ঢাকা ০৬:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
মেট্রোরেল স্টেশনের ধ্বংসলীলা দেখে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী রুশ এমআই-২৮ সামরিক হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত মস্কোর দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত কালুগা অঞ্চলে আজ বৃহস্পতিবার হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয় কে হামলা চালাবে—বিএনপির নীল নকশা আগেই প্রস্তুত ছিল: কাদের ৪ দিন কোথায় কী অবস্থায় ছিলেন সমন্বয়ক আসিফ সারা দেশে হাজারো প্রাণ কেড়ে নেওয়ার ব্যাপারে সরকার কোনো কথা বলছে না: মির্জা ফখরুল সব ধরনের সহিংসতার হুমকি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র ডিএমপির তিন যুগ্ম-কমিশনারকে স্থান বদলি বাসে আগুন দিতে ৪ লাখ টাকায় চুক্তি, শ্রমিক লীগ নেতা গ্রেপ্তার রোকেয়া হলে ছাত্রলীগ নেত্রীদের হলছাড়া করল আন্দোলনকারীরা আন্দোলনকারীদের মৃত্যুর জন্য সরকারের পক্ষ থেকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে, ৩৩ নাগরিকের বিবৃতি বিবৃতিতে বলা হয়, দাবি আদায় করতে হয় জীবনের বিনিময়ে বা দমন করতে হয় হত্যা করে

ঘুর্নিঝড় রেমাল ভাসিয়ে নিয়ে গেছে শুটকি পল্লির ৩০ পরিবারের স্বপ্ন

  • আপডেট টাইম : ০৯:৩৩:৫১ পূর্বাহ্ণ, রবিবার, ২ জুন ২০২৪
  • / ৬৪ ৫০০.০০০ বার পাঠক

বড় মাছুয়া থেকে তুলাতলা শুটকি পল্লি পর্যন্ত বেড়িবাঁধ বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড় রেমাল ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। তার সাথে ভাসিয়ে নিয়ে গেছে তুলাতলা শুটকি পল্লির এিশটি পরিবারের তিলেতিলে গাড়া বেঁচে থাকার স্বপ্ন। স্বামীহারা বকুল (৬০) শুটকি পল্লিতে দিনমজুরি কাজ করে কোন রকম জীবিকা নির্বাহ করেন,সবকিছু হারিয়ে এখন৷ নদীর পাড়ে নির্বাক হয়ে বসে থাকে। অনাহারে অর্ধাহারে চলছে দিন। তার পাশাপাশি শিউলি বেগম বাড়িঘর সবকিছু হারিয়ে এখন নিঃস্ব। বকুল ও শিউলি বেগমের একটাই চাওয়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাদেরকে একটু আর্থিকভাবে সাহায্য করলে তারা এিশটি পরিবার শুটকি পল্লী নিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। এই শুটকি পল্লী থেকে শুটকি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে, বিশেষ করে চট্টগ্রাম আসাদ গঞ্জ রপ্তানি করা হয়। এই শুটকি পল্লী থেকে বছরে আয় হয় দশলাখ টাকাও বেশি। এই আয়ের টাকা দিয়েই শুটকি পল্লির এিশটি পরিবার জীবিকা নির্বাহ করে। শুটকি পল্লীর মালিক মোহাম্মদ গাফফার মিয়া,সময়ের কণ্ঠকে জানান। তার ২০ থেকে ২৫ লক্ষ টাকার মতো ক্ষতি হয়েছে।তিনি লক্ষ লক্ষ টাকা লোন করে এই শুটকি পল্লি পরিচালনা করে আসছিলেন। এখন তিনি দিশেহারা লোনের টাকা পরিশোধ করবেন কি করে। সরকার যদি আর্থিক সাহায্য করেন তাহলে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। মঠবাড়িয়া একমাত্র তুলাতলা শুটকি পল্লি।

আরো খবর.......

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ঘুর্নিঝড় রেমাল ভাসিয়ে নিয়ে গেছে শুটকি পল্লির ৩০ পরিবারের স্বপ্ন

আপডেট টাইম : ০৯:৩৩:৫১ পূর্বাহ্ণ, রবিবার, ২ জুন ২০২৪

বড় মাছুয়া থেকে তুলাতলা শুটকি পল্লি পর্যন্ত বেড়িবাঁধ বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড় রেমাল ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। তার সাথে ভাসিয়ে নিয়ে গেছে তুলাতলা শুটকি পল্লির এিশটি পরিবারের তিলেতিলে গাড়া বেঁচে থাকার স্বপ্ন। স্বামীহারা বকুল (৬০) শুটকি পল্লিতে দিনমজুরি কাজ করে কোন রকম জীবিকা নির্বাহ করেন,সবকিছু হারিয়ে এখন৷ নদীর পাড়ে নির্বাক হয়ে বসে থাকে। অনাহারে অর্ধাহারে চলছে দিন। তার পাশাপাশি শিউলি বেগম বাড়িঘর সবকিছু হারিয়ে এখন নিঃস্ব। বকুল ও শিউলি বেগমের একটাই চাওয়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাদেরকে একটু আর্থিকভাবে সাহায্য করলে তারা এিশটি পরিবার শুটকি পল্লী নিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। এই শুটকি পল্লী থেকে শুটকি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে, বিশেষ করে চট্টগ্রাম আসাদ গঞ্জ রপ্তানি করা হয়। এই শুটকি পল্লী থেকে বছরে আয় হয় দশলাখ টাকাও বেশি। এই আয়ের টাকা দিয়েই শুটকি পল্লির এিশটি পরিবার জীবিকা নির্বাহ করে। শুটকি পল্লীর মালিক মোহাম্মদ গাফফার মিয়া,সময়ের কণ্ঠকে জানান। তার ২০ থেকে ২৫ লক্ষ টাকার মতো ক্ষতি হয়েছে।তিনি লক্ষ লক্ষ টাকা লোন করে এই শুটকি পল্লি পরিচালনা করে আসছিলেন। এখন তিনি দিশেহারা লোনের টাকা পরিশোধ করবেন কি করে। সরকার যদি আর্থিক সাহায্য করেন তাহলে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। মঠবাড়িয়া একমাত্র তুলাতলা শুটকি পল্লি।