ঢাকা ০৬:১১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::

আজ সাবেক প্রতিমন্ত্রী দুলুর আবেদনের শুনানি ১ এপ্রিল

স্টাফ রিপোর্টার॥

দুর্নীতির অভিযোগে করা মামলার কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর আবেদনের শুনানি ১ এপ্রিল ধার্য করেছেন আদালত। রবিবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন। আদালতে দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। দুলুর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ইউসুফ আলী।

২০০৭ সালে জ্ঞাত আয়বর্হিভূত ৯ কোটি ৩০ লাখ ৮০ হাজার টাকা অর্জনের অভিযোগে আদাবর থানায় মামলা করে দুদক। এ মামলায় একই বছরের ২৯ আগস্ট অভিযোগ গঠন করে আদালত। পরে মামলা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করে দুলু। হাইকোর্ট দুলুর আবেদন গ্রহণ করে ২০১২ সালের ১৮ জুলাই মামলাটি বাতিল করে দেন। এর বিরুদ্ধে আপীলে যায় দুদক।

২০১৫ সালের ২ নভেম্বর আপীল বিভাগ দুদকের আবেদন গ্রহণ করে হাইকোর্টের রায় বাতিলের আদেশ দেন। এ আদেশের পর ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-১ এ দুলুর বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলার কার্যক্রম শুরু হয়। খুরশিদ আলম খান বলেন, এ মামলায় বিচারিক আদালতে ৩৩ জনের সাক্ষী হয়েছে। এ অবস্থায় ৩৪৪ ধারা এ ওনারা (আসামিপক্ষ) একটি আবেদন করেছেন। যেটি বিচারিক আদালতে খারিজ হয়ে গেছে। এখন হাইকোর্টে আবেদন করেছেন।

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

পাকুন্দিয়ায় পুলিশের অভিজানে চোরাই মোটরসাইকেল সহ ১ জন আটক

আজ সাবেক প্রতিমন্ত্রী দুলুর আবেদনের শুনানি ১ এপ্রিল

আপডেট টাইম : ১০:৩৫:৫৭ পূর্বাহ্ণ, রবিবার, ২৮ মার্চ ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার॥

দুর্নীতির অভিযোগে করা মামলার কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর আবেদনের শুনানি ১ এপ্রিল ধার্য করেছেন আদালত। রবিবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন। আদালতে দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। দুলুর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ইউসুফ আলী।

২০০৭ সালে জ্ঞাত আয়বর্হিভূত ৯ কোটি ৩০ লাখ ৮০ হাজার টাকা অর্জনের অভিযোগে আদাবর থানায় মামলা করে দুদক। এ মামলায় একই বছরের ২৯ আগস্ট অভিযোগ গঠন করে আদালত। পরে মামলা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করে দুলু। হাইকোর্ট দুলুর আবেদন গ্রহণ করে ২০১২ সালের ১৮ জুলাই মামলাটি বাতিল করে দেন। এর বিরুদ্ধে আপীলে যায় দুদক।

২০১৫ সালের ২ নভেম্বর আপীল বিভাগ দুদকের আবেদন গ্রহণ করে হাইকোর্টের রায় বাতিলের আদেশ দেন। এ আদেশের পর ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-১ এ দুলুর বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলার কার্যক্রম শুরু হয়। খুরশিদ আলম খান বলেন, এ মামলায় বিচারিক আদালতে ৩৩ জনের সাক্ষী হয়েছে। এ অবস্থায় ৩৪৪ ধারা এ ওনারা (আসামিপক্ষ) একটি আবেদন করেছেন। যেটি বিচারিক আদালতে খারিজ হয়ে গেছে। এখন হাইকোর্টে আবেদন করেছেন।