ঢাকা ০৫:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
রাণীশংকৈলে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন নওগাঁর নিয়ামতপুরে শহীদ দিবস ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২১শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে ভাষা শহীদদের স্বরনে শ্রদ্ধাঞ্জলি দেবহাটা উপজেলা সমিতির ও পিকনিক স্পট পরিদর্শন কালিহাতীতে মহান শহিদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত আজ সারা ভারতের বিভিন্ন যায়গার সাথে সিরাকল মহাবিদ্যালয়ে উদযাপিত হল ভাষা দিবস আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উৎযাপন ভৈরবে অমর ২১শে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে সকল বীর শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়েছে কিশোরগঞ্জে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত কমলনগরে সয়াবিন ক্ষেত থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার ২১ শে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে

রাজনৈতিক জীবনে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন হাজি সেলিম মন্ডল

মোঃ আকরাম হোসেন বিশেষ প্রতিনিধি।।

সাভার উপজেলার বিরুলিয়া ইউনিয়নের জনগনের আস্থার প্রতিক জেলা পরিষদের সম্মানিত সদস্য সাবেক সাভার উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হাজি সেলিম মন্ডল,রাজনৈতিক জীবনে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন,তিনি তার সততা দক্ষতার সাথে অনিয়ম দুর্নীতি গুড়িয়ে দিয়ে,নিজ এলাকা কে আঁধুনিকতায় সাজাতে সক্ষম হয়েছেন,জনপ্রতিনিধিরা ভোটের পূর্বে জনগণকে প্রতিশ্রুতির ফুলঝুড়ি দেন।কিন্তু অধিকাংশ প্রতিনিধি ক্ষমতা পাওয়ার পর সেই প্রতিশ্রুতি ভুলে যান বা ব্যর্থ হন।সবচেয়ে কঠিন হয়ে দাঁড়ায় বিভিন্ন কর্মকান্ডে জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করা।আর মানুষের জন্য সুবিচার প্রতিষ্ঠা তো ভাবাই যায় না।চেয়ারম্যান,মেম্বারদের ক্ষেত্রে এটি একটি কঠিনতর অধ্যায় বিচারকের চেয়ারে বসে সুবিচার প্রতিষ্ঠা করা।
এ সকল কঠিন অধ্যায়গুলো পেরিয়ে স্থানীয় জনগণের কাছে শ্রেষ্ঠ ও জননন্দিত জনপ্রতিনিধি হিসাবে পরিনত করেছেন নিজেকে,বিরুলিয়া ইউনিয়নের একজন সফল জনপ্রতিনিধি হয়ে মন কেড়ে নিয়েছেন আপময় জনগনের,ঢাকা জেলা জুড়ে তার সততার ও দক্ষতার পরিচয় ফুটে উঠেছে।
এই জননন্দিত জেলা পরিষদের সদস্য হাজি সেলিম মন্ডল,তার দায়িত্বের শুরু থেকেই জনতা ও প্রশাসনের নজর কাড়েন।খোঁজ নিয়ে জানা যায়,সরকারের বিভিন্ন দপ্তর থেকে এলাকার উন্নয়নেে স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে এ পর্যন্ত সরকার তরফের যত বাজেট এসেছে,তার সকল অর্থ যথার্থভাবে কাজে বাস্তবায়ন করেছেন,শুধু তাই না,সরকারি বাজেট ছাড়াও বহু উন্নয়নমূলক কাজে নিজের অর্থ দিয়ে তিনি কাজ করে নজির রেখেছেন।এমনকি তিনি নিজের বেতন ভাতা টাকাও এতিম,দুস্থ,অসহায় ও শিক্ষার্থীদের মাঝে বিলিয়ে দিয়েছেন।নিজ এলাকাটি নিজের অর্থায়নে ডিজিটালাইজড করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।এলাকার মাদক নির্মুল,বাল্যবিবাহ রোধ, নারী নির্যাতন,জমিজমা সক্রান্ত সকল বিরোধ,কলাহ ইত্যাদি খুব দক্ষতার সাথে তিনি সমাধান করে দৃষ্টান্ত রেখেছেন।মানুষের কঠিন বিপদে তিনি জীবন বাজী রেখে পাশে দাড়িয়েছেন। চলতি বছর করোনাকালীন মহামারী পরিস্থিতি মহাবিপদ চলাকালেও তিনি দিনরাত বিরামহীন ভাবে গ্রামে গ্রামে মানুষের জন্য কাজ করেছেন।সম্প্রতি করোনা ভাইরাস ও ডেঙ্গুর সংক্রামণ এ মানুষের জীবন ও সমাজকে বিপর্যস্থ বিষন্ন করে তুলেছে।এখানেও তিনি জীবন বাজী রেখে সমাজকে ও মানুষকে নিরাপদ করতে নিরলসভাবে কাজ করে সমগ্র ঢাকা জেলার মধ্যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন,প্রতিটা মানুষের কৃতকর্মে ভুল ভ্রান্তিও থাকবে।আবার পিছনে সমালোচক থাকবেই। তাছাড়া এই সমাজে তো হিংসুক ও নিন্দুকের অভাব নেই।কিন্তু সর্বপরি আলোকিত সমাজ ও দেশ গঠনে যাদের ভূমিকা বা দৃষ্টান্ত রয়েছে,সেটি আলোর মতই সামনে উঠে আসবে বলে মনে করেন ঢাকা জেলার সাভার উপজেলা সহ বর্তমান সুশীল সমাজ

আরো খবর.......

