ঢাকা ১২:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
গাজীপুর কাশেমপুরে থানাধীন এলাকায় আগে ককটেল পরে  ফিল্মি স্টাইলে ডাকাতি আশুলিয়া দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ৭৭ তম জন্মবার্ষিকী পালিত ট্রেনের ছাদে যাত্রী, মানছে না নিয়ম ট্রেনের ছাদে যাত্রী নেয়া নিষেধ থাকলেও, হরহামেশা যাত্রী উঠেই যাচ্ছেন গাজীপুরে নবীণ প্রবীণ সংঘের উদ্দোগে ১৫ ই আগস্ট জাতিয় শোক দিবস (২০২২)এ আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বেনাপোলে “সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেড” এর মেট্রো শাখা উদ্বোধণ আশুলিয়ায় সাইদুর রহমান এর আয়োজনে ১৫ ই আগস্ট (২০২২) জাতিয় শোক দিবসে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত কাশেমপুর ভাঙ্গা ব্রিজের জন্য শত শত মানুষের দুর্ভোগ পাঁচবিবিতে বসত বাড়ী ফিরে পেতে মানববন্ধন নেপালের কাঠমান্ডুতে দক্ষিণ এশীয় জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দিলেন দৈনিক কালের খবর সম্পাদক এম আই ফারুক আশুলিয়ায় থানা আওয়ামী লীগ ও বিভিন্ন অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের শোক দিবস পালন

কখনও সেনা সদস্য কখনও নৌ কর্মকর্তা পরিচয়ে  প্রতারণা,,

গাজীপুর প্রতিনিধি;মোঃ ইব্রাহিম।।

নাম- রিয়াজুল হক সাং-মিটালু,থানা-শ্রীপুর,জেলা -গাজীপুর।

রিয়াজুল পেশায় একজন সেনাকর্মকর্তা বলে পরিচয় দেন। এবং গাজীপুর,চান্দনা চৌরাস্তা,তেলিপাড়ায় খান সাহেবের বাসায় ভাড়া থাকতেন   তিনি! গত ২০১৬-২০১৮ সাল পর্যন্ত তিনি তেলিপাড়ায় খান সাহেবের বাসায় ভাড়া থাকা অবস্থায় বিভিন্ন মানুষের সাথে প্রতারণা করে হাতিয়ে নেয় লক্ষ লক্ষ টাকা।

মোছাঃআফরোজা পেশায় একজন আদর্শবান শিক্ষীকা,এক ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে আফরোজার সংসার। রিয়াজুলের ছেলের গৃহ শিক্ষীকা ছিলেন আফরোজা। রিয়াজুলের ছেলের গৃহ শিক্ষীকা হিসেবে  রিয়াজুল এবং তার স্ত্রী আইরিন এর সাথে একটি সু সম্পর্ক গড়ে উঠেছে আফরোজার । এর পর আইরিন এবং আফরোজার মাঝে আর্থিক লেনদেন হয়েছে বেশ  কয়েকবার।  হঠাৎ করে রিয়াজুল এবং তার স্ত্রী আইরিন পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে প্রতারনার একটি নীল নকশা তৈরি করেন।  আইরিন আফরোজাকে বলেন রিয়াজুল একটা ব্যাংক থেকে কিছু টাকা লোন উঠাবে। সে জন্য আমাদের কিছু টাকার প্রয়োজন।  আদর্শবান শিক্ষীকা আফরোজা প্রতারক আইরিনের ফাঁদে পা দিয়ে দেন।  ব্রাক ব্যাংক গাজীপুর শাখা থেকে  নিজের নামে উঠানো ১,০০০০০এক লক্ষ টাকা, আফরোজা পার্শবর্তি ভাড়াটিয়া  রুমী,জেসমিন,শাহীনমোল্লার সামনে প্রতারক রিয়াজুল এর স্ত্রী আইরিন এর হাতে তুলে দেন নিজের কাছে থাকা সর্বমোট ১,৩০,০০০এক লক্ষ ত্রিশ হাজার টাকা। টাকা টা নেওয়ার কিছু দিন পর  রাতের অন্ধকারে তেলিপাড়া বাসা ছেঁড়ে পালিয়ে যায় নীল নকশার প্রতারক রিয়াজুল ও তার স্ত্রী আইরিন।একই প্রতারক চক্রের প্রতারনার ফাঁদে পা দেন আরও একটি অসহায় পরিবার। একই পরিকল্পনার প্রতারনার নীল নকশা তৈরি করে তেলিপাড়ার কফিল উদ্দিনের বাসার বাড়াটিয়া মমতাজ বেগমের কাছ থেকে ৭০,০০০(সত্তর হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক রিয়াজুল। খুবই অসহায় পরিবার মমতাজ বেগমের। তিন মেয়ে এক ছেলেকে নিয়ে মমতাজ বেগমের সংসার। মমতাজ বেগমের স্বামী মাইনউদ্দীন এক জন ছোটো খাটো চায়ের দোকানদার।  মমতাজ বেগম শারীরিক ভাবে অসুস্থ হয়ে গেলে তার চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন বলেন চিকিৎসক। তারপর প্রতারক রিয়াজুল এর মুঠোফোনে রিয়াজুলের সাথে যোগাযোগ করেন মমতাজ বেগমের ছেলে মোঃমামুন। রিয়াজুলের কাছে তার মায়ের পাওনা টাকা ফেরৎ চাইলে প্রতারক রিয়াজুল উল্টো মামুনকে মামলা হামলা এবং প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে ফোন কেটে দেয়।প্রতারক রিয়াজুল এবং তার স্ত্রী আইরিন এর বিরুদ্ধে নিকটস্থ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এবং উভয়ের বিরুদ্ধে কোর্টে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

