ঢাকা ১০:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
তারাকান্দায় যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল ফুলপুরে অবৈধ বালু উত্তোলন করছে ক্ষমতাশালী ব্যক্তিরা, ধ্বংসের মুখে কংশের নদীর তীরের বাসিন্দারা মহানগরের নেতা-কর্মীদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার মেয়র টিটুর নতুন রোড নির্মান কাজের শুভ উদ্বোধন করলেন চেয়ারম্যান মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ফোরাম সভা অনুষ্ঠীত হচ্ছে-জাতীয় প্রেস ক্লাবে প্রধানমন্ত্রীর বেঙ্গচিএ ছবি ফেইসবুকে পোস্ট করার কারণে ছাত্রদল ক্যাডার শাওন আলী গ্রেফতার ট্রেন ঘুর্ঘটনা রুখতে চার বন্ধু আবিষ্কার করেছে ডিজিটাল রেল ক্রসিং পিডিএফ এর উদ্যোগে বশেমুরবিপ্রবিতে বিশ্ব ও জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস পালিত তথ্যমন্ত্রী বলেছেন জনসভায় খালেদা জিয়ার যাওয়ার চিন্তা অলীক ও উদ্ভট আগামী ৭ জানুয়ারী থেকে নড়াইলে সুলতান মেলা শুরু

চলে গেলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের প্রথম নারী কণ্ঠশিল্পী নমিতা ঘোষ

সময়ের কন্ঠ রিপোর্ট।।

চলে গেলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের প্রথম নারী কণ্ঠশিল্পী নমিতা ঘোষ। ১৯৭১ সালে, মাত্র ১৪ বছর বয়সেই নিজ কণ্ঠ দিয়ে যুদ্ধ করেছিলেন তিনি।

২৭ মার্চ রাতে বুড়িগঙ্গা পেরিয়ে কেরানীগঞ্জ দিয়ে কুমিল্লা হয়ে তখনকার দুর্গম এবং বিপজ্জনক পথ পেরিয়ে তিনি চলে যান আগরতলা। পরিচিত হন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের সঙ্গে। সে সময় সেখানে একটি প্রামাণ্য চিত্র তৈরির কাজ চলছিল। সেটিতে অংশ নেন নমিতা ঘোষ। পরে সেটি ভারতের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা হয়।

প্রামাণ্য চিত্রের শুটিং শেষে তিনি আগরতলা থেকে কলকাতায় যান। যোগদেন স্বাধীনবাংলা বেতার কেন্দ্রে। সেখানে প্রথম নারী কণ্ঠশিল্পী নমিতা ঘোষ।

গত ১২ মার্চ বাংলাদেশ টেলিভিশনের একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেন নমিতা ঘোষ। এর পরপরই তিনি অসুস্থ হয়ে প্রথমে আজগর আলী হাসপাতালে, পরে মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। এরপর অবস্থার অবনতি হতে থাকলে তাকে পপুলার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই ২৬ মার্চ দিবাগত রাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন নমিতা ঘোষ।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

তারাকান্দায় যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল

চলে গেলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের প্রথম নারী কণ্ঠশিল্পী নমিতা ঘোষ

আপডেট টাইম : ০৭:৩৫:০৬ পূর্বাহ্ণ, শনিবার, ২৭ মার্চ ২০২১

সময়ের কন্ঠ রিপোর্ট।।

চলে গেলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের প্রথম নারী কণ্ঠশিল্পী নমিতা ঘোষ। ১৯৭১ সালে, মাত্র ১৪ বছর বয়সেই নিজ কণ্ঠ দিয়ে যুদ্ধ করেছিলেন তিনি।

২৭ মার্চ রাতে বুড়িগঙ্গা পেরিয়ে কেরানীগঞ্জ দিয়ে কুমিল্লা হয়ে তখনকার দুর্গম এবং বিপজ্জনক পথ পেরিয়ে তিনি চলে যান আগরতলা। পরিচিত হন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের সঙ্গে। সে সময় সেখানে একটি প্রামাণ্য চিত্র তৈরির কাজ চলছিল। সেটিতে অংশ নেন নমিতা ঘোষ। পরে সেটি ভারতের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা হয়।

প্রামাণ্য চিত্রের শুটিং শেষে তিনি আগরতলা থেকে কলকাতায় যান। যোগদেন স্বাধীনবাংলা বেতার কেন্দ্রে। সেখানে প্রথম নারী কণ্ঠশিল্পী নমিতা ঘোষ।

গত ১২ মার্চ বাংলাদেশ টেলিভিশনের একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেন নমিতা ঘোষ। এর পরপরই তিনি অসুস্থ হয়ে প্রথমে আজগর আলী হাসপাতালে, পরে মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। এরপর অবস্থার অবনতি হতে থাকলে তাকে পপুলার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই ২৬ মার্চ দিবাগত রাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন নমিতা ঘোষ।