থাপন করা হোক। যানজটের কারণে হাজার হাজার কোটি টাকা প্রতিদিন নষ্ট হয় এই লোকসানের কথা না বলে বিদ্যুতের অপচয় বলে এই সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষদের সঙ্গে কোনও অসদাচারণ করা যাবে না। অবস্থানকে বিবেচনা করে কখনওই কারও অবমূল্যায়ন করা যাবে না।”