জনপ্রিয় সংবাদ

রাণীশংকৈলে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

রাজনৈতিক জীবনে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন হাজি সেলিম মন্ডল

আপডেট টাইম : ০১:৪৪:৩৯ অপরাহ্ণ, রবিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২১

মোঃ আকরাম হোসেন বিশেষ প্রতিনিধি।।

সাভার উপজেলার বিরুলিয়া ইউনিয়নের জনগনের আস্থার প্রতিক জেলা পরিষদের সম্মানিত সদস্য সাবেক সাভার উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হাজি সেলিম মন্ডল,রাজনৈতিক জীবনে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন,তিনি তার সততা দক্ষতার সাথে অনিয়ম দুর্নীতি গুড়িয়ে দিয়ে,নিজ এলাকা কে আঁধুনিকতায় সাজাতে সক্ষম হয়েছেন,জনপ্রতিনিধিরা ভোটের পূর্বে জনগণকে প্রতিশ্রুতির ফুলঝুড়ি দেন।কিন্তু অধিকাংশ প্রতিনিধি ক্ষমতা পাওয়ার পর সেই প্রতিশ্রুতি ভুলে যান বা ব্যর্থ হন।সবচেয়ে কঠিন হয়ে দাঁড়ায় বিভিন্ন কর্মকান্ডে জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করা।আর মানুষের জন্য সুবিচার প্রতিষ্ঠা তো ভাবাই যায় না।চেয়ারম্যান,মেম্বারদের ক্ষেত্রে এটি একটি কঠিনতর অধ্যায় বিচারকের চেয়ারে বসে সুবিচার প্রতিষ্ঠা করা।
এ সকল কঠিন অধ্যায়গুলো পেরিয়ে স্থানীয় জনগণের কাছে শ্রেষ্ঠ ও জননন্দিত জনপ্রতিনিধি হিসাবে পরিনত করেছেন নিজেকে,বিরুলিয়া ইউনিয়নের একজন সফল জনপ্রতিনিধি হয়ে মন কেড়ে নিয়েছেন আপময় জনগনের,ঢাকা জেলা জুড়ে তার সততার ও দক্ষতার পরিচয় ফুটে উঠেছে।
এই জননন্দিত জেলা পরিষদের সদস্য হাজি সেলিম মন্ডল,তার দায়িত্বের শুরু থেকেই জনতা ও প্রশাসনের নজর কাড়েন।খোঁজ নিয়ে জানা যায়,সরকারের বিভিন্ন দপ্তর থেকে এলাকার উন্নয়নেে স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে এ পর্যন্ত সরকার তরফের যত বাজেট এসেছে,তার সকল অর্থ যথার্থভাবে কাজে বাস্তবায়ন করেছেন,শুধু তাই না,সরকারি বাজেট ছাড়াও বহু উন্নয়নমূলক কাজে নিজের অর্থ দিয়ে তিনি কাজ করে নজির রেখেছেন।এমনকি তিনি নিজের বেতন ভাতা টাকাও এতিম,দুস্থ,অসহায় ও শিক্ষার্থীদের মাঝে বিলিয়ে দিয়েছেন।নিজ এলাকাটি নিজের অর্থায়নে ডিজিটালাইজড করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।এলাকার মাদক নির্মুল,বাল্যবিবাহ রোধ, নারী নির্যাতন,জমিজমা সক্রান্ত সকল বিরোধ,কলাহ ইত্যাদি খুব দক্ষতার সাথে তিনি সমাধান করে দৃষ্টান্ত রেখেছেন।মানুষের কঠিন বিপদে তিনি জীবন বাজী রেখে পাশে দাড়িয়েছেন। চলতি বছর করোনাকালীন মহামারী পরিস্থিতি মহাবিপদ চলাকালেও তিনি দিনরাত বিরামহীন ভাবে গ্রামে গ্রামে মানুষের জন্য কাজ করেছেন।সম্প্রতি করোনা ভাইরাস ও ডেঙ্গুর সংক্রামণ এ মানুষের জীবন ও সমাজকে বিপর্যস্থ বিষন্ন করে তুলেছে।এখানেও তিনি জীবন বাজী রেখে সমাজকে ও মানুষকে নিরাপদ করতে নিরলসভাবে কাজ করে সমগ্র ঢাকা জেলার মধ্যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন,প্রতিটা মানুষের কৃতকর্মে ভুল ভ্রান্তিও থাকবে।আবার পিছনে সমালোচক থাকবেই। তাছাড়া এই সমাজে তো হিংসুক ও নিন্দুকের অভাব নেই।কিন্তু সর্বপরি আলোকিত সমাজ ও দেশ গঠনে যাদের ভূমিকা বা দৃষ্টান্ত রয়েছে,সেটি আলোর মতই সামনে উঠে আসবে বলে মনে করেন ঢাকা জেলার সাভার উপজেলা সহ বর্তমান সুশীল সমাজ