ঢাকা ১২:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাতে অংশ নেন হাজারো তাসলিমা স্ত্রীর বিরুদ্ধে লিঙ্গ কাটার অভিযোগে সাংবাদিক সম্মেলন ঈদ উপলক্ষ্যে ঘরমুখী মানুষ ঝুঁকি নিয়ে পিকআপ ট্রাক ও বাসের ছাদে ঢাকা মহানগর পুলিশের দুই কর্মকর্তা বদলি গতকাল শুক্রবার বিকেল চারটায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন আহমেদের গাড়ি্ বহরে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে বিএমপি কাউনিয়া থানার অভিযানে ০৫ কেজি গাঁজাসহ আটক ০১ জন লাব্বাঈক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক’এই ধনীতে প্রকম্পিত আরাফাতের ময়দান ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ১৪ কিলোমিটার যানজট, ধীরগতি সেন্টমার্টিনে যাতায়াত বন্ধের ৮ দিন পর পৌঁছালো খাদ্যপণ্য আরাফার দিনে রোজা রাখার ফজিলত। দুধরচকী

প্রশাসন হতে হবে অতি চঞ্চল, সুন্দর ও গতিশীল : পরিকল্পনামন্ত্রী

  • সময়ের কন্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : ০১:০৭:১২ অপরাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১
  • ২৮৮ ০.০০০ বার পাঠক

সময়ের কন্ঠ রিপোর্ট।।

আল জাজিরার প্রতিবেদনের কথা উল্লেখ করে কর্মকর্তাদের উদ্দেশে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, যারা খেলতেছে তাদের খেলতে দিন, আপনারা (কর্মকর্তা) সেদিকে নজর দেবেন না। আপনারা দরজা জানালা বন্ধ করে, বাতি জ্বালিয়ে কাজ করে যান।

আজ বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এক কন্সালটেশন ওয়ার্কশপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

‘টু ডিসকাস অ্যান্ড ভ্যালিডেট সেক্টর রি ক্লাসিফিকেশন অব এডিপি’ শীর্ষক এ ওয়ার্কশপের আয়োজন করেছে পকিল্পনা কমিশনের কার্যক্রম বিভাগ।

পরিকল্পা সচিব জয়নুল বারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওয়ার্কশপে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম, পরিকল্পা কমিশনের সদস্য জাকির হোসেন আকন্দ, মামুন আল রশিদ, মোছাম্মৎ নাসিমা বেগম, রমেন্দ্রনাথ বিশ্বাস এবং জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থার (জাইকা) চিফ রিপ্রেজেনটেটিভ ইউহো হায়াকাও।

বক্তব্য রাখেন, কার্যক্রম বিভাগের প্রধান খন্দকার আহসান হোসেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন একই বিভাগের জয়েন্ট চিফ সাইদুজ্জামান।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, কাজ ফেলে রাখবেন না। দিনের কাজ দিনেই করুন। যারা আজ বেতন নিচ্ছেন তারা অনুগত হয়েই কাজটা করে যান। আমরা আমাদের মতো কাজ করে যাব।

এম এ মান্নান আরও বলেন, সরকারের সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগ একই মর্যাদার। এখানে সুপার মিনিস্ট্রি ও সুপার বিভাগ বলে কিছু নেই। তবে একজন সুপার মন্ত্রী আছেন।

তিনি আমাদের দলনেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার নেতৃত্বেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। এখানে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় কারো ওপর খবরদারি করছে না। কিংবা কোনো মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিতে পারে না। আমরা সবাই মিলে একসঙ্গে কাজ করে যাব। যে সুযোগ আমরা পেয়েছি তা কাজে লাগাতে হবে। দেশ এখন তৈরি আছে। যেসব সমস্যা আছে সেগুলো আমরা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে।

মন্ত্রী বলেন, নিষ্প্রাণ প্রশাসন কোনো প্রশাসনই নয়, প্রশাসন হতে হবে অতি চঞ্চল, অতি সুন্দর ও গতিশীল। কর্মকর্তাদের সৃজনশীল হতে হবে। তবে সব কিছুই করতে হবে আইনের মধ্য থেকেই। আমার বেতন কত সেটি মানুষের আগ্রহ নেই। তারা জানতে চায় এলাকার জন্য কী আনলেন। এলাকায় কয়টা সেতু কালভার্ট করা হলো—এসব দৃশ্যমান কার্যক্রমের প্রতি জনগণের আগ্রহ আছে।

