ঢাকা ০৭:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
আশুলিয়ায় চাঁদা না পেয়ে নির্মানকাজে বাঁধা, নির্মানসামগ্রী লুট বিজিবি এ্যাথলেটিকস্ প্রতিযোগীতায় ২০২২ ইং আত্রাইয়ে ধর্ষণের শিকার ৬ বছরের শিশু , মামলা হয়েছে থানায় জনগনের চলাচলের ব্যবস্থা সুগম করতে নিরালস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন মেম্বার শফি উদ্দিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জনসভার নিরাপত্তায় থাকবে সাড়ে সাত হাজার পুলিশ বাহিনী প্রভাবশালীদের মেঘনার চর দখলের মহোৎসব ৩৭ বছর ভাত খান না ১৫ সন্তানের জননী জোহরা বিবি কিশোরগঞ্জের ভৈরব থেকে ৮৪ কেজি গাঁজা পাচারকালে ০২ মাদক কারবারীকে আটক  তালতলীতে নিলাম ব্যতীত সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ অপসংবাদিকতা, চাঁদাবাজি ও অর্থ আত্মসাৎ এর অভিযোগে ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিকে বহিষ্কার

গফরগাঁওয়ে সূর্যমুখীর বাম্পার ফলন

গফরগাঁও প্রতিনিধি ॥

মুজিববর্ষে করোনা মহামারী কালে ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে প্রথমবারের মতো ব্র‏‏হ্মপুত্র নদীর পাড়ে অনাবাদি, পতিত জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করে সফলতার স্বপ্ন বুনছেন তাজমুন আহম্মেদ ও মুফিদুল ইসলাম টিপু নামে ২ যুবক। একটু একটু করে স্বপ্ন দেখে আজ তারা আর্থিক সাফল্যের ধারপ্রান্তে। প্রকৃতিকে আরও রাঙ্গিয়ে ব্র‏হ্মপুত্রর চরে সূর্যমুখী হলদে গালিচা বিছিয়ে অপরূপ সাঝে সাজিয়েছেন তারা। প্রতিদিন দুর-দুরান্ত থেকে সূর্যমুখীর সেই বাহারী রং দেখতে দর্শনার্থীরা ভিড় করছেন ব্র‏হ্মপুত্রের চরে। আর অনাবিল আনন্দ উপভোগ করছেন পৌরসভাসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের শত শত ভ্রমণ পিপাসু সাধারণ মানুষ। এমন চিত্র দেখা যায় উপজেলার চর শিলাসী এলাকায়।

সরজমিন ঘুরে দেখা যায়, সূর্যের ঝলকানিতে হলুদ রঙ্গের ঝলমল করছে চারপাশ। সকালে পূর্বদিকে তাকিয়ে হাসলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথেই সূর্যেও ঘুরে তার সাথে সাথে পরিবর্তন ঘটে ফুলেরও।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, কৃষি প্রণোদনার আওতায় চলতি মৌসুমে ৫০ জন প্রান্তিক কৃষকের মাঝে এক হেক্টর জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করা হয়েছে। রোগ বালাই রোধে ও পরিপক্ষ বীজ পেতে পরিমাণ মত সার প্রয়োগ করতে হয়। ব্র‏হ্মপুত্র নদের পাড়ে সূর্যমুখী ফুলের বাগানের মালিক তাজমুন আহম্মেদ বলেন, সখের বসবতি হয়েই কৃষি প্রতি আমার আগ্রহ জন্মেছে। এদিকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও বলেছেন, এক ইঞ্চি জায়গাও খালি রাখা যাবে না, সকলের বাড়ির আঙ্গিনা, উঠানসহ অনাবাদি জমিতে শাক-সবজিসহ বিভিন্ন ফসল ফলানোর জোর তাগিদ দিয়েছেন। এই কথায় মোহ হয়ে চলতি বছর ৩২ কাটা জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছি। ফলন ভাল হলে আগামীতে আরও জমির পরিমাণ বাড়িয়ে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করার ইচ্ছে রয়েছে। তিনি আরও বলেন, সূর্যমুখী বাগানের মাঝেই মৌচাষ করেছি। আশা করছি মধুর ফলনও ভাল হবে। ইতি মধ্যে প্রায় ৪০ লিটার মধু সংগ্রহ করেছি।

