ঢাকা ০৯:০২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এক নারীর করোনা শনাক্ত

  • সময়ের কন্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : ০৭:০৪:০৪ পূর্বাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১
  • ১৮০ ০.০০০ বার পাঠক

সংবাদদাতা, টেকনাফ ॥ টেকনাফের শামলাপুর প্রত্যাহার ঘোষিত ২৩ নং রোহিঙ্গা শিবিরে প্রথম বারের মতো এক রোহিঙ্গা নারীর শরীরে করোনা উপসর্গ পাওয়া গেছে। এর আগে শামলাপুর ২৩ নং রোহিঙ্গা শিবিরে কারো করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি। এটিই করোনা শনাক্তের তালিকায় প্রথম। শামলাপুরের করোনা হাসাপাতালটি বন্ধ থাকায় আক্রান্ত রোহিঙ্গা নারীকে হ্নীলার লেদা করোনা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

সোমবার শ্বাসকষ্ট নিয়ে বেসরকারী দাতা সংস্থা ‘মোয়াস’ পরিচালিত হাসপাতালে ভর্তি হয় রোহিঙ্গা নারী রজুমা। পরবর্তীতে করোনা টেস্টে তার শরীরে করোনা ভাইরাস পজিটিভ পাওয়া যায়। আক্রান্ত রোহিঙ্গা মহিলা শামলাপুর-২৩ ক্যাম্পের ব্লক- বি-৪ এর মৃত মোহাম্মদ হোসেনের স্ত্রী রজুমা খাতুন (৫০)। শামলাপুর করোনা হাসাপাতালে চিকিৎসা সেবা বন্ধ থাকায় তাকে লেদার একটি করোনা হাসাপাতালের আইসোলেশনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এদিকে আক্রান্ত রোহিঙ্গা পরিবারের বাকি সদস্যদের সংক্রমণ এড়াতে বাড়িতে অবস্থানের পাশাপাশি ‘হোম কোয়ারেন্টাইন’ নিশ্চিত করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ জরুরি বলে মনে করেন সচেতন মহল। বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর নুর মোহাম্মদ জানান, আক্রান্ত রোহিঙ্গা নারীই শামলাপুর ২৩ নং রোহিঙ্গা শিবিরের প্রথম করোনা আক্রান্ত। তাই সংক্রমণ প্রতিরোধে আক্রান্ত রোহিঙ্গা পরিবারের বাকি সদস্যদের বাড়িতে অবস্থান নিশ্চিত করা হয়েছে।

আরো খবর.......

জনপ্রিয় সংবাদ

শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এক নারীর করোনা শনাক্ত

আপডেট টাইম : ০৭:০৪:০৪ পূর্বাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১

সংবাদদাতা, টেকনাফ ॥ টেকনাফের শামলাপুর প্রত্যাহার ঘোষিত ২৩ নং রোহিঙ্গা শিবিরে প্রথম বারের মতো এক রোহিঙ্গা নারীর শরীরে করোনা উপসর্গ পাওয়া গেছে। এর আগে শামলাপুর ২৩ নং রোহিঙ্গা শিবিরে কারো করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি। এটিই করোনা শনাক্তের তালিকায় প্রথম। শামলাপুরের করোনা হাসাপাতালটি বন্ধ থাকায় আক্রান্ত রোহিঙ্গা নারীকে হ্নীলার লেদা করোনা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

সোমবার শ্বাসকষ্ট নিয়ে বেসরকারী দাতা সংস্থা ‘মোয়াস’ পরিচালিত হাসপাতালে ভর্তি হয় রোহিঙ্গা নারী রজুমা। পরবর্তীতে করোনা টেস্টে তার শরীরে করোনা ভাইরাস পজিটিভ পাওয়া যায়। আক্রান্ত রোহিঙ্গা মহিলা শামলাপুর-২৩ ক্যাম্পের ব্লক- বি-৪ এর মৃত মোহাম্মদ হোসেনের স্ত্রী রজুমা খাতুন (৫০)। শামলাপুর করোনা হাসাপাতালে চিকিৎসা সেবা বন্ধ থাকায় তাকে লেদার একটি করোনা হাসাপাতালের আইসোলেশনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এদিকে আক্রান্ত রোহিঙ্গা পরিবারের বাকি সদস্যদের সংক্রমণ এড়াতে বাড়িতে অবস্থানের পাশাপাশি ‘হোম কোয়ারেন্টাইন’ নিশ্চিত করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ জরুরি বলে মনে করেন সচেতন মহল। বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর নুর মোহাম্মদ জানান, আক্রান্ত রোহিঙ্গা নারীই শামলাপুর ২৩ নং রোহিঙ্গা শিবিরের প্রথম করোনা আক্রান্ত। তাই সংক্রমণ প্রতিরোধে আক্রান্ত রোহিঙ্গা পরিবারের বাকি সদস্যদের বাড়িতে অবস্থান নিশ্চিত করা হয়েছে।