ঢাকা ০৭:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২
সংবাদ শিরোনাম ::
মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে ভাড়ায় পরিচালিত হচ্ছে বেসরকারি হাসপাতাল ন‌ওগাঁর আত্রাইয়ে এক মাদক ব্যবসায়ী সহ আটক চার গাজীপুর মহানগর পুলিশ কর্তৃক ২৪ ঘন্টার উদ্ধার অভিযান নারায়ণগঞ্জের তিতাস গ্যাস খেকো রফিক এর সম্পদের পাহাড় (পর্ব-১) ভাইরাল হওয়া ছাত্রকে বিয়ে করে শিক্ষিকা অবশেষে আত্মহত্যা হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে চা শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে অনির্দিষ্টকালের কর্ম বিরতি পাংশায় সড়ক নির্মাণে নিম্ন মানের সামগ্রী ও অনিয়মের অভিযোগ হবিগঞ্জের মাধবপুরে সুমন হত্যাকান্ডের মূল হোতাসহ গ্রেফতার ৩ বাঘায় শুরু হতে যাচ্ছে নদী ড্রেজিং এর কাজ, নতুন স্বপ্নে উজ্জীবিত হচ্ছে চরাঞ্চলের মানুষ হবিগঞ্জের লাখাই সড়কে নিয়ন্ত্রণ হাড়িয়ে চালক নিহত গুরুতর আহত ( আশংকা) ৫

আফগানিস্তান স্বাধীন ভোট অধিকার লাভ করলেন নাগরিক পালালেন যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা

আন্তর্জাতিক রিপোর্ট।।

যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানে তাদের প্রধান ঘাঁটি বাগরাম বিমানক্ষেত্র কোনো নোটিশ ছাড়াই রাতের আঁধারে ছেড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ঘাঁটিটির নতুন আফগান কমান্ডার।

জেনারেল আব্দুল্লাহ কোহিস্তানি বিবিসিকে জানান, শুক্রবার স্থানীয় সময় ভোররাত ৩টায় যুক্তরাষ্ট্র বাগরাম ছেড়ে যায় আর এর কয়েক ঘণ্টা পর আফগান সামরিক বাহিনী এটি জানতে পারে।

বাগরামে একটি কারাগারও আছে। সেখানে পাঁচ হাজারের মতো তালেবান বন্দিকে ফেলে রেখে গেছে তারা।

যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহারের মধ্যেই আফগানিস্তানজুড়ে দ্রুত অগ্রসর হতে শুরু করেছে তালেবান।

তালেবান বাগরামে হামলা করবে, আফগান বাহিনী এমন ধারণা করছে বলে সোমবার জানান জেনারেল কোহিস্তানি।

বিমানঘাঁটিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, তারা ‘নিকটবর্তী গ্রামীণ এলাকাগুলোতে জড়ো হচ্ছে’ ইতোমধ্যে এমন খবর পাওয়া শুরু করেছেন তিনি। আপনারা জানেন, আমেরিকানদের সঙ্গে আমাদের তুলনা করলে পার্থক্যটা অনেক বড় হবে। কিন্তু আমাদের ক্ষমতা অনুযায়ী জনগণের সর্বোচ্চ সেবা করার ও যতদূর সম্ভব তাদের নিরাপত্তা দেওয়ার চেষ্টা করছি আমরা।

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা করেছে, আফগানিস্তানে তাদের সামরিক অভিযান কার্যকরভাবে সম্পন্ন করার পর তারা বাগরাম ছেড়ে গেছে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ঘোষণা অনুয়ায়ী, চলতি বছরের ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সব সেনা প্রত্যাহার করা হবে।

ভোররাতে বাগরাম ঘাঁটি ছাড়ার বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল সনি ল্যাগেট গত সপ্তাহে দেওয়া এক বিবৃতির কথা বলেন; ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনীগুলো আফগান নেতাদের সঙ্গে সমন্বয় করেই বিভিন্ন ঘাঁটি ছাড়ছে।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের ছেড়ে আসা এলাকাগুলো তালেবান খুব দ্রুত পুনর্দখল করেছে, তারা গ্রাম প্রধান জেলাগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে এবং বেশ কিছু বড় শহর ঘিরে ফেলেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনী বাগরাম ছেড়ে চলে যাওয়ার পর তুলনায় অনেক দুর্বল একটি বাহিনী এটির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে, তালেবানের হাত থেকে ঘাঁটিটি রক্ষার জন্য তাদের অনেক সংগ্রাম করতে হতে পারে।

জেনারেল কোহিস্তানির অধীনে প্রায় তিন হাজার সৈন্য আছে। এই সংখ্যাটি লাখো আমেরিকান ও তাদের মিত্র সেনাদের চেয়ে অনেকটা কম।