তিনি আরও বলেন, জাপান আমাদের শুধু উন্নয়ন সহযোগীই নয়, ভালো বন্ধুও। একই সঙ্গে আঞ্চলিক ও সাংস্কৃতিক দিকে থেকে আমাদের মিল রয়েছে।

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাতে অংশ নেন হাজারো

প্রশাসন হতে হবে অতি চঞ্চল, সুন্দর ও গতিশীল : পরিকল্পনামন্ত্রী

আপডেট টাইম : ০১:০৭:১২ অপরাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১

সময়ের কন্ঠ রিপোর্ট।।

আল জাজিরার প্রতিবেদনের কথা উল্লেখ করে কর্মকর্তাদের উদ্দেশে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, যারা খেলতেছে তাদের খেলতে দিন, আপনারা (কর্মকর্তা) সেদিকে নজর দেবেন না। আপনারা দরজা জানালা বন্ধ করে, বাতি জ্বালিয়ে কাজ করে যান।

আজ বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এক কন্সালটেশন ওয়ার্কশপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

‘টু ডিসকাস অ্যান্ড ভ্যালিডেট সেক্টর রি ক্লাসিফিকেশন অব এডিপি’ শীর্ষক এ ওয়ার্কশপের আয়োজন করেছে পকিল্পনা কমিশনের কার্যক্রম বিভাগ।

পরিকল্পা সচিব জয়নুল বারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওয়ার্কশপে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম, পরিকল্পা কমিশনের সদস্য জাকির হোসেন আকন্দ, মামুন আল রশিদ, মোছাম্মৎ নাসিমা বেগম, রমেন্দ্রনাথ বিশ্বাস এবং জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থার (জাইকা) চিফ রিপ্রেজেনটেটিভ ইউহো হায়াকাও।

বক্তব্য রাখেন, কার্যক্রম বিভাগের প্রধান খন্দকার আহসান হোসেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন একই বিভাগের জয়েন্ট চিফ সাইদুজ্জামান।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, কাজ ফেলে রাখবেন না। দিনের কাজ দিনেই করুন। যারা আজ বেতন নিচ্ছেন তারা অনুগত হয়েই কাজটা করে যান। আমরা আমাদের মতো কাজ করে যাব।

এম এ মান্নান আরও বলেন, সরকারের সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগ একই মর্যাদার। এখানে সুপার মিনিস্ট্রি ও সুপার বিভাগ বলে কিছু নেই। তবে একজন সুপার মন্ত্রী আছেন।

তিনি আমাদের দলনেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার নেতৃত্বেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। এখানে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় কারো ওপর খবরদারি করছে না। কিংবা কোনো মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিতে পারে না। আমরা সবাই মিলে একসঙ্গে কাজ করে যাব। যে সুযোগ আমরা পেয়েছি তা কাজে লাগাতে হবে। দেশ এখন তৈরি আছে। যেসব সমস্যা আছে সেগুলো আমরা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে।

মন্ত্রী বলেন, নিষ্প্রাণ প্রশাসন কোনো প্রশাসনই নয়, প্রশাসন হতে হবে অতি চঞ্চল, অতি সুন্দর ও গতিশীল। কর্মকর্তাদের সৃজনশীল হতে হবে। তবে সব কিছুই করতে হবে আইনের মধ্য থেকেই। আমার বেতন কত সেটি মানুষের আগ্রহ নেই। তারা জানতে চায় এলাকার জন্য কী আনলেন। এলাকায় কয়টা সেতু কালভার্ট করা হলো—এসব দৃশ্যমান কার্যক্রমের প্রতি জনগণের আগ্রহ আছে।

তিনি আরও বলেন, জাপান আমাদের শুধু উন্নয়ন সহযোগীই নয়, ভালো বন্ধুও। একই সঙ্গে আঞ্চলিক ও সাংস্কৃতিক দিকে থেকে আমাদের মিল রয়েছে।