গাজীপুর কাশেমপুরে থানাধীন এলাকায় আগে ককটেল পরে  ফিল্মি স্টাইলে ডাকাতি

কখনও সেনা সদস্য কখনও নৌ কর্মকর্তা পরিচয়ে  প্রতারণা,,

আপডেট টাইম : ০৬:০২:২৬ পূর্বাহ্ণ, বুধবার, ৭ জুলাই ২০২১

গাজীপুর প্রতিনিধি;মোঃ ইব্রাহিম।।

নাম- রিয়াজুল হক সাং-মিটালু,থানা-শ্রীপুর,জেলা -গাজীপুর।

রিয়াজুল পেশায় একজন সেনাকর্মকর্তা বলে পরিচয় দেন। এবং গাজীপুর,চান্দনা চৌরাস্তা,তেলিপাড়ায় খান সাহেবের বাসায় ভাড়া থাকতেন   তিনি! গত ২০১৬-২০১৮ সাল পর্যন্ত তিনি তেলিপাড়ায় খান সাহেবের বাসায় ভাড়া থাকা অবস্থায় বিভিন্ন মানুষের সাথে প্রতারণা করে হাতিয়ে নেয় লক্ষ লক্ষ টাকা।

মোছাঃআফরোজা পেশায় একজন আদর্শবান শিক্ষীকা,এক ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে আফরোজার সংসার। রিয়াজুলের ছেলের গৃহ শিক্ষীকা ছিলেন আফরোজা। রিয়াজুলের ছেলের গৃহ শিক্ষীকা হিসেবে  রিয়াজুল এবং তার স্ত্রী আইরিন এর সাথে একটি সু সম্পর্ক গড়ে উঠেছে আফরোজার । এর পর আইরিন এবং আফরোজার মাঝে আর্থিক লেনদেন হয়েছে বেশ  কয়েকবার।  হঠাৎ করে রিয়াজুল এবং তার স্ত্রী আইরিন পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে প্রতারনার একটি নীল নকশা তৈরি করেন।  আইরিন আফরোজাকে বলেন রিয়াজুল একটা ব্যাংক থেকে কিছু টাকা লোন উঠাবে। সে জন্য আমাদের কিছু টাকার প্রয়োজন।  আদর্শবান শিক্ষীকা আফরোজা প্রতারক আইরিনের ফাঁদে পা দিয়ে দেন।  ব্রাক ব্যাংক গাজীপুর শাখা থেকে  নিজের নামে উঠানো ১,০০০০০এক লক্ষ টাকা, আফরোজা পার্শবর্তি ভাড়াটিয়া  রুমী,জেসমিন,শাহীনমোল্লার সামনে প্রতারক রিয়াজুল এর স্ত্রী আইরিন এর হাতে তুলে দেন নিজের কাছে থাকা সর্বমোট ১,৩০,০০০এক লক্ষ ত্রিশ হাজার টাকা। টাকা টা নেওয়ার কিছু দিন পর  রাতের অন্ধকারে তেলিপাড়া বাসা ছেঁড়ে পালিয়ে যায় নীল নকশার প্রতারক রিয়াজুল ও তার স্ত্রী আইরিন।একই প্রতারক চক্রের প্রতারনার ফাঁদে পা দেন আরও একটি অসহায় পরিবার। একই পরিকল্পনার প্রতারনার নীল নকশা তৈরি করে তেলিপাড়ার কফিল উদ্দিনের বাসার বাড়াটিয়া মমতাজ বেগমের কাছ থেকে ৭০,০০০(সত্তর হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক রিয়াজুল। খুবই অসহায় পরিবার মমতাজ বেগমের। তিন মেয়ে এক ছেলেকে নিয়ে মমতাজ বেগমের সংসার। মমতাজ বেগমের স্বামী মাইনউদ্দীন এক জন ছোটো খাটো চায়ের দোকানদার।  মমতাজ বেগম শারীরিক ভাবে অসুস্থ হয়ে গেলে তার চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন বলেন চিকিৎসক। তারপর প্রতারক রিয়াজুল এর মুঠোফোনে রিয়াজুলের সাথে যোগাযোগ করেন মমতাজ বেগমের ছেলে মোঃমামুন। রিয়াজুলের কাছে তার মায়ের পাওনা টাকা ফেরৎ চাইলে প্রতারক রিয়াজুল উল্টো মামুনকে মামলা হামলা এবং প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে ফোন কেটে দেয়।প্রতারক রিয়াজুল এবং তার স্ত্রী আইরিন এর বিরুদ্ধে নিকটস্থ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এবং উভয়ের বিরুদ্ধে কোর্টে মামলার প্রস্তুতি চলছে।