ঢাকা ১২:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাতে অংশ নেন হাজারো তাসলিমা স্ত্রীর বিরুদ্ধে লিঙ্গ কাটার অভিযোগে সাংবাদিক সম্মেলন ঈদ উপলক্ষ্যে ঘরমুখী মানুষ ঝুঁকি নিয়ে পিকআপ ট্রাক ও বাসের ছাদে ঢাকা মহানগর পুলিশের দুই কর্মকর্তা বদলি গতকাল শুক্রবার বিকেল চারটায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন আহমেদের গাড়ি্ বহরে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে বিএমপি কাউনিয়া থানার অভিযানে ০৫ কেজি গাঁজাসহ আটক ০১ জন লাব্বাঈক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক’এই ধনীতে প্রকম্পিত আরাফাতের ময়দান ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ১৪ কিলোমিটার যানজট, ধীরগতি সেন্টমার্টিনে যাতায়াত বন্ধের ৮ দিন পর পৌঁছালো খাদ্যপণ্য আরাফার দিনে রোজা রাখার ফজিলত। দুধরচকী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে ছাত্র শিক্ষক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন

  • সময়ের কন্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : ০৮:৪০:৫০ অপরাহ্ণ, শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১
  • ২৭৯ ০.০০০ বার পাঠক

রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি।।

রাজশাহীতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে মহানগরের জিরো পয়েন্টে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শনিবার বেলা ১১টায় ‘ছাত্র-শিক্ষক-নাগরিক সমাজ, রাজশাহী জেলা’ ব্যানারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

নিম্নবর্ণিত শ্লোগান দেন মানববন্ধন আংশগ্রহন কারীরা–

‘শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণা ছাত্রসমাজ মানে না’, ‘শিক্ষামন্ত্রী করে কি? খাই দাই ঘুমাই নাকি’, ‘বেকারত্বের হাহাকার শিক্ষা মোদের অধিকার’, ‘দাবি মোদের একটাই মার্চেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা চাই’ এছাড়াও শ্লোগান লেখা  ফেস্টুন নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন তারা।

মানববন্ধনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ফোকলোর বিভাগের অধ্যাপক আমিরুল ইসলাম বলেন,

‘সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংসের গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। ছাত্র আন্দোলনের মুখোমুখি হওয়ার ভয়েই তারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিচ্ছে না। আজ আমাদের শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ অন্ধকারে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে।। আমাদের শিক্ষার্থীরা মেধাহীন প্রজন্ম হিসেবে গড়ে উঠছে। আমাদের সবাইকে এ ব্যাপারে সচেতন হতে হবে ও জোরালো দাবি জানাতে হবে।

রাবি শাখা — ছাত্র অধিকার পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক আমান উল্লাহ বলেন, ‘সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারনা করেছে, প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছে। শুধু আমরা নই আমাদের অভিভাবকরাও দিন দিন দুশ্চিন্তা ও অনিশ্চয়তায় দিনাতিপাত করছে। এমনকি হার্ট অ্যাটাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী মারাও গেছে। অবিলম্বে আমাদের দাবি মেনে নিন। নয়তো ছাত্রসমাজ মাঠে নামলে পালানোর পথ পাবেন না।’

রাজশাহী ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ মামুদ হাসান বলেন, ‘ঈদের আগে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হোক। শিক্ষার সাথে শুধু শিক্ষার্থীই নয়, আরও অনেক কিছুই জড়িত। রাজশাহী শিক্ষা নগরী৷ পিছিয়ে পড়া এ অঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্য শিক্ষার্থীদের সাথে সংশ্লিষ্ট। বর্তমানে শিক্ষার সাথে সাথে ব্যবাসাও পণ্ড হচ্ছে। আমরা এমন উন্নয়ন চাই না যেখানে মৌলিক অধিকার ক্ষুণ্ন হয়।’

মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা নুর হোসেন মোল্লা, অ্যাডভোকেট আবুল হাসনাত বেগ, রাজশাহী ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সভাপতি হারুনুর রশীদ,