এর মধ্যে তালেবানের সঙ্গে লড়াইয়ে টিকতে না পেরে হাজারেরও বেশি আফগান সৈন্য সীমান্ত পাড়ি দিয়ে প্রতিবেশী দেশ তাজিকিস্তানে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। বিদ্রোহীরা আরও এগিয়ে এলে আফগানিস্তানের সামরিক বাহিনী তাদের প্রতিরোধ করতে পারবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা বাড়তে শুরু করেছে।

আরো খবর.......
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে ভাড়ায় পরিচালিত হচ্ছে বেসরকারি হাসপাতাল

আফগানিস্তান স্বাধীন ভোট অধিকার লাভ করলেন নাগরিক পালালেন যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা

আপডেট টাইম : ০৩:৫৪:১০ অপরাহ্ণ, মঙ্গলবার, ৬ জুলাই ২০২১

আন্তর্জাতিক রিপোর্ট।।

যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানে তাদের প্রধান ঘাঁটি বাগরাম বিমানক্ষেত্র কোনো নোটিশ ছাড়াই রাতের আঁধারে ছেড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ঘাঁটিটির নতুন আফগান কমান্ডার।

জেনারেল আব্দুল্লাহ কোহিস্তানি বিবিসিকে জানান, শুক্রবার স্থানীয় সময় ভোররাত ৩টায় যুক্তরাষ্ট্র বাগরাম ছেড়ে যায় আর এর কয়েক ঘণ্টা পর আফগান সামরিক বাহিনী এটি জানতে পারে।

বাগরামে একটি কারাগারও আছে। সেখানে পাঁচ হাজারের মতো তালেবান বন্দিকে ফেলে রেখে গেছে তারা।

যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহারের মধ্যেই আফগানিস্তানজুড়ে দ্রুত অগ্রসর হতে শুরু করেছে তালেবান।

তালেবান বাগরামে হামলা করবে, আফগান বাহিনী এমন ধারণা করছে বলে সোমবার জানান জেনারেল কোহিস্তানি।

বিমানঘাঁটিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, তারা ‘নিকটবর্তী গ্রামীণ এলাকাগুলোতে জড়ো হচ্ছে’ ইতোমধ্যে এমন খবর পাওয়া শুরু করেছেন তিনি। আপনারা জানেন, আমেরিকানদের সঙ্গে আমাদের তুলনা করলে পার্থক্যটা অনেক বড় হবে। কিন্তু আমাদের ক্ষমতা অনুযায়ী জনগণের সর্বোচ্চ সেবা করার ও যতদূর সম্ভব তাদের নিরাপত্তা দেওয়ার চেষ্টা করছি আমরা।

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা করেছে, আফগানিস্তানে তাদের সামরিক অভিযান কার্যকরভাবে সম্পন্ন করার পর তারা বাগরাম ছেড়ে গেছে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ঘোষণা অনুয়ায়ী, চলতি বছরের ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সব সেনা প্রত্যাহার করা হবে।

ভোররাতে বাগরাম ঘাঁটি ছাড়ার বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল সনি ল্যাগেট গত সপ্তাহে দেওয়া এক বিবৃতির কথা বলেন; ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনীগুলো আফগান নেতাদের সঙ্গে সমন্বয় করেই বিভিন্ন ঘাঁটি ছাড়ছে।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের ছেড়ে আসা এলাকাগুলো তালেবান খুব দ্রুত পুনর্দখল করেছে, তারা গ্রাম প্রধান জেলাগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে এবং বেশ কিছু বড় শহর ঘিরে ফেলেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনী বাগরাম ছেড়ে চলে যাওয়ার পর তুলনায় অনেক দুর্বল একটি বাহিনী এটির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে, তালেবানের হাত থেকে ঘাঁটিটি রক্ষার জন্য তাদের অনেক সংগ্রাম করতে হতে পারে।

জেনারেল কোহিস্তানির অধীনে প্রায় তিন হাজার সৈন্য আছে। এই সংখ্যাটি লাখো আমেরিকান ও তাদের মিত্র সেনাদের চেয়ে অনেকটা কম।

এর মধ্যে তালেবানের সঙ্গে লড়াইয়ে টিকতে না পেরে হাজারেরও বেশি আফগান সৈন্য সীমান্ত পাড়ি দিয়ে প্রতিবেশী দেশ তাজিকিস্তানে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। বিদ্রোহীরা আরও এগিয়ে এলে আফগানিস্তানের সামরিক বাহিনী তাদের প্রতিরোধ করতে পারবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা বাড়তে শুরু করেছে।