ঢাকা ০৭:৪৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
ফুলবাড়ী উপজেলা স্কাউটস ভবন কাজের ভিত্তি স্থাপন ও শীতকালী ক্রীড়া প্রতিযোগীর শুভ উদ্বোধন লক্ষ্মীপুরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন,ঘাতক ভাই আটক জমি বিরোধের জের- বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা পুলিশের অসহযোগীর অভিযোগ ওয়াজ মাহফিল ইসলাম প্রচারের চমৎকার এক মাধ্যম: মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম সাহেব বশেমুরবিপ্রবিতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা দাউদকান্দি হাইওয়েতে সড়ক দুর্ঘটনায় একজনের মৃত্যু চট্রগ্রামের আলিচিত আয়াত হত্যা দেহের দুই টুকরার খোঁজ মিলেছে সাগরপাড়ে তারাকান্দায় জেলা প্রশাসকের বদলি জনিত বিদায় সংবর্ধনা নৌবাহিনী তে চাকুরীর প্রলোভনে ৩ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন ইব্রাহিম দুলাল আশুলিয়ায় চাঁদা না পেয়ে নির্মানকাজে বাঁধা, নির্মানসামগ্রী লুট

ফরিদপুর জেলায় শিশু হত্যা মামলায় রেহাই পেতে প্রশাসনকে ম্যানেজের চেষ্টায় জুয়েল পরিবার

নিজস্ব প্রতিবেদক।। 

ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী থানায়,শিশুহত্যা নারীনির্যাতন মামলার প্রধান আসামী জুয়েল পলাতক।
গত ১৭/২/২০২১ বুধবার বেলা এগারোটায় ৩ নং আসামী আরিফ হোসেন পিকু অত্র  মামলা থেকে জামিন নিতে আদালতের দ্বারাস্থ হলে,ফরিদপুর জেলা দায়রা জজ আদালত উক্ত জামিন নামা না মন্জুর করে তাকে জেল হাজতে প্রেরন করেন।আাসমীকে ছাড়াতে মামালার ২ নং আসামীর শাশুড়ী জাহানারা বেগম মোটা অংকের অর্থ নিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে ছোটাছুটি করছেন বলে জানাযায়।১ নং আাসমী জুয়েল নিজের মোবাইল ফোন নংটি দিয়ে মামলার বাদীপক্ষকে প্রাননাসের হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন।মাঝে মধ্যে নংটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।অপর দিকে ভুক্তভোগী বাদী সামিয়া আক্তার পপি, বলেন ঃআইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে আদালতের দারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আমি এক হতভাগা মা,এক পুত্র সন্তন নিয়ে পিতার পরিচয়ে লালন পালন করতে আইনের দারাস্থ আমি,কি অপরাধ আমার,কি অপরাধ ছয় মাসের অবুুঝ শিশুর। কি অপরাধ আমার জন্মদাঁতা পিতার, জামাতাকে প্রতিষ্ঠিত করতে,ব্যবসা করতে পুনরায় নগদ অর্থ প্রদান। তার পরেও কেনো আমার প্রতি,আমার বাবা মায়ের প্রতি,আমার অবুজ শিশুর প্রতি এমন নিষ্ঠুর ব্যবহার।