অপর যুবক মফিদুল ইসলাম টিপু বলেন, আমরা সূর্যমুখী চাষ, মধু চাষ, হাঁস ও গরুর খামার করে স্থানীয় যুবকদের সাবলম্বী করার বা সফল খামারী হিসাবে অন্যান্য যুবকদেরকে উদ্ধোদ্ভ করছি। আশা করছি সূর্যমুখী এবং মধু চাষ করে ৩ মাসেই লক্ষাধিক টাকা আয় করতে পারব।

ময়মনসিংহ জেলা হর্টিকালচারের অতিরিক্ত পরিচালক ড. উম্মে হাবিবা বলেন, বাংলাদেশে সূর্যমুখী ফুলের চাষ নিয়ে সম্প্রতি চীনের রাষ্টীয় বার্তা সংস্থা সিংহুয়া সূর্যমুখী ফুল নিয়ে বড় একটি ফটো ফিচার প্রকাশ করেছে এবং আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম গ্লোবাল টাইমসের এক প্রতিবেদনে ওঠে এসেছে এই সূর্যমুখী ফুলের প্রশংসা। এছাড়া দুবাই ভিত্তিক আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা বিগ নিউজ নেটওর্য়াক মাইক্রোসফ্ট করপোরেশনের মারিকাধীন ওয়েব পোর্টাল এমএসএনের চীনা সংস্করনের একাধিক ছবি প্রকাশ হয়েছে। সৌন্দজ্যের পাশাপাশি এ ফুলে রয়েছে অনেক গুনাগুণ। বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশে^র সর্বোৎকৃষ্ট মানের ভোজ্যতেল সূর্যমুখী স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। সূর্যমুখীর বীজে রয়েছে উন্নতমানের ভিটামিন ই যা অ্যান্টি-অক্সিজেন হিসেবে কাজ করে। নিয়মিত এটি খেলে অস্টিওআর্থারাইটিস, অ্যাজমা ও বাতরোগ নিরাময় হয়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, সূর্যমুখী ফুলের চাষে রোগ বালাই কম। এই ফুল চাষ করতে বিঘা প্রতি খরচও কম। তাই আগামীতে এর চাষ যাতে বৃদ্ধি পায় তার জন্য কাজ করে যাচ্ছে গফরগাঁও উপজেলা কৃষি বিভাগ।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

আশুলিয়ায় চাঁদা না পেয়ে নির্মানকাজে বাঁধা, নির্মানসামগ্রী লুট

গফরগাঁওয়ে সূর্যমুখীর বাম্পার ফলন

আপডেট টাইম : ০৫:৫৯:২৮ পূর্বাহ্ণ, শুক্রবার, ৯ এপ্রিল ২০২১

গফরগাঁও প্রতিনিধি ॥

মুজিববর্ষে করোনা মহামারী কালে ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে প্রথমবারের মতো ব্র‏‏হ্মপুত্র নদীর পাড়ে অনাবাদি, পতিত জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করে সফলতার স্বপ্ন বুনছেন তাজমুন আহম্মেদ ও মুফিদুল ইসলাম টিপু নামে ২ যুবক। একটু একটু করে স্বপ্ন দেখে আজ তারা আর্থিক সাফল্যের ধারপ্রান্তে। প্রকৃতিকে আরও রাঙ্গিয়ে ব্র‏হ্মপুত্রর চরে সূর্যমুখী হলদে গালিচা বিছিয়ে অপরূপ সাঝে সাজিয়েছেন তারা। প্রতিদিন দুর-দুরান্ত থেকে সূর্যমুখীর সেই বাহারী রং দেখতে দর্শনার্থীরা ভিড় করছেন ব্র‏হ্মপুত্রের চরে। আর অনাবিল আনন্দ উপভোগ করছেন পৌরসভাসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের শত শত ভ্রমণ পিপাসু সাধারণ মানুষ। এমন চিত্র দেখা যায় উপজেলার চর শিলাসী এলাকায়।

