ঢাকা ০৫:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
মনোহরদীতে নানা আয়োজনে বর্ষবরণ উৎসব পালিত হয়েছে ঠাকুরগাঁও। রুহিয়া ঐতিহ্যবাহী বৈশাখী মেলা করোনাভাইরাস এর কারণে বন্ধ থাকায় আবারও পাঁচ বছর পর ১০ দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়েছে রানীশংকৈলে নানা আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত রায়পুরে পহেলা বৈশাখে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা নবাবগঞ্জে বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ পালিত ঘাটাইলে ব্যবসায়ীর হাত-পায়ের রগ কেটে সর্বস্ব লুট টঙ্গীতে চাঁদা না পেয়ে ব্যবসায়ীর উপর হামলা: তদন্তে গিয়ে সিসিটিভি আবদার করলো পুলিশ! আনোয়ারা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে ঈদ পূর্ণমিলনী ও মত বিনিময় সভা মোংলায় নিরুদ্দেশ মোতালেব জমাদ্দারের নাতিদের আকিকা অনুষ্ঠানে হাজারও লোকের ভিড় বহিষ্কার মোঃ রবিউল ইসলাম রবি কে দৈনিক সময়ের কন্ঠ পত্রিকা ও অনলাইন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে

রাত যত গভীর হয়,প্রভাত ততো নিকটে আসে।

সময়ের কন্ঠ  রিপোর্ট।।

মানব জীবনে সুখ দুঃখ,হাসি-কান্না ওতপ্রতভাবে জড়িত।

সুখের পর দুঃখ আসে,এটা যতটা সত্য ঠিক তেমনি দুঃখের পর সুখ আসে এটাও ততোটাই সত্য।কখনো এই সুখের স্থায়িত্ব বেশি আবার কখনো বা কম।অনেকটা দিন-রাতের মত।দিনের পর যেমন রাতের আগমন ঘটে,ঠিক তেমনি রাতের অন্ধকার দূর করতে রাতের আধার ঠেলে আলোর সঞ্চার হয়।দিনের দেখা মেলে।তাই দিন রাতের মত সুখ দুঃখ কেও আমাদের বরন করে নেয়ার জন্য সদা প্রস্তুত থাকতে হবে।

কথায় আছে, “দুখের পরিনতি সুখে”।

জীবন চলার পথে বাধা বিপত্তি আসবেই।এই বাধা বিপত্তি জয় করতে পারলে দেখা মিলবে সুখের।জীবনে একচেটিয়া সুখ বা দুঃখ থাকলে জীবনটা একঘেয়েমি আর দুর্বিষহ হয়ে যেত।উপভোগ করা যেত না।ভাটা শেষ হয়ে যাওয়া মানে নদীর বুকে পূর্ণ জোয়ার আসা।

দুঃখ কষ্টে মানুষকে নিরাশ হলে চলবে না।কষ্টের সাগরে ডুবে গেলে সুখের দেখা মিলবে না।একটু ধৈর্য ধরে দৃঢ় প্রত্যয়ে এগিয়ে গিয়েই সফলতা অর্জন সম্ভব।ব্যর্থতায় ডুবে বসলে সফলতা লাভ করা সম্ভব নয়।

মানবজীবনে সুখ-দুঃখ,হাসি কান্না,সফলতা-ব্যর্থতা চক্রাকারে আবর্তিত হয়।কখনো ভাল দিকের স্থায়িত্ব বেশি আবার কখনো বা খারাপের।তবে ভালোর পর খারাপ আসবেই আর খারাপের পর ভালো।

তাই আমাদের উচিৎ সবক্ষেত্রে ধৈর্য ধারন করে কাজ চালিয়ে যাওয়া।সুখ,সফলতা,আনন্দ আপনাআপনি আসবেই।

আরো খবর.......

জনপ্রিয় সংবাদ

মনোহরদীতে নানা আয়োজনে বর্ষবরণ উৎসব পালিত হয়েছে

রাত যত গভীর হয়,প্রভাত ততো নিকটে আসে।

আপডেট টাইম : ০২:২৫:০২ অপরাহ্ণ, মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১

সময়ের কন্ঠ  রিপোর্ট।।

মানব জীবনে সুখ দুঃখ,হাসি-কান্না ওতপ্রতভাবে জড়িত।

সুখের পর দুঃখ আসে,এটা যতটা সত্য ঠিক তেমনি দুঃখের পর সুখ আসে এটাও ততোটাই সত্য।কখনো এই সুখের স্থায়িত্ব বেশি আবার কখনো বা কম।অনেকটা দিন-রাতের মত।দিনের পর যেমন রাতের আগমন ঘটে,ঠিক তেমনি রাতের অন্ধকার দূর করতে রাতের আধার ঠেলে আলোর সঞ্চার হয়।দিনের দেখা মেলে।তাই দিন রাতের মত সুখ দুঃখ কেও আমাদের বরন করে নেয়ার জন্য সদা প্রস্তুত থাকতে হবে।

কথায় আছে, “দুখের পরিনতি সুখে”।

জীবন চলার পথে বাধা বিপত্তি আসবেই।এই বাধা বিপত্তি জয় করতে পারলে দেখা মিলবে সুখের।জীবনে একচেটিয়া সুখ বা দুঃখ থাকলে জীবনটা একঘেয়েমি আর দুর্বিষহ হয়ে যেত।উপভোগ করা যেত না।ভাটা শেষ হয়ে যাওয়া মানে নদীর বুকে পূর্ণ জোয়ার আসা।

দুঃখ কষ্টে মানুষকে নিরাশ হলে চলবে না।কষ্টের সাগরে ডুবে গেলে সুখের দেখা মিলবে না।একটু ধৈর্য ধরে দৃঢ় প্রত্যয়ে এগিয়ে গিয়েই সফলতা অর্জন সম্ভব।ব্যর্থতায় ডুবে বসলে সফলতা লাভ করা সম্ভব নয়।

মানবজীবনে সুখ-দুঃখ,হাসি কান্না,সফলতা-ব্যর্থতা চক্রাকারে আবর্তিত হয়।কখনো ভাল দিকের স্থায়িত্ব বেশি আবার কখনো বা খারাপের।তবে ভালোর পর খারাপ আসবেই আর খারাপের পর ভালো।

তাই আমাদের উচিৎ সবক্ষেত্রে ধৈর্য ধারন করে কাজ চালিয়ে যাওয়া।সুখ,সফলতা,আনন্দ আপনাআপনি আসবেই।