ঢাকা ০৫:৩২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
জমির লোভে বাবা ও পরিবারের উপর হামলা বিএনপি-জামাত জোট সরকারের শাসনামলে দেশব্যপী সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে কিশোরগঞ্জের ভৈরবে বিক্ষোভ সমাবেশ করা হয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর থেকে ১২৬ বোতল ফেন্সিডিল‘সহ ০১ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক জাতীয় শোক দিবসে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি পালন আজ সরকারি দলীয় বিক্ষোভ সমাবেস আর একে কেন্দ্র করে চলছে বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের চাঁদাবাজির অভিযোগ যাত্রীদের ১৭ই আগাস্ট বিএনপি জামায়াতের বোমা হামলার প্রতিবাদে আ.লীগের বিক্ষোভ সমাবেশ কালিয়াকৈরে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেবার কারনে স্কুলে যেতে পারছেনা ৫ শিক্ষার্থী বাসন থানার অভিযান চালিয়ে  ০৫ জন ডাকাত ধারালো অস্ত্রসহ গ্রেফতার গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের বিশেষ অভিযানে অস্ত্রগুলি, মাদকসহ কুখ্যাত মাদক সম্রাজ্ঞী পারুলী বেগম গ্রেফতার সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে তেল চুরির সময় দৌলতখানে আটক ৫ জন

পাথরঘাটায় বিদেশে যাওয়ার আশায় প্রতারকের খপ্পরে পরে নিশ্বঃ একাধিক পরিবার।

বরগুনা জেলা প্রতিনিধি।।

বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার ১নং রায়হানপুর  ইউনিয়নের ৮নং পূর্ব লেমুয়া গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে মজনু গত ২০১৮সালে প্রতিবেশী ফরিদা বেগম , স্বামী, আবদুর রবের  সহায়তায়  বাহরাইন প্রবাসি প্রতারক মিজানুর রহমান সুমন পিতা, নজরুল হাওলাদার, সাং উত্তর হলতা,উপজেলা মঠবাড়িয়া, জেলা পিরোজপুর এর নিকট বাহরাইন যাওয়ার জন্য সাড়ে চার লাখ টাকা দেয় এবং প্রতারক মিজান মজনুকে বাহরাইন নিয়ে না পারছে  কোন কাজ দিতে  না পারছে কোনো খাবার দিতে পরিশেষে জানা যায়  মজনুকে মিজানের দেয়া ভিসাটি ছিল নকল যার ফলে চার মাস থেকে মজনু দেশে আসতে বাধ্য হয়। এবং মিজান মজনুর পরিবারকে জানান টাকা ফেরত দিবে, টাকা ফেরত দেয়া তো দুরের কথা উল্টো মজনুকে নানা রকমের হুমকি গালাগালি করে। গত বছরের শেষের দিকে মজনু বাদী হয়ে পাথরঘাটা সিনিয়র  জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রট কার্যালয়ে একটি মামলা দায়ের করেন, যাহার নম্বর  হচ্ছে সি,আর  ২৯৭/১৬(পাথর)

ধারা ঃ৪০৬/৪২০/১০৯দন্ড বিধি। এছাড়াও একই গ্রামের হালিমার মেয়ে জামাইকে বিদেশ নেওয়ার কথা বলে চার লাখ বাহাত্তর হাজার টাকা নিয়েছে বলে  মিজানের বিরুদ্ধে  অভিযোগ করেন। এরকম বিদেশ নেওয়ার কথা বলে বহু পরিবার থেকে প্রায় অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে তাদেরকে প্রতারক মিজান পথে বসিয়েছে।  মজনু সহ ভুক্তভোগীরা মানবেতর জীবনযাপন করছে তাদের দিন কাটে অর্ধাহারে অনাহারে। এ দিকে এ-সব প্রতারনা করে মিজানুর রহমান সুমন সম্পদের পাহাড় গড়েছেন, তার বরগুনা শহরে রয়েছে আলিশান বাড়ি যাহার মূল্য দুই কোটি টাকা  , এছাড়াও করেছেন নামে বে নামে অনেক সম্পদ। আদম পাচার ও বিদেশের নামে প্রতারকদের বিরুদ্ধে সরকারের কড়া হুশিয়ারি থাকা সত্বেও প্রত্যান্ত অন্ঞলে কতই না খেটে খাওয়া মানুষ আজ মিজানের মতো প্রতারকের হাতে সর্বস্ব হারিয়ে সর্বশ্বান্ত হয়ে গেছে।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

