ঢাকা ০১:৪২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
ভাঙা কালভার্টের সড়কে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত দেশের ক্ষতি চায় বিএনপি’ভারতের সঙ্গে বৈরী সম্পর্ক সৃষ্টি করে রাশিয়ার দুটি জ্বালানি ডিপোতে ড্রোন হামলায় আগুন যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বেনজীর ও আছাদুজ্জামানের সম্পদ নিয়ে এবার মুখ খুললেন বছরে ৯২ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়: সাবেক পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী মতিউর রহমান একজন জাতীয় রাজস্ব কর্মকর্তা। বর্তমানে কাস্টমস তার বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদের পাহাড় রয়েছে সাবেক পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামানের দুর্নীতি তদন্তে নামছে দুদক? বেনজীর সময় পাবেনা আর জানালেন দুদক আইনজীবী রাজধানী যাত্রাবাড়ীতে স্ত্রীর লাশ ঘরে, পার্কিংয়ে স্বামীর লাশ

ফুলবাড়িতে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন অভিযোগ

  • সময়ের কন্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : ০৮:৫৬:৫৬ পূর্বাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১
  • ৩৬৬ ০.০০০ বার পাঠক

জাহাঙ্গীর আলম, দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি।।

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার ৫ নং খয়েরবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের মন্ডলের বিরুদ্ধে প্রধান মন্ত্রীর বরাদ্বকৃত ঘর দেওযার নামে ১৩ হাজার টাকা গ্রহনের বিষয়টি মিথ্যা, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ভিত্তিহীন বলে প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের মন্ডল।

এ বিষয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পকিবার দুপুরে উপজেলার খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের কৃষ্ণলালপুর গ্রামের স্বর্গীয় মুকুল চন্দ্র  রায়ের স্ত্রী বিধবা নমিতা রানী (৪২) এর বাড়ীতে গিয়ে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, অভাবের সংসারে দুই মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে কষ্টেই দিন কাটাচ্ছি। দীর্ঘদিন থেকে চেয়ারম্যান আবু তাহের মন্ডলের নিকট একটি ঘর চেয়ে আসছিলাম। তিনি ঘর দেবেন দেবেন করে অদ্যাবদি দেননাই। তবে তিনি ৫ বছরের জন্য মাটি কাটার কাজসহ সরকারি সকল সহযোগিতা দিয়ে আসছেন। আমার কাছ থেকে কোন টাকাপয়সা চেয়ারম্যান নেয় নাই।

কৃষ্ণলালপুর গ্রামের কুমত চন্দ্র রায়ের ছেলে বৃদ্ধ কাঞ্চু চন্দ্র রায়, সন্তষ রায়ের ছেলে মঞ্জু চন্দ্র রায় জানান, বাড়ীর জরাজীর্ণ অবস্থা দেখে বোঝা যায় যে, নমিতার পরিবারের জন্য একটি সরকারি ঘর প্রয়োজন।

এ বিষয়ে উপজেলার খয়েরবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের মন্ডল জানান, প্রধান মন্ত্রীর বরাদ্বকৃত আবাসনে ঘর দিতে চেয়েছি নমিতা রানী তা নিতে চাননি। নমিতা তাঁর বসত বাড়ির ভিটায় ঘর নির্মান করে চায়। এবরাদ্দ না থাকায় আমি তাঁকে ঘর দিতে পারি নাই। তবে সরকারের সব ধরনের সুযোগ সুবিধা তাঁর পরিবারের জন্য দিয়েছি। এ বিষয়ে নমিতার নিকট থেকে কোন টাকা পয়সা আমি নেইনাই। আমার বিরুদ্ধে অন্যের প্ররচনায় নমিতা মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

নমিতার দেবর স্বর্গীয় নিরাপদ রায়ের ছেলে বিপুল রায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে  নমিতাকে দিয়ে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন করিয়েছেন বিষয়টি নমিতার সাথে কথা বলার সময়ই জানা গেছে। কারণ নমিতার আত্নপক্ষ সমর্থনের বক্তব্য গ্রহনের সময় বার বার বিপুলের ধমকপূর্ণ প্রতিবাদ ও নমিতাকে বাঁধা দেওয়ার কারণ খেকে বোঝা যায়।

