ঢাকা ০১:১৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাতে অংশ নেন হাজারো তাসলিমা স্ত্রীর বিরুদ্ধে লিঙ্গ কাটার অভিযোগে সাংবাদিক সম্মেলন ঈদ উপলক্ষ্যে ঘরমুখী মানুষ ঝুঁকি নিয়ে পিকআপ ট্রাক ও বাসের ছাদে ঢাকা মহানগর পুলিশের দুই কর্মকর্তা বদলি গতকাল শুক্রবার বিকেল চারটায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন আহমেদের গাড়ি্ বহরে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে বিএমপি কাউনিয়া থানার অভিযানে ০৫ কেজি গাঁজাসহ আটক ০১ জন লাব্বাঈক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক’এই ধনীতে প্রকম্পিত আরাফাতের ময়দান ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ১৪ কিলোমিটার যানজট, ধীরগতি সেন্টমার্টিনে যাতায়াত বন্ধের ৮ দিন পর পৌঁছালো খাদ্যপণ্য আরাফার দিনে রোজা রাখার ফজিলত। দুধরচকী

নামধারী আওয়ামী লীগের নেতাদের সন্ধান পাওয়া গেছে বাবা পাড়ায়

গোসাইরহাট প্রতিনিধি।।

একাধিক নামধারী  আওয়ামী লীগের নেতার সন্ধান পাওয়া গেছে বাবা পাড়ায় নামের অনুসন্ধান চলছে কে এই নেতা।

এমন নাম হয়তো কেউ এখনো শুনেন নি, এটি একটি গ্রামের নাম। এটি গোসাইরহাট উপজেলা ইদিলপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের চর ধীপুর। চর ধীপুর গ্রাম টি এখন এক শ্রেনীর লোকেদের কাছে বাবা পারা নামেই পরিচিত। তার কারন হলো এ গ্রামের প্রায় প্রতিটি পরিবারেই এখন ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত। তারা সহজে ইনকামের রাস্তা হিসাবে এই ব্যবসা বেচে নিয়েছে, ছেলে মেয়ে,স্বামী -স্ত্রী, পরিবারের সকলেই এ ব্যবসার সাথে জড়িত, এই উপজেলার কোথাও মাদক না পাওয়া গেলেও এই গ্রামে যখন তখন ইয়াবা গাজা সহ অন্যান মাদক পাওয়া যায়, তাই অনেকের কাছে এই গ্রামটি বাবা পারা নামে পরিচিত।

আমাদের প্রতিনীধি এই গ্রামের একজন বাসিন্দার কাছে এ সম্পর্কে কিছু জানতে চাইলে তিনি তার নাম না প্রকাশের শর্তে আামাদের কে জানান যে এ গ্রামে মাদক ব্যবসায়ীদের দুটি বড় সিন্ডিকেট রয়েছে, এ দুটি সিন্ডিকেট এখানকার দুজন বড় নেতা নিয়ন্ত্রণ করে। এ এলাকায় সবচেয়ে বড় মাদক ব্যবসায়ীরা হলো মোঃ বাচ্চু সরদার, ফারুক লইট্টা,বসির সরদার,জামাল বেপারী,কামাল বেপারী,ওসমান, লিটন, নাসির, আজু সহ আরো অনেকে। এদের কারণে আমাদের সন্তানরা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, এলাকায় চুরি ডাকাতি বেড়ে গেছে, মাদকের টাকা জোগাড় করতে অনেক ছেলেরা চুরি ডাকাতিতে জড়িয়ে পরছে, ওনাদের দেখে দেখে অনেক ছেলেরা কষ্টের কাজ বাধ দিয়ে মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পরছে। এলাকায় বিভিন্ন নেশাখোর মানুষের আনাগোণা  হওয়াতে আমাদের মেয়েদের নিরাপত্তা নিয়ে আমরা চিন্তিত।

স্থানীয় লোকটি আমাদের কে আরো জানান যে এদের কাউ কে পুলিশ ধরে নিয়ে গেলে এ সময় তাদের স্ত্রীরাই এ ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে। আর নেতারা তাদেরকে ছারিয়ে নিয়ে আসে।

আরেক স্থানীয় ভাইর কাছে প্রশাসনের ভূমিকা জানতে চাইলে তিনি জানান যে প্রশাসন তেমুন কোন ভুমিকা নিচ্ছে না, তাছাড়া এই মাদক ব্যবসায়ীদের কে নিয়ন্ত্রণ করে এখানকার দুই প্রভাবশালী বড় নেতা তারাই প্রশাসন ম্যনেজ করে রাখেন।

এই মাদকের কারণে আমাদের সন্তানরা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, আমাদের গ্রাম টা ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে এদের হাত থেকে আমাদের সন্তানদের ও আমাদের গ্রাম কে আপনার রক্ষা করুন।

এ ব্যাপারে আমাদের প্রতিনিধি  গোসাইরহাট থানার ওসির কাছে প্রশাসনের ভূমিকা জানতে চাইলে তিনি জানান ওই এলাকায় তাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে এবং অপরাধীদের গ্রেফতার করছেন!