তবে হ্যা আমার অপরাধ আছে আমি সন্তানকে খুন করতে পারিনি,আমি ওদের কথায় রাজি হয়নি,আমি এ্যাবারেশনটা করেনি।আমি ফুটফুটে সোনার চাঁদকে হত্যাকরেনি।কেনো আমাকে ও আমার সন্তানকে অবহেলার অবজ্ঞায় ফেলে রাখবে।কেনো আমার সংসার ভাঙবে।গণমাধ্যমকর্মীদের পর্যবেক্ষনে বেরিয়ে আসেন চাঞ্চল্যকর তথ্য।ভুক্তভুগি বাদীর শাশুড়ী জাহানারা বেগম অত্যাচার চালিয়ে যাচ্ছেন বৌমাকে তাড়িয়ে দিয়ে পুত্রকে দ্বিতীয় বিবাহ দিয়ে লাহবান করতে।নিজ স্বামীকে অবজ্ঞা করে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিতে সোনা জায়।তার জামাতা আরিফ হোসেন পিকুর যুক্তিতেই শাশুড়ী জাহানারা বেগম বেপরোয়া।১ নং আসামী জুয়েল হোসেন লোভের বসিভুত হয়ে,সংসারে মনোযোগী নয়,একাধিক নারী সঙ্গী থাকায় শিশু পুত্র ও স্ত্রীকে ত্যাগ করার সিধ্যান্তে মেতেছেন।ময় মুরুব্বি মোড়ল মাদবর ইউপি সদস্য চেয়ারম্যান উপজেলা চেয়ারম্যান প্রশাসনের সকল দপ্তর বোঝানোর চেষ্টা করেও কোনো কাজ হয়নাই।সকলকে টেক্কা দিয়ে আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুলী দেখিয়ে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ন্যায় চলছেন তিনি।ভুক্তভোগী বাদীর পিতা মোঃ শামছুল আলম বলেন।আমি সন্তানের পিতা,আমি আইনকে শ্রদ্ধা করি,আইনের প্রতি সম্মান জানিয়ে আইনের দ্বারাস্থ হয়েছি,আইনের চোঁখ কেনো অন্ধ,আমার মত সন্তানের পিতা কেনো প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াবে।কেনো জনপ্রতিনিধিদের দ্বারাস্থ হয়েও পাচ্ছিনা সুবিচার।কেনো মামলা করেও বাদীপক্ষকে থাকতে হয় মরন আতঙ্কে।আর কত পিতা এমনই নরক যন্ত্রণার পথ অবলম্বন করবে।কেনো মামলা করে আসামী পক্ষের হাতে লান্ছিত হয়ে থাকতে হবে হাসপাতালের বেডে।বিচারের বানী কেনো নির্বাক নিভৃতে কাঁদে।আমি এক হতভাগা পিতা আমি জাতীর কাছে বিচার চাই।আমার  অপরাধ কি একটি বার বলুন,আমি আমার বিচার করবো আমার বিচার করতে কোনো লোক লাগবেনা আমিই যতেষ্ট।মামলার আসামীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দিতে প্রশাসনের আশুহস্থক্ষেপ কামনা করেন শামছুল আলম সহ এলাকর সকল শ্রেনী পেশার মানুষ।
আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