রাজশাহী মহানগর ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি আব্দুল্লাহ বিন আফতাব,  সাহেববাজার বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি অশোক কুমার সাহা, রাকসু আন্দোলন মঞ্চের সমন্বয়ক আবদুল মজিদ অন্তর,

বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদের রাজশাহী মহানগর শাখা সদস্য মোঃ মহিবুল ইসলাম  সহ প্রমুখ।

মানববন্ধনটি সঞ্চালনা করেন অ্যাডভোকেট মুরাদ মোর্শেদ। এসময় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, পেশাজীবী, ব্যবসায়ী, সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাতে অংশ নেন হাজারো

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে ছাত্র শিক্ষক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন

আপডেট টাইম : ০৮:৪০:৫০ অপরাহ্ণ, শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি।।

রাজশাহীতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে মহানগরের জিরো পয়েন্টে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শনিবার বেলা ১১টায় ‘ছাত্র-শিক্ষক-নাগরিক সমাজ, রাজশাহী জেলা’ ব্যানারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

নিম্নবর্ণিত শ্লোগান দেন মানববন্ধন আংশগ্রহন কারীরা–

‘শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণা ছাত্রসমাজ মানে না’, ‘শিক্ষামন্ত্রী করে কি? খাই দাই ঘুমাই নাকি’, ‘বেকারত্বের হাহাকার শিক্ষা মোদের অধিকার’, ‘দাবি মোদের একটাই মার্চেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা চাই’ এছাড়াও শ্লোগান লেখা  ফেস্টুন নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন তারা।

মানববন্ধনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ফোকলোর বিভাগের অধ্যাপক আমিরুল ইসলাম বলেন,

‘সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংসের গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। ছাত্র আন্দোলনের মুখোমুখি হওয়ার ভয়েই তারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিচ্ছে না। আজ আমাদের শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ অন্ধকারে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে।। আমাদের শিক্ষার্থীরা মেধাহীন প্রজন্ম হিসেবে গড়ে উঠছে। আমাদের সবাইকে এ ব্যাপারে সচেতন হতে হবে ও জোরালো দাবি জানাতে হবে।

রাবি শাখা — ছাত্র অধিকার পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক আমান উল্লাহ বলেন, ‘সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারনা করেছে, প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছে। শুধু আমরা নই আমাদের অভিভাবকরাও দিন দিন দুশ্চিন্তা ও অনিশ্চয়তায় দিনাতিপাত করছে। এমনকি হার্ট অ্যাটাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী মারাও গেছে। অবিলম্বে আমাদের দাবি মেনে নিন। নয়তো ছাত্রসমাজ মাঠে নামলে পালানোর পথ পাবেন না।’

রাজশাহী ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ মামুদ হাসান বলেন, ‘ঈদের আগে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হোক। শিক্ষার সাথে শুধু শিক্ষার্থীই নয়, আরও অনেক কিছুই জড়িত। রাজশাহী শিক্ষা নগরী৷ পিছিয়ে পড়া এ অঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্য শিক্ষার্থীদের সাথে সংশ্লিষ্ট। বর্তমানে শিক্ষার সাথে সাথে ব্যবাসাও পণ্ড হচ্ছে। আমরা এমন উন্নয়ন চাই না যেখানে মৌলিক অধিকার ক্ষুণ্ন হয়।’

মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা নুর হোসেন মোল্লা, অ্যাডভোকেট আবুল হাসনাত বেগ, রাজশাহী ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সভাপতি হারুনুর রশীদ,

রাজশাহী মহানগর ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি আব্দুল্লাহ বিন আফতাব,  সাহেববাজার বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি অশোক কুমার সাহা, রাকসু আন্দোলন মঞ্চের সমন্বয়ক আবদুল মজিদ অন্তর,

বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদের রাজশাহী মহানগর শাখা সদস্য মোঃ মহিবুল ইসলাম  সহ প্রমুখ।

মানববন্ধনটি সঞ্চালনা করেন অ্যাডভোকেট মুরাদ মোর্শেদ। এসময় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, পেশাজীবী, ব্যবসায়ী, সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।