ঢাকা ০৪:২৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিলের আদেশ বহাল ট্রাম্পকে গুলি করা ব্যক্তির সম্পর্কে যা জানাল রয়টার্স সালমানের হাত ধরলেন ঐশ্বরিয়া, সম্ভব হলো যেভাবে গণপদযাত্রায় অংশ নিতে জড়ো হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা বঙ্গভবন অবস্থান হবে সরাইলে ১০ম বারের মতো আশুতোষ চক্রবর্তী স্মারক শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অবশেষে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠ অবশেষে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা মৃত্যুপুরী গাজা নগরী, ‘কুকুরে খাচ্ছে লাশ’ আন্দোলনকারীদের তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য সুশান্ত পালের ‘তোমরা এমনিতেই চাকরি পাবে না, কোটা থাক না থাক’ গাজীপুরে উচ্চ আদালতের রায় উপেক্ষা:ভূমিদস্যুদের সহযোগিতায় স্থানীয় পুলিশ পর্ব ১ মঠবাড়ীয়া আমড়াগাছিয়ায় মাদক সহ ১জন আটক ৬ মাসের কারাদন্ড

জকিগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে তরুণী ধর্ষণ, মামলা তুলে নিতে হুমকি

সিলেট জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : ১২:৪২:৩৪ অপরাহ্ণ, শনিবার, ২৫ মার্চ ২০২৩
  • / ১১৩ .000 বার পাঠক

জকিগঞ্জ উপজেলার ৯নং মানিকপুর ইউনিয়নের কালিগঞ্জ বাজারের লাকী ফার্মেসীর ভেতরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক তরুনীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার সুবানন্দপুর গ্রামের মৃত. ফরিদ উদ্দিনের ছেলে কালীগঞ্জ বাজারের ফ্লেক্সিলোডের দোকানদার আব্দুল হক আব্দুল্লাহ তরুনীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার দোকানের সামনে লাকী ফার্মেসীতে নিয়ে কৌশলে তাকে ২০২২ সালের ১৬ জুলাই দুপুর অনুমান ১টায় তরুনীকে ধর্ষণ করেন। শুধু তাই নয় তরুণীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে নানা প্ররোচনা ও ছলনার আশ্রয় নিয়ে একাধিকবার আবদুল্লাহ ধর্ষণ করেন ও বিভিন্ন দৃশ্য ভিডিও করে রাখেন। পরবর্তীতে আব্দুল্লাহর প্রতরণার বিষয়টি আঁচ করতে পেরে ধর্ষিতা তরুণী ২০২২ সালের ২২ সেপ্টেম্বর জকিগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।
ধর্ষিতা তরুণীকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠালে সেখানে ধর্ষণের বিষয়টি প্রমাণিত হয়। এ ঘটনায় ২০২২ সালের ২২ সেপ্টেম্বর জকিগঞ্জ থানা পুলিশ আব্দুল্লাহকে গ্রেফতার করে। একই বছরের ২৫ অক্টোবর জামিন পান তিনি। জামিন নিয়ে এসে তার সহযোগীদের নিয়ে তরুণীর বাড়িতে চড়াও হন।
এ ঘটনায় ১ জানুয়ারি জকিগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা তরুণী। এতে উল্লেখ করা হয়, ৮ জানুয়ারি সকালে মো: আব্দুল হক ওরফে আব্দুল্লাহ তরুণীকে তার বাড়ীর সামনে পেয়ে ধারালো দা দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করে । এসময় তিনি আত্মরক্ষা করেন। বাড়িতে কেউ না থাকায় বাড়ির সবাইকে প্রাণে হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যান আব্দুল্লাহ। তরুণীকে প্রতিবেশীরা উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে রাখেন। আব্দুল্লাহ তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার করতে তরুনী ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর চাপ প্রয়োগ করছেন। এছড়া অনলাইন গণমাধ্যমে ছবি ও ভিডিও ভাইরাল করা সহ প্রাণে হত্যা হুমকি দিয়ে যান।
এ ঘটনার প্রেক্ষিতে থানায় দাখিলকৃত অভিযোগের তদন্ত একমাস পাঁচদিন পর শুরু করে পুলিশ।
এদিকে আব্দুল্লাহ নিজের ইমেইল ব্যবহার করে তরুণীর নামে ফেইসবুক আইডি চালু করে নানা অশ্লীল মন্তব্য পোস্ট করছেন। শুধু তাই নয় এসব অশ্লীল কথাগুলো তরুণীর আত্মীয়স্বজনদের ইমুসহ অন্যান্য মাধ্যমে প্রেরণ করে তরুণীকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করে যাচ্ছেন। তাছাড়া ভিকটিমের আরো নগ্ন ছবি ভাইরাল করার হুমকি দিচ্ছেন। এ ঘটনায় ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে “সিলেট বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা দায়ের করেন। সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দিয়েছেন।
ওই তরুণী। সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে জকিগঞ্জ থানা প্রশাসন সহ প্রশাসনের প্রতি আকুল আবেদন জানিয়েছেন ভিকটিম।