ইউনিয়নের কৃষ্ণলালপুরের পাশের গ্রামের রাশেদুল ইসলাম, মহদিপুরের তোফাজ্জলসহ বেশ কয়েকজন জানান, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের মন্ডলের আগামীতে আবারও চেয়ারম্যান হিসেবে অত্র ইউনিয়নে পূণবার নির্বাচিত হওয়ার সম্ভবনাময় সুনাম ও পরিবেশকে বাঁধাগ্রস্থ করতে তাঁর প্রতিদ্ধন্দিগণ নমিতার দেবর বিপুল রায়কে সঙ্গে নিয়ে এমন ঘৃণ্য চক্রান্ত করেন বলে জানিয়েছেন।

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ভাঙা কালভার্টের সড়কে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন

ফুলবাড়িতে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন অভিযোগ

আপডেট টাইম : ০৮:৫৬:৫৬ পূর্বাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১

জাহাঙ্গীর আলম, দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি।।

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার ৫ নং খয়েরবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের মন্ডলের বিরুদ্ধে প্রধান মন্ত্রীর বরাদ্বকৃত ঘর দেওযার নামে ১৩ হাজার টাকা গ্রহনের বিষয়টি মিথ্যা, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ভিত্তিহীন বলে প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের মন্ডল।

এ বিষয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পকিবার দুপুরে উপজেলার খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের কৃষ্ণলালপুর গ্রামের স্বর্গীয় মুকুল চন্দ্র  রায়ের স্ত্রী বিধবা নমিতা রানী (৪২) এর বাড়ীতে গিয়ে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, অভাবের সংসারে দুই মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে কষ্টেই দিন কাটাচ্ছি। দীর্ঘদিন থেকে চেয়ারম্যান আবু তাহের মন্ডলের নিকট একটি ঘর চেয়ে আসছিলাম। তিনি ঘর দেবেন দেবেন করে অদ্যাবদি দেননাই। তবে তিনি ৫ বছরের জন্য মাটি কাটার কাজসহ সরকারি সকল সহযোগিতা দিয়ে আসছেন। আমার কাছ থেকে কোন টাকাপয়সা চেয়ারম্যান নেয় নাই।

কৃষ্ণলালপুর গ্রামের কুমত চন্দ্র রায়ের ছেলে বৃদ্ধ কাঞ্চু চন্দ্র রায়, সন্তষ রায়ের ছেলে মঞ্জু চন্দ্র রায় জানান, বাড়ীর জরাজীর্ণ অবস্থা দেখে বোঝা যায় যে, নমিতার পরিবারের জন্য একটি সরকারি ঘর প্রয়োজন।

এ বিষয়ে উপজেলার খয়েরবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের মন্ডল জানান, প্রধান মন্ত্রীর বরাদ্বকৃত আবাসনে ঘর দিতে চেয়েছি নমিতা রানী তা নিতে চাননি। নমিতা তাঁর বসত বাড়ির ভিটায় ঘর নির্মান করে চায়। এবরাদ্দ না থাকায় আমি তাঁকে ঘর দিতে পারি নাই। তবে সরকারের সব ধরনের সুযোগ সুবিধা তাঁর পরিবারের জন্য দিয়েছি। এ বিষয়ে নমিতার নিকট থেকে কোন টাকা পয়সা আমি নেইনাই। আমার বিরুদ্ধে অন্যের প্ররচনায় নমিতা মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

নমিতার দেবর স্বর্গীয় নিরাপদ রায়ের ছেলে বিপুল রায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে  নমিতাকে দিয়ে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন করিয়েছেন বিষয়টি নমিতার সাথে কথা বলার সময়ই জানা গেছে। কারণ নমিতার আত্নপক্ষ সমর্থনের বক্তব্য গ্রহনের সময় বার বার বিপুলের ধমকপূর্ণ প্রতিবাদ ও নমিতাকে বাঁধা দেওয়ার কারণ খেকে বোঝা যায়।

ইউনিয়নের কৃষ্ণলালপুরের পাশের গ্রামের রাশেদুল ইসলাম, মহদিপুরের তোফাজ্জলসহ বেশ কয়েকজন জানান, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের মন্ডলের আগামীতে আবারও চেয়ারম্যান হিসেবে অত্র ইউনিয়নে পূণবার নির্বাচিত হওয়ার সম্ভবনাময় সুনাম ও পরিবেশকে বাঁধাগ্রস্থ করতে তাঁর প্রতিদ্ধন্দিগণ নমিতার দেবর বিপুল রায়কে সঙ্গে নিয়ে এমন ঘৃণ্য চক্রান্ত করেন বলে জানিয়েছেন।