জমির লোভে বাবা ও পরিবারের উপর হামলা

পাথরঘাটায় বিদেশে যাওয়ার আশায় প্রতারকের খপ্পরে পরে নিশ্বঃ একাধিক পরিবার।

আপডেট টাইম : ০৫:৫৬:০২ অপরাহ্ণ, বৃহস্পতিবার, ১৫ জুলাই ২০২১

বরগুনা জেলা প্রতিনিধি।।

বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার ১নং রায়হানপুর  ইউনিয়নের ৮নং পূর্ব লেমুয়া গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে মজনু গত ২০১৮সালে প্রতিবেশী ফরিদা বেগম , স্বামী, আবদুর রবের  সহায়তায়  বাহরাইন প্রবাসি প্রতারক মিজানুর রহমান সুমন পিতা, নজরুল হাওলাদার, সাং উত্তর হলতা,উপজেলা মঠবাড়িয়া, জেলা পিরোজপুর এর নিকট বাহরাইন যাওয়ার জন্য সাড়ে চার লাখ টাকা দেয় এবং প্রতারক মিজান মজনুকে বাহরাইন নিয়ে না পারছে  কোন কাজ দিতে  না পারছে কোনো খাবার দিতে পরিশেষে জানা যায়  মজনুকে মিজানের দেয়া ভিসাটি ছিল নকল যার ফলে চার মাস থেকে মজনু দেশে আসতে বাধ্য হয়। এবং মিজান মজনুর পরিবারকে জানান টাকা ফেরত দিবে, টাকা ফেরত দেয়া তো দুরের কথা উল্টো মজনুকে নানা রকমের হুমকি গালাগালি করে। গত বছরের শেষের দিকে মজনু বাদী হয়ে পাথরঘাটা সিনিয়র  জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রট কার্যালয়ে একটি মামলা দায়ের করেন, যাহার নম্বর  হচ্ছে সি,আর  ২৯৭/১৬(পাথর)

ধারা ঃ৪০৬/৪২০/১০৯দন্ড বিধি। এছাড়াও একই গ্রামের হালিমার মেয়ে জামাইকে বিদেশ নেওয়ার কথা বলে চার লাখ বাহাত্তর হাজার টাকা নিয়েছে বলে  মিজানের বিরুদ্ধে  অভিযোগ করেন। এরকম বিদেশ নেওয়ার কথা বলে বহু পরিবার থেকে প্রায় অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে তাদেরকে প্রতারক মিজান পথে বসিয়েছে।  মজনু সহ ভুক্তভোগীরা মানবেতর জীবনযাপন করছে তাদের দিন কাটে অর্ধাহারে অনাহারে। এ দিকে এ-সব প্রতারনা করে মিজানুর রহমান সুমন সম্পদের পাহাড় গড়েছেন, তার বরগুনা শহরে রয়েছে আলিশান বাড়ি যাহার মূল্য দুই কোটি টাকা  , এছাড়াও করেছেন নামে বে নামে অনেক সম্পদ। আদম পাচার ও বিদেশের নামে প্রতারকদের বিরুদ্ধে সরকারের কড়া হুশিয়ারি থাকা সত্বেও প্রত্যান্ত অন্ঞলে কতই না খেটে খাওয়া মানুষ আজ মিজানের মতো প্রতারকের হাতে সর্বস্ব হারিয়ে সর্বশ্বান্ত হয়ে গেছে।