ঢাকা ০৭:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
মেট্রোরেল স্টেশনের ধ্বংসলীলা দেখে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী রুশ এমআই-২৮ সামরিক হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত মস্কোর দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত কালুগা অঞ্চলে আজ বৃহস্পতিবার হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয় কে হামলা চালাবে—বিএনপির নীল নকশা আগেই প্রস্তুত ছিল: কাদের ৪ দিন কোথায় কী অবস্থায় ছিলেন সমন্বয়ক আসিফ সারা দেশে হাজারো প্রাণ কেড়ে নেওয়ার ব্যাপারে সরকার কোনো কথা বলছে না: মির্জা ফখরুল সব ধরনের সহিংসতার হুমকি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র ডিএমপির তিন যুগ্ম-কমিশনারকে স্থান বদলি বাসে আগুন দিতে ৪ লাখ টাকায় চুক্তি, শ্রমিক লীগ নেতা গ্রেপ্তার রোকেয়া হলে ছাত্রলীগ নেত্রীদের হলছাড়া করল আন্দোলনকারীরা আন্দোলনকারীদের মৃত্যুর জন্য সরকারের পক্ষ থেকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে, ৩৩ নাগরিকের বিবৃতি বিবৃতিতে বলা হয়, দাবি আদায় করতে হয় জীবনের বিনিময়ে বা দমন করতে হয় হত্যা করে

ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে গৃহ শিক্ষকের যাবজ্জীবন

  • আপডেট টাইম : ০১:০০:১১ অপরাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১
  • / ২৩৯ ৫০০.০০০ বার পাঠক

নীলফামারী প্রতিনিধি।।

নীলফামারীর সৈয়দপুরে দশম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে গৃহশিক্ষককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। আজ বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় আসামির অনুপস্থিতিতে ওই রায় ঘোষণা করেন নীলফামারী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. আহসান তারেক। এছাড়াও তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

সাজাপ্রাপ্ত ওয়াজেদ আলী টুকু সৈয়দপুর উপজেলার পূর্ব বেলপুকুর দেড়ানী গ্রামের মৃত খাতির আলীর ছেলে। মামলা দায়েরর পর থেকেই আসামি ওয়াজেদ আলী টুকু পলাতক রয়েছে।

মামলার নথির বিবরণ দিয়ে ওই আদালতের বিশেষ পিপি রমেন্দ্র নাথ বর্ধন বাপী বলেন, বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ২০০৪ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে দশম শ্রেণীর ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে গৃহশিক্ষক ওয়াজেদ আলী টুকু। এক পর্যায়ে ওই ছাত্রী চার মাসের অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়লে তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায় ওয়াজেদ আলী টুকু। এঘটনায় ওই ছাত্রী বাদী হয়ে একই বছরের ২৪ জুন নীলফামারী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল- ১ আদালতে টুকুকে প্রধান করে তিন জনের নামের একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি গ্রহণের পর আদালত সৈয়দপুর থানা পুলিশকে তদন্ত করে প্রদিবেদন দায়েরর নির্দেশ দেয়। মামলাটি তদন্ত শেষে সৈয়দপুর থানার উপ-পরিদর্শক আজগর আলী ২০০৪ সালের ১৫ আগষ্ট ওয়াজেদ আলী টুকুর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

তিনি আরো জানান, মামলার দীর্ঘ শুনানী শেষে ওয়াজেদ আলী টুকুর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর ৯ (১) ধারা সন্দেহাতীত ভাবে প্রণাতি হওয়ায় তাকে উক্ত ধারায় যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সাথে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার টাকা না দিলে তাকে আরো ছয় মাস কারাগারে থাকার আদেশ দিয়েছেন আদালতের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. আহসান তারেক।

আরো খবর.......

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে গৃহ শিক্ষকের যাবজ্জীবন

আপডেট টাইম : ০১:০০:১১ অপরাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১

নীলফামারী প্রতিনিধি।।

নীলফামারীর সৈয়দপুরে দশম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে গৃহশিক্ষককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। আজ বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় আসামির অনুপস্থিতিতে ওই রায় ঘোষণা করেন নীলফামারী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. আহসান তারেক। এছাড়াও তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

সাজাপ্রাপ্ত ওয়াজেদ আলী টুকু সৈয়দপুর উপজেলার পূর্ব বেলপুকুর দেড়ানী গ্রামের মৃত খাতির আলীর ছেলে। মামলা দায়েরর পর থেকেই আসামি ওয়াজেদ আলী টুকু পলাতক রয়েছে।

মামলার নথির বিবরণ দিয়ে ওই আদালতের বিশেষ পিপি রমেন্দ্র নাথ বর্ধন বাপী বলেন, বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ২০০৪ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে দশম শ্রেণীর ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে গৃহশিক্ষক ওয়াজেদ আলী টুকু। এক পর্যায়ে ওই ছাত্রী চার মাসের অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়লে তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায় ওয়াজেদ আলী টুকু। এঘটনায় ওই ছাত্রী বাদী হয়ে একই বছরের ২৪ জুন নীলফামারী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল- ১ আদালতে টুকুকে প্রধান করে তিন জনের নামের একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি গ্রহণের পর আদালত সৈয়দপুর থানা পুলিশকে তদন্ত করে প্রদিবেদন দায়েরর নির্দেশ দেয়। মামলাটি তদন্ত শেষে সৈয়দপুর থানার উপ-পরিদর্শক আজগর আলী ২০০৪ সালের ১৫ আগষ্ট ওয়াজেদ আলী টুকুর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

তিনি আরো জানান, মামলার দীর্ঘ শুনানী শেষে ওয়াজেদ আলী টুকুর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর ৯ (১) ধারা সন্দেহাতীত ভাবে প্রণাতি হওয়ায় তাকে উক্ত ধারায় যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সাথে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার টাকা না দিলে তাকে আরো ছয় মাস কারাগারে থাকার আদেশ দিয়েছেন আদালতের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. আহসান তারেক।