ফুলবাড়ী উপজেলা স্কাউটস ভবন কাজের ভিত্তি স্থাপন ও শীতকালী ক্রীড়া প্রতিযোগীর শুভ উদ্বোধন

ফরিদপুর জেলায় শিশু হত্যা মামলায় রেহাই পেতে প্রশাসনকে ম্যানেজের চেষ্টায় জুয়েল পরিবার

আপডেট টাইম : ০২:৪৬:১৯ অপরাহ্ণ, সোমবার, ২৯ মার্চ ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক।। 

ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী থানায়,শিশুহত্যা নারীনির্যাতন মামলার প্রধান আসামী জুয়েল পলাতক।
গত ১৭/২/২০২১ বুধবার বেলা এগারোটায় ৩ নং আসামী আরিফ হোসেন পিকু অত্র  মামলা থেকে জামিন নিতে আদালতের দ্বারাস্থ হলে,ফরিদপুর জেলা দায়রা জজ আদালত উক্ত জামিন নামা না মন্জুর করে তাকে জেল হাজতে প্রেরন করেন।আাসমীকে ছাড়াতে মামালার ২ নং আসামীর শাশুড়ী জাহানারা বেগম মোটা অংকের অর্থ নিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে ছোটাছুটি করছেন বলে জানাযায়।১ নং আাসমী জুয়েল নিজের মোবাইল ফোন নংটি দিয়ে মামলার বাদীপক্ষকে প্রাননাসের হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন।মাঝে মধ্যে নংটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।অপর দিকে ভুক্তভোগী বাদী সামিয়া আক্তার পপি, বলেন ঃআইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে আদালতের দারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আমি এক হতভাগা মা,এক পুত্র সন্তন নিয়ে পিতার পরিচয়ে লালন পালন করতে আইনের দারাস্থ আমি,কি অপরাধ আমার,কি অপরাধ ছয় মাসের অবুুঝ শিশুর। কি অপরাধ আমার জন্মদাঁতা পিতার, জামাতাকে প্রতিষ্ঠিত করতে,ব্যবসা করতে পুনরায় নগদ অর্থ প্রদান। তার পরেও কেনো আমার প্রতি,আমার বাবা মায়ের প্রতি,আমার অবুজ শিশুর প্রতি এমন নিষ্ঠুর ব্যবহার।তবে হ্যা আমার অপরাধ আছে আমি সন্তানকে খুন করতে পারিনি,আমি ওদের কথায় রাজি হয়নি,আমি এ্যাবারেশনটা করেনি।আমি ফুটফুটে সোনার চাঁদকে হত্যাকরেনি।কেনো আমাকে ও আমার সন্তানকে অবহেলার অবজ্ঞায় ফেলে রাখবে।কেনো আমার সংসার ভাঙবে।গণমাধ্যমকর্মীদের পর্যবেক্ষনে বেরিয়ে আসেন চাঞ্চল্যকর তথ্য।ভুক্তভুগি বাদীর শাশুড়ী জাহানারা বেগম অত্যাচার চালিয়ে যাচ্ছেন বৌমাকে তাড়িয়ে দিয়ে পুত্রকে দ্বিতীয় বিবাহ দিয়ে লাহবান করতে।নিজ স্বামীকে অবজ্ঞা করে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিতে সোনা জায়।তার জামাতা আরিফ হোসেন পিকুর যুক্তিতেই শাশুড়ী জাহানারা বেগম বেপরোয়া।১ নং আসামী জুয়েল হোসেন লোভের বসিভুত হয়ে,সংসারে মনোযোগী নয়,একাধিক নারী সঙ্গী থাকায় শিশু পুত্র ও স্ত্রীকে ত্যাগ করার সিধ্যান্তে মেতেছেন।ময় মুরুব্বি মোড়ল মাদবর ইউপি সদস্য চেয়ারম্যান উপজেলা চেয়ারম্যান প্রশাসনের সকল দপ্তর বোঝানোর চেষ্টা করেও কোনো কাজ হয়নাই।সকলকে টেক্কা দিয়ে আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুলী দেখিয়ে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ন্যায় চলছেন তিনি।ভুক্তভোগী বাদীর পিতা মোঃ শামছুল আলম বলেন।আমি সন্তানের পিতা,আমি আইনকে শ্রদ্ধা করি,আইনের প্রতি সম্মান জানিয়ে আইনের দ্বারাস্থ হয়েছি,আইনের চোঁখ কেনো অন্ধ,আমার মত সন্তানের পিতা কেনো প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াবে।কেনো জনপ্রতিনিধিদের দ্বারাস্থ হয়েও পাচ্ছিনা সুবিচার।কেনো মামলা করেও বাদীপক্ষকে থাকতে হয় মরন আতঙ্কে।আর কত পিতা এমনই নরক যন্ত্রণার পথ অবলম্বন করবে।কেনো মামলা করে আসামী পক্ষের হাতে লান্ছিত হয়ে থাকতে হবে হাসপাতালের বেডে।বিচারের বানী কেনো নির্বাক নিভৃতে কাঁদে।আমি এক হতভাগা পিতা আমি জাতীর কাছে বিচার চাই।আমার  অপরাধ কি একটি বার বলুন,আমি আমার বিচার করবো আমার বিচার করতে কোনো লোক লাগবেনা আমিই যতেষ্ট।মামলার আসামীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দিতে প্রশাসনের আশুহস্থক্ষেপ কামনা করেন শামছুল আলম সহ এলাকর সকল শ্রেনী পেশার মানুষ।