আরো খবর.......

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাতে অংশ নেন হাজারো

নামধারী আওয়ামী লীগের নেতাদের সন্ধান পাওয়া গেছে বাবা পাড়ায়

আপডেট টাইম : ০১:২২:৪৭ অপরাহ্ণ, রবিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১

গোসাইরহাট প্রতিনিধি।।

একাধিক নামধারী  আওয়ামী লীগের নেতার সন্ধান পাওয়া গেছে বাবা পাড়ায় নামের অনুসন্ধান চলছে কে এই নেতা।

এমন নাম হয়তো কেউ এখনো শুনেন নি, এটি একটি গ্রামের নাম। এটি গোসাইরহাট উপজেলা ইদিলপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের চর ধীপুর। চর ধীপুর গ্রাম টি এখন এক শ্রেনীর লোকেদের কাছে বাবা পারা নামেই পরিচিত। তার কারন হলো এ গ্রামের প্রায় প্রতিটি পরিবারেই এখন ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত। তারা সহজে ইনকামের রাস্তা হিসাবে এই ব্যবসা বেচে নিয়েছে, ছেলে মেয়ে,স্বামী -স্ত্রী, পরিবারের সকলেই এ ব্যবসার সাথে জড়িত, এই উপজেলার কোথাও মাদক না পাওয়া গেলেও এই গ্রামে যখন তখন ইয়াবা গাজা সহ অন্যান মাদক পাওয়া যায়, তাই অনেকের কাছে এই গ্রামটি বাবা পারা নামে পরিচিত।

আমাদের প্রতিনীধি এই গ্রামের একজন বাসিন্দার কাছে এ সম্পর্কে কিছু জানতে চাইলে তিনি তার নাম না প্রকাশের শর্তে আামাদের কে জানান যে এ গ্রামে মাদক ব্যবসায়ীদের দুটি বড় সিন্ডিকেট রয়েছে, এ দুটি সিন্ডিকেট এখানকার দুজন বড় নেতা নিয়ন্ত্রণ করে। এ এলাকায় সবচেয়ে বড় মাদক ব্যবসায়ীরা হলো মোঃ বাচ্চু সরদার, ফারুক লইট্টা,বসির সরদার,জামাল বেপারী,কামাল বেপারী,ওসমান, লিটন, নাসির, আজু সহ আরো অনেকে। এদের কারণে আমাদের সন্তানরা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, এলাকায় চুরি ডাকাতি বেড়ে গেছে, মাদকের টাকা জোগাড় করতে অনেক ছেলেরা চুরি ডাকাতিতে জড়িয়ে পরছে, ওনাদের দেখে দেখে অনেক ছেলেরা কষ্টের কাজ বাধ দিয়ে মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পরছে। এলাকায় বিভিন্ন নেশাখোর মানুষের আনাগোণা  হওয়াতে আমাদের মেয়েদের নিরাপত্তা নিয়ে আমরা চিন্তিত।

স্থানীয় লোকটি আমাদের কে আরো জানান যে এদের কাউ কে পুলিশ ধরে নিয়ে গেলে এ সময় তাদের স্ত্রীরাই এ ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে। আর নেতারা তাদেরকে ছারিয়ে নিয়ে আসে।

আরেক স্থানীয় ভাইর কাছে প্রশাসনের ভূমিকা জানতে চাইলে তিনি জানান যে প্রশাসন তেমুন কোন ভুমিকা নিচ্ছে না, তাছাড়া এই মাদক ব্যবসায়ীদের কে নিয়ন্ত্রণ করে এখানকার দুই প্রভাবশালী বড় নেতা তারাই প্রশাসন ম্যনেজ করে রাখেন।

এই মাদকের কারণে আমাদের সন্তানরা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, আমাদের গ্রাম টা ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে এদের হাত থেকে আমাদের সন্তানদের ও আমাদের গ্রাম কে আপনার রক্ষা করুন।

এ ব্যাপারে আমাদের প্রতিনিধি  গোসাইরহাট থানার ওসির কাছে প্রশাসনের ভূমিকা জানতে চাইলে তিনি জানান ওই এলাকায় তাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে এবং অপরাধীদের গ্রেফতার করছেন!