সরজমিন ঘুরে দেখা যায়, সূর্যের ঝলকানিতে হলুদ রঙ্গের ঝলমল করছে চারপাশ। সকালে পূর্বদিকে তাকিয়ে হাসলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথেই সূর্যেও ঘুরে তার সাথে সাথে পরিবর্তন ঘটে ফুলেরও।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, কৃষি প্রণোদনার আওতায় চলতি মৌসুমে ৫০ জন প্রান্তিক কৃষকের মাঝে এক হেক্টর জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করা হয়েছে। রোগ বালাই রোধে ও পরিপক্ষ বীজ পেতে পরিমাণ মত সার প্রয়োগ করতে হয়। ব্র‏হ্মপুত্র নদের পাড়ে সূর্যমুখী ফুলের বাগানের মালিক তাজমুন আহম্মেদ বলেন, সখের বসবতি হয়েই কৃষি প্রতি আমার আগ্রহ জন্মেছে। এদিকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও বলেছেন, এক ইঞ্চি জায়গাও খালি রাখা যাবে না, সকলের বাড়ির আঙ্গিনা, উঠানসহ অনাবাদি জমিতে শাক-সবজিসহ বিভিন্ন ফসল ফলানোর জোর তাগিদ দিয়েছেন। এই কথায় মোহ হয়ে চলতি বছর ৩২ কাটা জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছি। ফলন ভাল হলে আগামীতে আরও জমির পরিমাণ বাড়িয়ে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করার ইচ্ছে রয়েছে। তিনি আরও বলেন, সূর্যমুখী বাগানের মাঝেই মৌচাষ করেছি। আশা করছি মধুর ফলনও ভাল হবে। ইতি মধ্যে প্রায় ৪০ লিটার মধু সংগ্রহ করেছি।

অপর যুবক মফিদুল ইসলাম টিপু বলেন, আমরা সূর্যমুখী চাষ, মধু চাষ, হাঁস ও গরুর খামার করে স্থানীয় যুবকদের সাবলম্বী করার বা সফল খামারী হিসাবে অন্যান্য যুবকদেরকে উদ্ধোদ্ভ করছি। আশা করছি সূর্যমুখী এবং মধু চাষ করে ৩ মাসেই লক্ষাধিক টাকা আয় করতে পারব।

ময়মনসিংহ জেলা হর্টিকালচারের অতিরিক্ত পরিচালক ড. উম্মে হাবিবা বলেন, বাংলাদেশে সূর্যমুখী ফুলের চাষ নিয়ে সম্প্রতি চীনের রাষ্টীয় বার্তা সংস্থা সিংহুয়া সূর্যমুখী ফুল নিয়ে বড় একটি ফটো ফিচার প্রকাশ করেছে এবং আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম গ্লোবাল টাইমসের এক প্রতিবেদনে ওঠে এসেছে এই সূর্যমুখী ফুলের প্রশংসা। এছাড়া দুবাই ভিত্তিক আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা বিগ নিউজ নেটওর্য়াক মাইক্রোসফ্ট করপোরেশনের মারিকাধীন ওয়েব পোর্টাল এমএসএনের চীনা সংস্করনের একাধিক ছবি প্রকাশ হয়েছে। সৌন্দজ্যের পাশাপাশি এ ফুলে রয়েছে অনেক গুনাগুণ। বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশে^র সর্বোৎকৃষ্ট মানের ভোজ্যতেল সূর্যমুখী স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। সূর্যমুখীর বীজে রয়েছে উন্নতমানের ভিটামিন ই যা অ্যান্টি-অক্সিজেন হিসেবে কাজ করে। নিয়মিত এটি খেলে অস্টিওআর্থারাইটিস, অ্যাজমা ও বাতরোগ নিরাময় হয়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, সূর্যমুখী ফুলের চাষে রোগ বালাই কম। এই ফুল চাষ করতে বিঘা প্রতি খরচও কম। তাই আগামীতে এর চাষ যাতে বৃদ্ধি পায় তার জন্য কাজ করে যাচ্ছে গফরগাঁও উপজেলা কৃষি বিভাগ।