ঢাকা ০৪:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
সরকারি নিষেধাজ্ঞাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে পরিবেশ ধ্বংস করে উৎপাদনে ব্যস্ত নারায়ণগঞ্জের চুন ১৫ কারখানার মালিকরা (পর্ব-২) বারইখালিতে পুত্রের সামনে বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করা, আসামি ফরিদ ও আসিফ গ্রেফতার নান্দাইলে বিদ্যুৎপৃষ্টে শ্রমিকের মৃত্যু বাংলাদেশী তৈরি টুটু পিস্তল,চাইনিজ কুড়াল ৫০০ গ্রাম গাঁজা সহ ০৪ জন কিশোর গ্যাং এর সদস্য গ্রেফতার বাগেরহাট জেলার মোরেলগঞ্জে মটরসাইকেল চালককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা, ছেলের অবস্থা আশঙ্কাজনক নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ এর মিজমিজি এলাকায় বৈধ গ্যাস লাইন পুনঃ সংযোগ এর দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন মোংলায় ২৮৪ জন বনদস্যুকে ঈদ উপহার দিলো র‌্যাব-৮ লক্ষ্মীপুরে টাকা আত্মসাতের মামলায় চেয়ারম্যান কারাগারে লক্ষ্মীপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বীজ ব্যবসায়ীর জরিমানা কুয়াকাটা সৈকতে পদ্মার ঢেউ, পর্যটকরা এখন দক্ষিণমুখী

পাথরঘাটায় বসতবাড়ি পুড়ে যাওয়া পরিবারের পাশে সাংসদ সুলতানা নাদিরা

রুল আমিন মিল্টন মল্লিক (নিজস্ব প্রতিবেদক)

বরগুনার পাথরঘাটায় মুহূর্তের মধ্যেই বৈদ্যুতিক শর্টসার্টিকের আগুনে ভস্মীভূত হয়ে যাওয়া (পরিবারকে) বিধবা নারী মমতাজ বেগমকে নগদ অর্থ, খাদ্য সামগ্রী ও শীতবস্ত্র প্রদান করেছেন ৩১৫ সংরক্ষিত আসনের সাংসদ সুলতানা নাদিরা।

মঙ্গলবার বেলা দুইটার দিকে উপজেলার কাকচিড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে আগুনে পুড়ে যাওয়া মমতাজ বেগমের হাতে সাংসদ সুলতানা নাদিরার প্রতিনিধি মোহাম্মদ সোহেল সিকদার ও শওকত হাসান রমিম এগুলো পৌঁছে দেন।

এর আগে গত শনিবার বিকেল ৪টার দিকে হঠাৎ করে বৈদ্যুতিক শর্টসার্টিকের মাধ্যমে মমতাজ বেগমের ঘরটি সম্পূর্ণ পুড়ে যায়। এসময়ে ঘরের মধ্যে থাকা সকল মালামাল ও আসবাবপত্র পুরে ছাই হয়ে গেছে। এসময়ে স্থানীয়দের সহায়তায় ঘরে থাকা লোকজন প্রানে বাঁচলেও তাদের ঘরে থাকা মুল্যবান আসবাবপত্র সহ কিছুই রক্ষা করতে পারেননি। মমতাজ বেগম একই এলাকার মৃত মকিম জোমাদ্দারের স্ত্রী।

পাথরঘাটা স্টেশনের ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. সিদ্দিকুর রহমান জানান, বৈদ্যুতিক শর্টসার্টিকের মাধ্যমে ওই বসতঘরে আগুনের সুত্রপাত ঘটে। আগুনের খবর পাওয়ার সাথে সাথেই ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে পৌছার আগেই স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রনে এনেছে। তবে প্রাথমিক ভাবে ধারনা ওই ঘরে মালামালসহ প্রায় ৭ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