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

জকিগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে তরুণী ধর্ষণ, মামলা তুলে নিতে হুমকি

আপডেট টাইম : ১২:৪২:৩৪ অপরাহ্ণ, শনিবার, ২৫ মার্চ ২০২৩

জকিগঞ্জ উপজেলার ৯নং মানিকপুর ইউনিয়নের কালিগঞ্জ বাজারের লাকী ফার্মেসীর ভেতরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক তরুনীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার সুবানন্দপুর গ্রামের মৃত. ফরিদ উদ্দিনের ছেলে কালীগঞ্জ বাজারের ফ্লেক্সিলোডের দোকানদার আব্দুল হক আব্দুল্লাহ তরুনীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার দোকানের সামনে লাকী ফার্মেসীতে নিয়ে কৌশলে তাকে ২০২২ সালের ১৬ জুলাই দুপুর অনুমান ১টায় তরুনীকে ধর্ষণ করেন। শুধু তাই নয় তরুণীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে নানা প্ররোচনা ও ছলনার আশ্রয় নিয়ে একাধিকবার আবদুল্লাহ ধর্ষণ করেন ও বিভিন্ন দৃশ্য ভিডিও করে রাখেন। পরবর্তীতে আব্দুল্লাহর প্রতরণার বিষয়টি আঁচ করতে পেরে ধর্ষিতা তরুণী ২০২২ সালের ২২ সেপ্টেম্বর জকিগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।
ধর্ষিতা তরুণীকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠালে সেখানে ধর্ষণের বিষয়টি প্রমাণিত হয়। এ ঘটনায় ২০২২ সালের ২২ সেপ্টেম্বর জকিগঞ্জ থানা পুলিশ আব্দুল্লাহকে গ্রেফতার করে। একই বছরের ২৫ অক্টোবর জামিন পান তিনি। জামিন নিয়ে এসে তার সহযোগীদের নিয়ে তরুণীর বাড়িতে চড়াও হন।
এ ঘটনায় ১ জানুয়ারি জকিগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা তরুণী। এতে উল্লেখ করা হয়, ৮ জানুয়ারি সকালে মো: আব্দুল হক ওরফে আব্দুল্লাহ তরুণীকে তার বাড়ীর সামনে পেয়ে ধারালো দা দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করে । এসময় তিনি আত্মরক্ষা করেন। বাড়িতে কেউ না থাকায় বাড়ির সবাইকে প্রাণে হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যান আব্দুল্লাহ। তরুণীকে প্রতিবেশীরা উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে রাখেন। আব্দুল্লাহ তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার করতে তরুনী ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর চাপ প্রয়োগ করছেন। এছড়া অনলাইন গণমাধ্যমে ছবি ও ভিডিও ভাইরাল করা সহ প্রাণে হত্যা হুমকি দিয়ে যান।
এ ঘটনার প্রেক্ষিতে থানায় দাখিলকৃত অভিযোগের তদন্ত একমাস পাঁচদিন পর শুরু করে পুলিশ।
এদিকে আব্দুল্লাহ নিজের ইমেইল ব্যবহার করে তরুণীর নামে ফেইসবুক আইডি চালু করে নানা অশ্লীল মন্তব্য পোস্ট করছেন। শুধু তাই নয় এসব অশ্লীল কথাগুলো তরুণীর আত্মীয়স্বজনদের ইমুসহ অন্যান্য মাধ্যমে প্রেরণ করে তরুণীকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করে যাচ্ছেন। তাছাড়া ভিকটিমের আরো নগ্ন ছবি ভাইরাল করার হুমকি দিচ্ছেন। এ ঘটনায় ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে “সিলেট বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা দায়ের করেন। সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দিয়েছেন।
ওই তরুণী। সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে জকিগঞ্জ থানা প্রশাসন সহ প্রশাসনের প্রতি আকুল আবেদন জানিয়েছেন ভিকটিম।