নারী সাংসদ সুলতানা নাদিরার প্রতিনিধি শওকত হাসান রমিম জানান, গত সোমবার কিছু জাতীয় দৈনিকে “বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিটে পুড়লো বিধবার স্বপ্ন” শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। যা মাননীয় সাংসদ সুলতানা নাদিরার দৃষ্টি গোচর হয়। এরপর দিন মঙ্গলবার তিনি সোহেল সিকদার ও আমার মাধ্যমে ভুক্তভোগী পরিবারকে নগদ টাকা, খাদ্য সামগ্রী ও শীতবস্ত্র পৌঁছে দিয়েছেন।

জাতীয় আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সরকারি নিষেধাজ্ঞাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে পরিবেশ ধ্বংস করে উৎপাদনে ব্যস্ত নারায়ণগঞ্জের চুন ১৫ কারখানার মালিকরা (পর্ব-২)

পাথরঘাটায় বসতবাড়ি পুড়ে যাওয়া পরিবারের পাশে সাংসদ সুলতানা নাদিরা

আপডেট টাইম : ০২:০৯:৩৬ পূর্বাহ্ণ, বুধবার, ৫ জানুয়ারি ২০২২

রুল আমিন মিল্টন মল্লিক (নিজস্ব প্রতিবেদক)

বরগুনার পাথরঘাটায় মুহূর্তের মধ্যেই বৈদ্যুতিক শর্টসার্টিকের আগুনে ভস্মীভূত হয়ে যাওয়া (পরিবারকে) বিধবা নারী মমতাজ বেগমকে নগদ অর্থ, খাদ্য সামগ্রী ও শীতবস্ত্র প্রদান করেছেন ৩১৫ সংরক্ষিত আসনের সাংসদ সুলতানা নাদিরা।

মঙ্গলবার বেলা দুইটার দিকে উপজেলার কাকচিড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে আগুনে পুড়ে যাওয়া মমতাজ বেগমের হাতে সাংসদ সুলতানা নাদিরার প্রতিনিধি মোহাম্মদ সোহেল সিকদার ও শওকত হাসান রমিম এগুলো পৌঁছে দেন।

এর আগে গত শনিবার বিকেল ৪টার দিকে হঠাৎ করে বৈদ্যুতিক শর্টসার্টিকের মাধ্যমে মমতাজ বেগমের ঘরটি সম্পূর্ণ পুড়ে যায়। এসময়ে ঘরের মধ্যে থাকা সকল মালামাল ও আসবাবপত্র পুরে ছাই হয়ে গেছে। এসময়ে স্থানীয়দের সহায়তায় ঘরে থাকা লোকজন প্রানে বাঁচলেও তাদের ঘরে থাকা মুল্যবান আসবাবপত্র সহ কিছুই রক্ষা করতে পারেননি। মমতাজ বেগম একই এলাকার মৃত মকিম জোমাদ্দারের স্ত্রী।

পাথরঘাটা স্টেশনের ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. সিদ্দিকুর রহমান জানান, বৈদ্যুতিক শর্টসার্টিকের মাধ্যমে ওই বসতঘরে আগুনের সুত্রপাত ঘটে। আগুনের খবর পাওয়ার সাথে সাথেই ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে পৌছার আগেই স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রনে এনেছে। তবে প্রাথমিক ভাবে ধারনা ওই ঘরে মালামালসহ প্রায় ৭ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

নারী সাংসদ সুলতানা নাদিরার প্রতিনিধি শওকত হাসান রমিম জানান, গত সোমবার কিছু জাতীয় দৈনিকে “বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিটে পুড়লো বিধবার স্বপ্ন” শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। যা মাননীয় সাংসদ সুলতানা নাদিরার দৃষ্টি গোচর হয়। এরপর দিন মঙ্গলবার তিনি সোহেল সিকদার ও আমার মাধ্যমে ভুক্তভোগী পরিবারকে নগদ টাকা, খাদ্য সামগ্রী ও শীতবস্ত্র পৌঁছে দিয়েছেন।